• বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮, ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৪
ads
দুদক ঘিরে ফের সক্রিয় প্রতারক চক্র

দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)

সংরক্ষিত ছবি

অপরাধ

দুদক ঘিরে ফের সক্রিয় প্রতারক চক্র

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮

দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) ঘিরে ফের সক্রিয় হয়ে উঠেছে প্রতারক চক্র। তারা নিজেদের কখনো সহকারী পরিচালক, উপ-পরিচালক, এমনকি পরিচালক পরিচয় দিচ্ছে। দুদকে মামলা হচ্ছে কিংবা সম্পদ বিবরণী চাওয়া হবে- এমন হুমকি দিয়ে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ বিভিন্ন ব্যক্তির কাছ থেকে হাতিয়ে নিচ্ছে অর্থ।

সম্প্রতি এ ধরনের কয়েকটি ঘটনা সংঘটিত হওয়ার পর সংস্থাটি নতুন করে সতর্কতা জারি করেছে। গতকাল সোমবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ সতর্কতা জারি করা হয়। দুদকের জনসংযোগ দফতর থেকে পাঠানো বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, দুর্নীতি দমন কমিশন নিজস্ব গোয়েন্দা তথ্য এবং বিভিন্ন ভুক্তভোগীর কাছ থেকে প্রাপ্ত তথ্যে অবগত হয়েছে, সিরাজুল হকসহ বিভিন্ন নামে কমিশনের কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে বিভিন্নজনের কাছ থেকে অর্থ হাতিয়ে নেওয়া হচ্ছে। সংঘবদ্ধ প্রতারক চক্রটি সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী, অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী, ব্যবসায়ী, বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত ব্যক্তিবর্গ, ব্যাংক-বীমায় কর্মরত ব্যক্তিসহ বিভিন্ন পেশায় নিয়োজিত ব্যক্তিদের কাছে তাদের নামে কমিশনে কল্পিত অভিযোগ রয়েছে বলে জানায়। ‘কমিশনের বিবেচনাধীন’ কোনো অভিযোগ হতে অব্যাহতি দেওয়ার কথা বলে টেলিফোনে অনৈতিক আর্থিক সুবিধা দাবি করা হচ্ছে। দুর্নীতি দমন কমিশন একটি সংবিধিবদ্ধ সংস্থা। এ সংস্থায় কোনো ব্যক্তির একক অভিপ্রায় অনুসারে অভিযোগ হতে অব্যাহতি পাওয়ার অথবা অভিযুক্ত হওয়ার কোনো আইনি সুযোগ নেই। কমিশন অনুসন্ধান বা তদন্ত সংক্রান্ত সব ধরনের যোগাযোগ টেলিফোন বা মোবাইল ফোন নিষিদ্ধ করেছে। কমিশনের এ সংক্রান্ত সব যোগাযোগ কেবল লিখিত পত্রের মাধ্যমেই করা হয়। টেলিফোন বা মোবাইল ফোনে অভিযুক্ত ব্যক্তিদের সঙ্গে যোগাযোগের কোনো প্রশাসনিক এবং আইনি সুযোগ নেই। কমিশন এরূপ প্রতারকদের অবৈধ কর্মকাণ্ড সম্পর্কে সবাইকে সতর্ক থাকার অনুরোধ জানাচ্ছে।

গত চার বছরে অর্ধডজন প্রতারক চক্রকে গ্রেফতার করেছে দুদক। জামিনে বেরিয়ে এসে আবারো তারা সক্রিয় হয়ে উঠেছে। তবে এ চক্রের সঙ্গে দুদকের কতিপয় অসাধু কর্মকর্তা-কর্মচারীর যোগসাজশ রয়েছে বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে।

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads