• শনিবার, ২০ জুলাই ২০১৯, ৫ শ্রাবণ ১৪২৫
ads
কুমিল্লাকে ফের লজ্জায় ফেলল রংপুর

গেইল ও ভিলিয়ার্স হেসেখেলে রংপুরের জয় নিশ্চিত করেন

ছবি : বাংলাদেশের খবর

বিপিএল

কুমিল্লাকে ফের লজ্জায় ফেলল রংপুর

  • স্পোর্টস রিপোর্টার
  • প্রকাশিত ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

অন্য দলের সঙ্গে যতই শক্তিমত্তার পরিচয় দিক, রংপুর সামনে এলেই চুপসে যায় কুমিল্লা। এবারের বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) গতবারের চ্যাম্পিয়ন রংপুর রাইডার্সের সঙ্গে প্রথম দফা সাক্ষাতে মাত্র ৬৩ রানে অলআউট হয়েছিল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। গতকাল প্রায় একই অবস্থা হয় কুমিল্লার। মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে লিগ পর্বে নিজেদের শেষ ম্যাচে কুমিল্লা মাত্র ৭২ রানে অলআউট হয়। সামান্য ওই স্কোর টপকাতে কোনো বেগ পেতে হয়নি মাশরাফি বিন মর্তুজার দলকে। মাত্র ৯.৩ ওভারে ১ উইকেট হারিয়ে ৭৬ রান তোলে রংপুর। সহজেই ৯ উইকেটের জয় পায় রংপুর।

১২ ম্যাচে ১৬ পয়েন্ট নিয়ে লিগ পর্বে এক নম্বর দল হিসেবে শেষ চার নিশ্চিত করল রংপুর (নেট রানরেট ১.০১৮)। কুমিল্লা দলও (নেট রানরেট ০.০৬৬) ১৬ পয়েন্ট পেয়েছে। তবে তারা নেট রানরেটে কিছুটা পিছিয়ে থাকায় দ্বিতীয় দল হিসেবে শেষ চারে খেলবে। অবশ্য প্রথম কোয়ালিফায়ায়েই মুখোমুখি হবে এই দুটি দল। আগামীকাল সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় রংপুর ও কুমিল্লার ওই ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে। ম্যাচটিতে বিজয়ী দল সরাসরি উঠে যাবে ফাইনালে। আর পরাজিত দলটি ৬ ফেব্রুয়ারি দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে খেলবে এলিমিনেটর ম্যাচের বিজয়ীর বিপক্ষে। 

মাত্র ৭৩ রানের টার্গেট অতিক্রম করতে ওপেনিংয়ে নামেন ক্রিস গেইল ও মেহেদি মারুফ। দলীয় মাত্র ৯ রানে সঞ্জিত সাহার বলে বোল্ড হন মেহেদি মারুফ (৫)। তবে এতে করে কোনো ধরনের চাপে পড়েনি রংপুর দল। ক্যারিবিয়ান তারকা গেইলের সঙ্গে জুটি বাঁধেন দক্ষিণ আফ্রিকার নন্দিত ব্যাটিং তারকা এবি ডি ভিলিয়ার্স। তারা উভয়েই চার-ছয়ের ঝলকানিতে অপরাজিত থেকে রংপুরের কাঙ্ক্ষিত জয় নিশ্চিত করেন। ভিলিয়ার্স মাত্র ২২ বলে ৪টি চার ও ২টি ছয়ে করেন ৩৪ রান। আর গেইল ৩০ বলে ৩টি চার ও ২টি ছয়ে করেন ৩৫ রান। কুমিল্লার সঞ্জিত সাহা ৩২ রানে ১টি উইকেট লাভ করেন।

এর আগে কুমিল্লা অধিনায়ক ইমরুল কায়েস টসে জিতে প্রথমে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেন। বল হাতে নিয়ে শুরু থেকেই কুমিল্লার ব্যাটসম্যানদের চাপে রাখেন রংপুরের বোলাররা। ইনিংসের প্রথম ওভারেই তামিম ইকবালের (০) উইকেটসহ মেডেন নেন নাহিদুল ইসলাম। নিজের পরের ওভারেই আরেক ওপেনার এনামুল হক বিজয়কেও (৫) ফেরান নাহিদুল। চতুর্থ ওভারে উইকেট শিকারের উৎসবে যোগ দেন মাশরাফি। পরপর দুই ওভারে সাজঘরে পাঠিয়ে দেন ইমরুলকে (০) এবং থিসারা পেরেরাকে (৩)। মাঝে চতুর্থ ওভারে শামসুর রহমানের (১২) উইকেট নেন শহীদুল ইসলাম। ষষ্ঠ ওভারে মাত্র ২৩ রান তুলতেই সাজঘরে ফিরে যান ৫ ব্যাটসম্যান। এরপর জুটি গড়েন লিয়াম ডসন ও জিয়াউর রহমান। ২টি চার ও ১টি ছয়ে ইনিংস সর্বোচ্চ ২১ রান করেন জিয়া। তাদের ৩৩ রানের জুটি ভাঙেন ইংল্যান্ডের রবি বোপারা। পরে কুমিল্লার দশা পুরোপুরি বেহাল করে দেন বোপারাই। ৩ ওভারে মাত্র ৭ রান খরচায় নেন ৩ উইকেট। তবে দশম ব্যাটসম্যান সঞ্জিত সাহাকে (২) আউট করেন লেগস্পিনার মিনহাজুল আবেদীন আফ্রিদি। আফগানিস্তানের ওয়াকার সালামখেল ৬ রানে অপরাজিত থাকেন। মাশরাফি ১৮ রানে ও নাহিদুল ইসলাম ৯ রানে ২টি করে উইকেট পান। ফল : রংপুর ৯ উইকেটে জয়ী। ম্যাচসেরা : রবি বোপারা।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads