• মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৮, ২৯ কার্তিক ১৪২৫
ads
বাড্ডায় আ. লীগ নেতা খুন তিন দিনেও মামলা হয়নি

বাড্ডা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা ফরহাদ আলী

সংরক্ষিত ছবি

অপরাধ

বাড্ডায় আ. লীগ নেতা খুন তিন দিনেও মামলা হয়নি

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ১৯ জুন ২০১৮

রাজধানীতে দিনে-দুপুরে দুর্বৃত্তের গুলিতে খুন হয়েছেন বাড্ডা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা ফরহাদ আলী। তিন দিন আগে ঘটে যাওয়া এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় এখনো পরিবার বা পুলিশের পক্ষ থেকে কোনো মামলা হয়নি। এ হত্যাকাণ্ডে জড়িত সন্দেহে এখনো কেউ গ্রেফতারও হয়নি। স্থানীয় ডিশ ব্যবসার নিয়ন্ত্রণ, অটোরিকশা স্ট্যান্ডের চাঁদা ভাগাভাগিসহ বিভিন্ন কারণে এ হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হয়েছে বলে মনে করছে পুলিশ।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ঈদের আগের দিন বাড্ডা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফরহাদ আলী স্থানীয় বায়তুস সালাম জামে মসজিদে জুমার নামাজ পড়ে যাওয়ার সময় দুই দুর্বৃত্ত তাকে গুলি করে পালিয়ে যায়। গুলি তার বুকে ও পেটে লাগে। রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। মরদেহের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করেছেন বাড্ডা থানার এসআই শহীদুল ইসলাম। গতকাল মুঠোফোনে বাংলাদেশের খবরকে এই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, ফরহাদের ডান গাল, বাঁ চোখ বরাবর, মাথার ওপর বাঁ দিক এবং ঘাড়ের বাঁ দিকে মোট চারটি গুলির চিহ্ন পাওয়া গেছে।

খুনিদের গ্রেফতার সংক্রান্ত এক প্রশ্নের জবাবে বাড্ডা জোনের সহকারী কমিশনার মো. আশরাফুল করিম বলেন, হামলাকারী দু’জনই পেশাদার খুনি। ফরহাদকে হত্যা করে সিএনজিচালিত অটোরিকশায় পালিয়ে যাওয়ার সময় বাড্ডা-গুলশান লিংক রোডে পুলিশের তল্লাশি চৌকিতে বাধার শিকার হয় খুনিরা। পুলিশ তল্লাশি করতে গেলে তাদের একজন চারটি ফাঁকা গুলি ছুড়ে অটোরিকশায় করে আবারো পালিয়ে যায়। থানা পুলিশ সূত্র জানায়, ক্ষমতাসীন দলীয় একাধিক গ্রুপের আধিপত্য ও দ্বন্দ্বের জেরে এই হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হয়ে থাকতে পারে। হত্যাকাণ্ডের তিন দিন পেরিয়ে গেলেও মামলা হয়নি।

এ ব্যাপারে বাড্ডা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) নজরুল ইসলাম বলেন, নিহতের পরিবারের সঙ্গে আমাদের যোগাযোগ হচ্ছে। তারা মামলা করবেন বলে জানালেও এখনো থানায় কেউ আসেননি। এ ব্যাপারে বাড্ডা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কাজী ওয়াজেদ আলী ভিডিও ফুটেজ দেখে ২ আসামিকে চিহ্নিত করা হয়েছে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads