• রবিবার, ২১ জুলাই ২০১৯, ৬ শ্রাবণ ১৪২৫
ads
নৌযান শ্রমিকদের কর্মবিরতিতে চাঁদপুরে দুর্ভোগ

শ্রমিকদের কর্মবিরতি ঘোষণার পর থেকে চাঁদপুর থেকে নারায়নগঞ্জ ও ঢাকা রুটে কোনো লঞ্চ ছেড়ে যায়নি

ছবি: বাংলাদেশের খবর

যোগাযোগ

নৌযান শ্রমিকদের কর্মবিরতিতে চাঁদপুরে দুর্ভোগ

  • প্রকাশিত ১৬ এপ্রিল ২০১৯

নৌযান শ্রমিকদের বেতন ভাতা বাড়ানো, নিরাপত্তা, নৌ-পথে চাঁদাবাজি, নিয়োগপত্র, অনিয়ম বন্ধসহ ১১ দফা দাবিতে সারাদেশের ন্যায় চাঁদপুরেও শ্রমিকদের কর্মবিরতি চলছে। মঙ্গলবার রাত ১২টা থেকে শ্রমিকরা কর্মবিরতি শুরু করেছেন। 

শ্রমিকদের কর্মবিরতি ঘোষণার পর থেকে চাঁদপুর থেকে নারায়নগঞ্জ ও ঢাকা রুটে কোনো লঞ্চ ছেড়ে যায়নি। অভ্যন্তরীণ রু‌টের সব ধরনের নৌযানগু‌লো মাঝ নদী‌তে নি‌য়ে নোঙ্গর করে রাখা হ‌য়ে‌ছে। এতে করে ভোগান্তিতে পড়েছে সাধারণ মানুষ।

বিশেষ করে চাঁদপুর ও দক্ষিণাঞ্চলের লক্ষ্মীপুর, রায়পুর, নোয়াখালীসহ বেশকিছু এলাকার মানুষ চাঁদপুর-ঢাকা-নারায়নগঞ্জ নৌ-রুটে লঞ্চে যাতায়াত করে। ভোরে চাঁদপুর নৌ টার্মিণালে এসে অনেক মানুষ পড়েছেন বিপাকে। ঘণ্টার পর ঘন্টা অপক্ষো করে লঞ্চ না পেয়ে বাস কিংবা বিকল্প সড়ক পথে গিয়েছেন গন্তব্যে।

ঢাকাগামী যাত্রী সালমান ও নারায়নগঞ্জের যাত্রী কামরুন নাহার বলেন, আমরা হঠাৎ করে চাঁদপুর লঞ্চঘাটে এসে দেখি ঘাটে কোনো লঞ্চ নেই। পরে জানলাম শ্রমিকদের কর্মবিরতি। এভাবে তারা নিজেদের ইচ্ছেমত কর্মবিরতি দিতে পারে না। যাত্রীদের সেবার কথাও তাদের মাথায় রাখতে হবে। কর্মবিরতি দেওয়ার আগে সাধারণ মানুষদেরকে ভালোভাবে জানানোর প্রয়োজন রয়েছে।

চাঁদপুর আঞ্চলিক নৌযান শ্র‌মিক ফেডা‌রেশনের সভাপতি হারুনুর রশীদ জানান, সারাদেশের ন্যায় চাঁদপুরে শ্রমিকদের ১১ দফা দাবিতে কর্মবিরতি পালিত হচ্ছে। আমাদের এসব দাবি-দাওয়া পূরণ না হলে কর্মবিরতি লাগাতার চলবে।

চাঁদপুর আঞ্চলিক নৌযান শ্র‌মিক ফেডা‌রেশনের সাধারণ সম্পাদক রওশন মাস্টার জানান, অনেক আগেই আমাদের দাবিগুলো পূরণ হওয়ার কথা ছিলো। কিন্তু কি কারণে আমরা বঞ্চিত হচ্ছি, তা আমাদের জানা নেই। আমরা চাই নৌযান শ্র‌মিকদের কথা চিন্তা দ্রুত আমাদের দাবিগুলো মেনে নেবে।

বিআইডব্লিউটিএর টিআই রেজাউল করিম বলেন, যাত্রীদের কথা চিন্তা করে লঞ্চ মালিক ও শ্রমিকদের একটি সমঝোতা হওয়া উচিত। ২০১৬ সালে নৌযান শ্র‌মিকদের কর্মসূচি বাস্তবায়ন না হওয়ার কারণে এ বছর তারা আগের দাবি-দাওয়া তুলে ধরে কর্মবিরতি পালন করছে।

চাঁদপুর নৌ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবু তাহের খান বলেন, রাত ১২টা থেকে নৌযান শ্র‌মিক ফেডারেশনের নেতারা কর্মবিরতি শুরু করেছেন। রাত থেকে এখনো পর্যন্ত চাঁদপুর লঞ্চ টার্মিনালে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। কোনো প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে আমরা প্রস্তুত রয়েছি।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads