• সোমবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৯, ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
ads
এলেঙ্গা-হাটিকুমরুল-রংপুর সড়ক উন্নয়নে ব্যবহার হবে বসুন্ধরা সিমেন্ট

ছবি - বাংলাদেশের খবর

যোগাযোগ

নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি সই

এলেঙ্গা-হাটিকুমরুল-রংপুর সড়ক উন্নয়নে ব্যবহার হবে বসুন্ধরা সিমেন্ট

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ০৮ নভেম্বর ২০১৯

এলেঙ্গা-হাটিকুমরুল-রংপুর সড়ক উন্নয়নে ব্যবহার করা হবে বসুন্ধরা সিমেন্ট। সাসেক রোড কানেক্টিভিটি প্রকল্প-২ এর আওতায় সড়কটি উন্নয়নে কাজ করছে চায়না কনস্ট্রাকশন সেভেনথ ইঞ্জিনিয়ারিং ডিভিশন করপোরেশন। গতকাল বৃহস্পতিবার দুই প্রতিষ্ঠানের মধ্যে চুক্তি সই হয়েছে। রাজধানীর লা মেরিডিয়ান হোটেলে দেশের অন্যতম শিল্পগোষ্ঠী বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীর এবং সাসেক রোড কানেক্টিভিটি প্রকল্পের ম্যানেজার যাং যং য়ুই নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে চুক্তি সই করেন।

প্রকল্পের আওতায় মোকামতলা থেকে পলাশবাড়ী পর্যন্ত ২৯ দশমিক ৯ কিলোমিটার চার লেনের রোড উন্নয়নে ব্রিজ, কালভার্ট, ওভারপাস ও আন্ডারপাস নির্মাণে ব্যবহার হবে বসুন্ধরা সিমেন্ট।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, আধুনিক প্রযুক্তিতে সমৃদ্ধ, দেশের অন্যতম বৃহৎ উৎপাদন ক্ষমতা সম্পন্ন উন্নতমানের ক্লিংকারে উৎপাদিত এবং সঠিক মানের ধারাবাহিকতা রক্ষা ও সুষ্ঠু সরবরাহ ব্যবস্থার ওপর আস্থা রেখে সংশ্লিষ্ট প্রকল্পে বসুন্ধরা সিমেন্ট ব্যবহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে চায়না কনস্ট্রাকশন সেভেনথ ইঞ্জিনিয়ারিং ডিভিশন করপোরেশন।

বর্তমানে দেশের সব উল্লেখযোগ্য প্রকল্প যেমন মূল পদ্মা সেতু, পদ্মা সেতুর নদী শাসন, পদ্মা সেতুর রেল সংযোগ প্রকল্প, মেট্রো রেল, ফার্স্ট ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে, পায়রা সেতু, সাসেক-১, কালশী ফ্লাইওভার, ওয়েস্টার্ন বাংলাদেশ ব্রিজ উন্নয়ন প্রকল্প, এস আলম পাওয়ার প্ল্যান্ট, রংপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র, মাতারবাড়ি তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্র, রূপসা রেল সেতু, রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্রসহ অন্য বৃহৎ স্থাপনাগুলোতে ব্যবহূত হচ্ছে বসুন্ধরা সিমেন্ট। এর বাইরেও অনেকগুলো উন্নয়ন প্রকল্পে এই সিমেন্ট ব্যবহার করা হচ্ছে। 

বেসরকারি খাতেরও বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠান তাদের শিল্প সম্প্রসারণে বসুন্ধরা সিমেন্ট ব্যবহার করছে বলে জানা গেছে। জানা গেছে, সিমেন্ট খাতে প্রায় ২০ বছর ধরে কাজ করছে বসুন্ধরা গ্রুপ। বর্তমানে প্রতিষ্ঠানটির বাৎসরিক উৎপাদন সক্ষমতা রয়েছে প্রায় ৫ দশমিক শূন্য ৫ মিলিয়ন। দুটি ইউনিটে সিমেন্ট উৎপাদিত হচ্ছে। গুণগত মানেও এগিয়ে রয়েছে বসুন্ধরা সিমেন্ট।

চুক্তি সই অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন চায়না রেলওয়ে ইঞ্জিনিয়ারিং করপোরেশনের (সাউথ এশিয়া কোম্পানি) মহাব্যবস্থাপক গ সিচাও, ম্যাটেরিয়াল ম্যানেজার ডং যেং, বসুন্ধরা গ্রুপের উপদেষ্টা সাবেক সেনা কর্মকর্তা মাহবুব হায়দার ও মোহাম্মদ আবু তৈয়ব, ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপের পরিচালক ও দৈনিক কালের কণ্ঠের সম্পাদক ইমদাদুল হক মিলন, বসুন্ধরা গ্রুপের চিফ ফিনান্সিয়াল অফিসার মো. তোফায়েল হোসেন, চিফ মার্কেটিং অফিসার (সিমেন্ট খাত) খন্দকার কিংশুক হোসেন, জেনারেল ম্যানেজার (সেলস) ইঞ্জিনিয়ার মো. মাহমুদুল হাসানসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads