• রবিবার, ২১ জুলাই ২০১৯, ৬ শ্রাবণ ১৪২৫
ads

ছবি: বাংলাদেশের খবর

বাংলাদেশ

ঢাকায় প্রবাসীদের অনুষ্ঠানে মন্ত্রী

বাংলাদেশি পাসপোর্টে বিদেশে আড়াই লাখ রোহিঙ্গা

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ২৯ এপ্রিল ২০১৮

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি জানিয়েছেন, বাংলাদেশি পাসপোর্ট নিয়ে দুই থেকে আড়াই লাখ রোহিঙ্গা বিদেশে গেছে। সেসব দেশে তারা অর্থ উপার্জন করে মিয়ানমারে পাঠাচ্ছে। গতকাল শনিবার রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে প্রবাসী বাংলাদেশিদের ‘ওয়ার্ল্ড সামিট’ সিরিজের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা জানান।

‘এসো গড়ি মাতৃভূমি’ শীর্ষক এ অনুষ্ঠান আয়োজন করে সেন্টার ফর নন-রেসিডেন্ট বাংলাদেশিস (এনআরবি)। অনুষ্ঠানে প্রবাসীরা বাংলাদেশে বিনিয়োগ জটিলতা নিরসনে সরকারের হস্তক্ষেপ কামনা করেন। প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী বলেন, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে কর্মরত রয়েছেন অন্তত সোয়া কোটি বাংলাদেশি, যাদের পাঠানো অর্থে গতিশীল হচ্ছে অর্থনীতির চাকা। বিদেশে বাংলাদেশিদের সুনাম যেমন রয়েছে, তেমনি কিছুটা দুর্নামেরও ভাগীদার হচ্ছে বাংলাদেশ। এই দুর্নামের একটি বড় কারণ রোহিঙ্গারা। তারা নানা অপরাধে জড়িয়ে বাংলাদেশের সুনাম নষ্ট করছে জানিয়ে তিনি বলেন, বিভিন্ন দেশে গেলে অনেকে বাংলাদেশি পরিচয়ে দেখা করতে আসে। কোথায় বাড়ি জিজ্ঞেস করলে জানা যায়, তারা রোহিঙ্গা। মন্ত্রী বলেন, মালয়েশিয়ায় শ্রমিক পাঠাতে সিন্ডিকেট হয়েছে, তবে এটা আমাদের দেশে নয়। সেই দেশের সিন্ডিকেট। এখন শ্রমিক পাঠানো বন্ধ করে দিলে কেউ যেতে পারবে না, ফলে সবাই ক্ষতিগ্রস্ত হবে। রোহিঙ্গাদের প্রসঙ্গে নুরুল ইসলাম বিএসসি আরো বলেন, তাদের এ দেশে এনে জাতীয় পরিচয়পত্র কে দিয়েছে? জাতীয় পরিচয়পত্র দিয়ে তারা পাসপোর্ট তৈরি করে বিদেশে যাচ্ছে। এ সুযোগ কে করে দিয়েছে? গ্রাউন্ড লেভেলে আমরাই করে দিয়েছি। এই প্রবণতা অবশ্যই বন্ধ করতে হবে। তিনি বলেন, রোহিঙ্গারা বাংলাদেশি পাসপোর্ট নিয়ে বিদেশে গিয়ে কাজের পরিবেশ নষ্ট করছে। সেখানে তারা নানা ধরনের অপকর্মে জড়িয়ে পড়ছে। বিদেশে রোহিঙ্গারা আমাদের যন্ত্রণার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। প্রবাসী বাংলাদেশিদের বৈধ পথে রেমিট্যান্স পাঠানোর আহ্বান জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, যারা বৈধ পথে পাঠাবে, তাদের প্রণোদনা দিতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। অর্থমন্ত্রী রাজি থাকলে এ প্রণোদনা চালু হবে।

সেন্টার ফর এনআরবি চেয়ারম্যান এমএস সেকিল চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন সাবেক মন্ত্রী এসকে শহীদুল ইসলাম, সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা হোসেন জিল্লুর রহমান, এফবিসিসিআই সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন, নির্বাচন কমিশন সচিব হেলালুদ্দিন আহমেদ, বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর আবু হেনা মোহা. রাজি হাসান এবং কয়েকজন প্রবাসী। বিদেশে দেশের সুনাম ধরে রাখার তাগিদ জানিয়ে প্রবাসীদের পক্ষ থেকে আটটি দাবি জানানো হয় অনুষ্ঠানে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads