• শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮, ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৪
ads
শিক্ষামন্ত্রীর আশ্বাসে বিশ্বাস নেই শিক্ষকদের

পুলিশের বাধায় বার বার তা পণ্ড হচ্ছে এমপিওভুক্তির জন্য শিক্ষকদের আন্দোলন

সংরক্ষিত ছবি

বাংলাদেশ

শিক্ষামন্ত্রীর আশ্বাসে বিশ্বাস নেই শিক্ষকদের

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ১২ জুন ২০১৮

এমপিওভুক্তির জন্য শিক্ষকরা গত দুদিন ধরে প্রেস ক্লাবের সামনে অবস্থান কর্মসূচির জন্য বসতে চাইলেও পুলিশের বাধায় বার বার তা পণ্ড হচ্ছে। এ রকম পরিস্থিতিতে গতকাল সোমবারও শিক্ষকরা আন্দোলন শুরু করেন। কিন্তু পুলিশের বাধায় তা স্থগিত করতে হয়। এ অবস্থায় শিক্ষামন্ত্রীর বার্তা, শিক্ষকদের কষ্ট করে আন্দোলনের দরকার নেই। এমপিওভুক্তি হবে এবং এর কাজ চলছে। কিন্তু মন্ত্রীর কথায় চিঁড়ে ভেজেনি শিক্ষকদের। শিক্ষকরা মন্ত্রীর কথা উড়িয়ে দিয়ে বলছেন তারা আন্দোলনই করবেন। মন্ত্রী এমন আশ্বাস এর আগেও বহুবার দিয়েছেন, যা বার বার ভুয়া হয়েছে। নন-এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের নিয়ে এভাবেই সঙ্কটে পড়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।

মন্ত্রীর কথায় আশ্বস্ত না হয়ে নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির দাবিতে শিক্ষক-কর্মচারীরা লাগাতার অবস্থান নিতে চাইলে আবারো বাধা দিয়েছে পুলিশ। জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে গতকাল সোমবারও তারা অবস্থান নেওয়ার চেষ্টা করলে পুলিশ তাদের ধাওয়া দিয়ে সরিয়ে দেয়। পুলিশের ধাক্কাধাক্কিতে দুজন শিক্ষক আহত হন। আহতরা হলেন টাঙ্গাইলের একটি কলেজের প্রভাষক মো. রফিকুল ইসলাম এবং আরেকজন উত্তরবঙ্গের একটি প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক। তার নাম পরিচয় জানা যায়নি।

এর কিছু সময় পর শিক্ষকরা প্রেস ক্লাবের সামনের রাস্তার উত্তর পাশে বিচ্ছিন্নভাবে অবস্থান নেন। দুপুরে দিনের কর্মসূচি স্থগিত করে আজ মঙ্গলবার ফের প্রেস ক্লাবের সামনে অবস্থান কর্মসূচি শুরু করবেন বলে জানিয়েছেন সংগঠনের সভাপতি অধ্যক্ষ গোলাম মাহমুদুন্নবী ডলার।

গতকাল সোমবার সচিবালয়ে এক অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে, শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এই শিক্ষকদের রমজান মাসে কষ্ট করে আন্দোলন না করতে অনুরোধ জানান। তিনি বলেন, বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করা হবে। তাই শিক্ষকদের আন্দোলনের প্রয়োজন নেই। তিনি বলেন, বাজেটে অনেক বিষয়ে উল্লেখ করে দেওয়া নেই। কিন্তু এটা জরুরি বিষয়ও নয়। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জন্য যে বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে, সেটা ফয়সালা করে এমপিওভুক্ত করা হবে। তবে কতগুলো প্রতিষ্ঠানকে করা হবে সে বিষয়ে কিছু বলেননি। পর্যায়ক্রমে এসব প্রতিষ্ঠানকে এমপিওভুক্ত করা হবে জানিয়ে তিনি বলেন, এমপিওভুক্তি নিয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয় আগে থেকেই কাজ করছে। এ কাজ এখনো চলছে। বাজেটে এ বিষয়ে বরাদ্দ না থাকলেও মন্ত্রণালয়ের যে বরাদ্দ আছে এবং অর্থমন্ত্রীর যে থোক বরাদ্দ আছে সেখান থেকে এমপিওভুক্তি করানো সম্ভব। এ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী এবং অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে আমার কথা হয়েছে। এটারই কাজ চলছে।

প্রেস ক্লাব এলাকায় দায়িত্বে থাকা শাহবাগ থানার টহল পুলিশের পরিদর্শক শেখ আবুল বাশার, অনুমতি না থাকায় শিক্ষকদের কর্মসূচিতে বাধা দেওয়া হয়েছে। অনুমতি নিয়ে এলে কর্মসূচি করতে দেওয়া হবে।

পূর্বঘোষণা অনুযায়ী এমপিওভুক্তির দাবিতে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীরা গতকাল সকাল ১০টার পর পরই প্রেস ক্লাবের সামনে আসতে থাকেন। বেলা ১১টার আগে আগে তারা পল্টনের দিক থেকে প্রেস ক্লাবের সামনে আসার চেষ্টা করেন। কিন্তু পুলিশ তাদের সেখানে বাধা দিয়ে সরিয়ে দেয়। এরপর তারা প্রেস ক্লাবের সামনের রাস্তার উত্তর পাশে বিএমএ ভবনের সামনে বিচ্ছিন্নভাবে অবস্থান নেন। কিছুক্ষণ পর তারা আবার প্রেস ক্লাবের সামনে আসতে চাইলে পুলিশ আবারো বাধা দেয়।

এদিকে, শিক্ষামন্ত্রীর দেওয়া আশ্বাসে বিশ্বাস রাখতে পারছেন না শিক্ষকরা। গত রোব ও সোমবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এমপিওভুক্তির দাবিতে অবস্থান কর্মসূচি পালন করতে চাইলেও পুলিশের বাধায় শিক্ষকরা মূল সড়কে দাঁড়াতে না পারলেও প্রেস ক্লাবের আশপাশে অলিগলিতে অবস্থান নেন।

এ বিষয়ে নন এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান শিক্ষক-কর্মচারী ফেডারেশনের সভাপতি অধ্যক্ষ গোলাম মাহমুদুন্নবী ডলার বলেন, শিক্ষকদের চলমান আন্দোলন ঠেকানোর জন্য শিক্ষামন্ত্রী এমন ঘোষণা দিয়েছেন। এ জন্য মন্ত্রীর আশ্বাসে আমাদের বিশ্বাস নেই। শিক্ষামন্ত্রী বহুবারই এমন আশ্বাস দিয়েছেন। উনার ইচ্ছাও নেই এমপিও করার। একটা জনতুষ্টির জন্য উনি এমন আশ্বান দেন। গোলাম মাহমুদুন্নবী বলেন, তারা এ অবস্থান কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা অব্যাহত রাখবেন। তারা চান স্বীকৃতি পাওয়া সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করা হোক।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads