• সোমবার, ২৬ আগস্ট ২০১৯, ১১ ভাদ্র ১৪২৫
ads
পদ্মা পাড়ি দিয়ে কর্মস্থলে ফিরছে দক্ষিণবঙ্গের মানুষ

অতিরিক্ত যাত্রী নিয়ে শিমুলিয়া ঘাটে ভিড়ছে লঞ্চ

ছবি:

যোগাযোগ

পদ্মা পাড়ি দিয়ে কর্মস্থলে ফিরছে দক্ষিণবঙ্গের মানুষ

  • লৌহজং (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ১০ জুন ২০১৯

ঈদের ছুটি উপভোগ করে কর্মস্থলে ফিরতে শুরু করেছে দক্ষিণবঙ্গের হাজার মানুষ। আজ সোমবার মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার শিমুলিয়াঘাটে ঘরে ফেরা ঢাকামুখী যাত্রীর চাপ ছিল চোখে পড়ার মত। লঞ্চগুলোর ধারণ ক্ষমতার অতিরিক্ত যাত্রী নিয়ে পদ্মা নদী পাড়ি দিলেও প্রশাসনকে কোনো ব্যবস্থা নিতে দেখা যায়নি। বরং এক ধরণের অসহায়ত্ববোধ দেখা গেছে তাদের মাঝে। এ সময় লঞ্চে যাত্রীদের নিকট থেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদতায়েরও অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সরজমিনে শিমুলিয়াঘাট ঘুরে দেখা যায় বৈরি আবহাওয়ার না থকলেও পদ্মা নদীতে ঢেউ রয়েছে প্রচুর। লঞ্চ, সি-বোট ও ফেরী চলছে পুরদমে। এ নৌ-রুটের চলাচলরত ৮৭টি লঞ্চের মধ্যে প্রায় সবগুলো লঞ্চই যাত্রী পারাপারে ব্যস্ত রয়েছে। খোদ লঞ্চ মালিক সমিতির নেতাদের লঞ্চেই ধারণ ক্ষমতার চেয়ে তিন থেকে চারগুণ অতিরিক্ত যাত্রী বহন করছে ও নির্ধারিত ভাড়ার ৩৩ টাকার পরিবর্তে ৪০ টাকা করে ও পরিবহনের লঞ্চগুলোতে লোকাল যাত্রীদের কাছ থেকে ৫০ টাকা করে মাঝ নদীতে এসে ভাড়া আদায় করছে বলে যাত্রীদের নিকট থেকে এমন অভিযোগ পাওয়া গেছে।

জানা যায়, এবার ঈদে শিমুলিয়াঘাটে ভাড়া না বাড়াতে পারলেও ফিরতি পথে ওপারের (কাঁঠালবাড়ির) এক প্রভাবশালী লঞ্চ মালিক সমিতির নেতা থাকার করণে এক শ্রেণীর অসাধু লঞ্চ মালিক ও স্টাফরা মাঝ নদীতে এসে বাড়তি ভাড়া আদায় করছে। এ সময়ে যে লঞ্চে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করা হয়, সে লঞ্চের টিকিটের পরিবর্তে অন্য লঞ্চের টিকিট ধরিয়ে দিচ্ছে ওই অসাধু লঞ্চের কর্তৃপক্ষ। এটা তাদের এক রকম কৌশল বলে মনে করছেন যাত্রীরা।

এ বিষয়ে কথা হয় বিআইডব্লিউটিএর সমুদ্র পরিবহন অধিদপ্তরের নৌ-নিট্রা ও ট্রাফিক ব্যবস্থপনা বিভাগের সহকারী পরিচালক শাহাদাৎ হোসেনের সঙ্গে। তিনি বলেন, ভাড়া তো কাঁঠালবাড়ী ঘাটে কাঁটে না। মাঝ নদীতে গিয়ে অতিরিক্ত ভাড়া কাঁটলে আমাদের কি করার আছে। তবুও যাদের যাদের বিরুদ্ধে অতিরিক্ত ভাড়া ও যাত্রী পরিবহনের অভিযোগ পাবো আমরা সাথে সাথে ব্যবস্থা নেব।

তিনি বলেন, শিমুলিয়াঘাটে টিআই আছে যেসব লঞ্চ অতিরিক্ত যাত্রী ও বাড়তি ভাড়া আদায় করবে টিআই তা লিখে রাখবে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads