• বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯, ১ কার্তিক ১৪২৬
ads
বিপিএলে থাকছে অত্যাধুনিক প্রযুক্তি

সংগৃহীত ছবি

বিপিএল

বিপিএলে থাকছে অত্যাধুনিক প্রযুক্তি

  • ক্রীড়া প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ০২ অক্টোবর ২০১৯

ভারতের আইপিএলের মতো অত্যাধুনিক প্রযুক্তি নিয়ে আসছে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল)। সামনের আসর থেকেই ঘরোয়া এই টুর্নামেন্টে আধুনিক সব প্রযুক্তি ব্যবহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। আগামী বিপিএলে উঁচুমানের সব যন্ত্রাদি ব্যবহার করা হবে। এর মধ্যে রয়েছে আধুনিক স্ট্যাম্প ক্যামেরা, স্পাইডার ক্যাম, ড্রোনের মতো প্রযুক্তি। মূলত টেলিভিশন সম্প্রচারের মান বাড়াতেই এমন উদ্যোগ নিচ্ছে বিসিবি।

এবারই প্রথমবারের মতো বিপিএলে ব্যবহূত হবে ড্রোন ক্যামেরা। আইপিএল, বিগ ব্যাশ লিগের মতো টুর্নামেন্টে যে স্পাইডার ক্যাম ব্যবহার হয়, সেটিও থাকছে বিপিএলে। পুরো মাঠ কভারের জন্য ৩৫টি ক্যামেরা থাকবে। এর মধ্যে ১৮টি চলবে ক্যামেরাম্যানের সাহায্যে যা কিনা ৩৬০ ডিগ্রি ভিউ দেবে। পুরো ভেন্যুই থাকবে ক্যামেরার আওতাধীন।

বড় পরিবর্তনের মধ্যে থাকছে দ্বিমুখী স্ট্যাম্প ক্যামেরা। বিপিএলের ইতিহাসে এবারই প্রথম এমন ক্যামেরা ব্যবহার হবে। স্ট্যাম্পের মধ্যে সামনে এবং পেছনের ক্যামেরা থাকবে যাতে করে ক্রিজের কোনোকিছুই মিস না হয়ে যায়। তাছাড়া প্রথমবারের মতো ব্যবহার হবে জিং বেইল লাইটিং পদ্ধতি, যে পদ্ধতিতে বল স্ট্যাম্পে লাগলেই লাইট জ্বলে উঠবে। ডিআরএসের সিদ্ধান্তের জন্য দুটো আলট্রামোশন ক্যামেরা থাকবে। থাকবে হক আই প্রযুক্তি।

চুপচাপ বিসিবি : আগেই জানা, এবার আর ফ্র্যাঞ্চাইজি বিপিএল হবে না। তার বদলে এবারের বিপিএলের আয়োজন-ব্যবস্থাপনার পাশাপাশি দল গঠন ও দল পরিচালনাও করবে বিসিবি। বোর্ডের ব্যবস্থাপনায় পরিচালিত হবে প্রতিযোগী দলগুলো। তারপরও বলা হয়েছিল, দল গঠন ও পরিচালনায় স্পন্সর পার্টনার নেওয়া হবে এবং আগ্রহী করপোরেট হাউজগুলো চাইলে সব কটা দলের স্পন্সর পার্টনারও হতে পারবে। সেই স্পন্সর কারা হবে? তা সেপ্টেস্বরের মধ্যে নির্ধারণও করে ফেলা হবে; কিন্তু হায়। সেপ্টেস্বর শেষ; অথচ বিপিএলের কোনোই তোড়জোড় নেই! হঠাৎই বিপিএল নিয়ে সাড়া-শব্দ থেমে গেছে। গত রোববার ও সোমবার বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের সভা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা শোনা গেলেও তা অনুষ্ঠিত হয়নি। কবে হবে? তারও কোনো পূর্বাভাস নেই। বিপিএলের একটি সূত্র জানিয়েছে, সবাই বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের খবরের অপেক্ষায়। বোর্ডপ্রধান হয়তো খুব শিগগিরই সভা ডাকবেন। আমরা তার ডাকের অপেক্ষায় আছি। বলার অপেক্ষা রাখে না, স্পন্সর পার্টনার চূড়ান্ত করার কথা ছিল সেপ্টেম্বরের মধ্যেই। চলতি অক্টোবরের মাঝামাঝি প্লেয়ার্স ড্রাফটও অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা। এখন স্পন্সর পার্টনার নিযোগ বা চূড়ান্ত করতে বিলম্ব হওয়া মানে সেই প্লেয়ার্স ড্রাফট হতেও দেরি হওয়া।

লেগ স্পিনারদের জন্য নিয়ম : বিসিবি সভাপতি পাপন জানালেন, বিপিএলে একটি নিয়ম করে দেওয়া হবে, যাতে একাদশে প্রতি দল একজন করে লেগ স্পিনার রাখতে বাধ্য থাকে। পাপনের ভাষায়, আমাদের পরিকল্পনা আছে, বিপিএলের প্রতি দলে একজন করে লেগ স্পিনার বাধ্যতামূলক করে দেওয়ার।’

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads