• রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৭ আশ্বিন ১৪২৬
ads
জীর্ণ ট্র্যাকেই আজ শুরু জাতীয় অ্যাথলেটিকস

লোগো অ্যাথলেটিক্স

অ্যাথলেটিকস

জীর্ণ ট্র্যাকেই আজ শুরু জাতীয় অ্যাথলেটিকস

  • স্পোর্টস রিপোর্টার
  • প্রকাশিত ২৪ জানুয়ারি ২০১৯

আজ বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হচ্ছে জাতীয় অ্যাথলেটিকস। এই প্রতিযোগিতার প্রতিচ্ছবিই যেন প্রকাশ পাচ্ছে ছেঁড়াফাটা আর জোড়াতালি দেওয়া ট্র্যাকে। অ্যাথলেটদের হাহাকার উপেক্ষা করে এবারো টুর্নামেন্ট শুরু হচ্ছে সেই মলিন আর জীর্ণ ট্র্যাকে। ঘুরেফিরে মনে আসে একটাই প্রশ্ন- অ্যাথলেটিকস ট্র্যাকের এই জীর্ণ দশা কাটবে কবে!

২০০৪ সালে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে এই ট্র্যাক বসানো হয়। অ্যাথলেটিকসের একটিই ভেন্যু হওয়ায় সিনিয়র ও জুনিয়র প্রতিযোগিতা হয় এখানেই। অনুশীলনও হয় এখানে। শুধু অ্যাথলেটরা নন, এই ট্র্যাকে পা পড়ে ফুটবলারদেরও।

তাছাড়া বিভিন্ন সময় তো অনুষ্ঠান আছেই। এত বেশি ধকল সইতে না পেরেই যে ট্র্যাকের এই বেহাল দশা সেটা না বললেও চলে।

মলিন ট্র্যাকে কিছুটা উজ্জ্বলতা ফেরানোর চেষ্টা করা হয়েছিল। দুই বছর আগে এর সংস্কারকাজে হাত দেওয়া হয়। কিন্তু ফেরেনি আগের চেহারা। ট্র্যাক ঘুরে দেখা গেছে, ছেঁড়াফাটা ঠিক করতে জোড়াতালি দেওয়া হয়েছে। এখানে প্রতিযোগিতা করা যে ঝুঁকিপূর্ণ সেটা জানেন অ্যাথলেটরা। কিন্তু ইনজুরির আশঙ্কা মাথায় নিয়ে অংশ নেন তারা।

অ্যাথলেট রফিকুল ইসলাম জানালেন, এই জীর্ণ অ্যাথলেটিক ট্র্যাকেই তারা মানিয়ে চলছেন। তিনি বলেছেন, ‘ভালো ট্র্যাকে প্রতিযোগিতা করতে পারলে সবারই ভালো লাগে। তবে এখানে আমরা নিয়মিত অংশ নিতে নিতে অভ্যস্ত হয়ে গেছি।’ শিগগিরই নতুন ট্র্যাক বসবে জানালেন অ্যাথলেটিকস ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক আবদুর রকিব মন্টু।

আশাবাদী কণ্ঠে তিনি বলেছেন, ‘আমরা শুনেছি বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম ঘিরে নতুন করে সংস্কারকাজ হবে। সেখানে নতুন ট্র্যাকও থাকবে। শিগগিরই সেটা হলে আমাদের জন্য ভালো হবে। তখন অ্যাথলেটিকস ছাড়াও অন্য কাজগুলো সুন্দরভাবে করা যাবে।’

বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম সংরক্ষণের অংশ হিসেবে নতুন ট্র্যাক স্থাপন হবে জানালেন জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের সচিব মাসুদ করিম, ‘বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামের ঐতিহ্য বজায় রেখে এর সংরক্ষণে প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে, সেটা মন্ত্রণালয়ে আছে। স্টেডিয়াম সংরক্ষণে যা যা করা দরকার সব উল্লেখ আছে সেখানে, অ্যাথলেটিকসের ট্র্যাকও এই প্রকল্পের মধ্যে থাকার কথা।’

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads