• বুধবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন ২০১৮

গফরগাঁওয়ে লাশের ময়না তদন্ত নিয়ে স্বজনদের ক্ষোভ

নিহত বদরুলের বাড়ীতে স্বজনরা

ছবি : বাংলাদেশের খবর

অপরাধ

গফরগাঁওয়ে লাশের ময়না তদন্ত নিয়ে স্বজনদের ক্ষোভ

  • গফরগাঁও (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ১৪ নভেম্বর ২০১৮

ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে স্ট্রোক করে মৃত ব্যক্তিকে নিয়ে নোংরা ষড়যন্ত্রে অংশ হিসেবে স্বজনদের অমতে লাশের ময়না তদন্ত ও লাশ কাটাছেড়া করায় পরিবারের লোকজন ও এলাকাবাসী ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। ঘটনার পর স্বজনরা থানায় কোনো অভিযোগ না করলেও পাগলা থানা পুলিশ বাদী হয়ে অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করে  লাশের ময়না তদন্ত করায়। ঘটনাটি ঘটেছে গত সোমবার উপজেলার তেরশ্রী গ্রামে। এদিকে বদরুলের মৃত্যুকে হত্যাকাণ্ড দেখিয়ে স্থানীয় রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে অপর একটি পক্ষ ফেইসবুক, অনলাইন পোর্টালে প্রচার ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে।

আজ বুধবার দুপুরে সরেজমিন নিহতের পরিবার ও এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা যায়, উপজেলার তেরশ্রী গ্রামের মৃত আব্দুল জব্বারের ছেলে বদরুল ইসলাম দুপুর ১টার দিকে বুকে ব্যথা অনুভব করায় ওষুধ আনতে তেরশ্রী থেকে ব্যাটারী চালিত অটোবাইকে কান্দিপাড়া বাজারের উদ্দেশ্যে  বাড়ি থেকে বের হয়। কান্দিপাড়া নতুন মসজিদের সামনে যাওয়ার পর তিনি স্ট্রোক করে জ্ঞান হারিয়ে পরে যান। এ সময় স্থানীয় ব্যবসায়ী মানিক মিয়া ও অটোচালক আব্দুল কুদ্দুস দ্রুত চিকিৎসার জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়ার পথে মাইজবাড়ি জান্নাতের মোড়ে বদরুল ইসলাম মারা যান। উল্লেখ্য বদরুল ইসলাম ইতিপূর্বে দুইবার স্ট্রোক করেছিলেন। এ মৃত্যুর ঘটনায় পরিবারের কোনো অভিযোগ না থাকলেও পাগলা থানা পুলিশ ময়নাতদন্তের জন্য লাশ বাড়ি থেকে নিয়ে যাওয়ার উদ্যোগ নেয়। নিহতের স্বজনরাসহ এলাকাবাসী লাশ নিতে বাধা দিলেও পুলিশ বাদী হয়ে অপমৃত্যু মামলা করে ময়না তন্তের জন্য জোর করে লাশ নিয়ে যায়। তবে পুলিশের অপমৃত্যু মামলাতেও অটো থেকে পরে বদরুলের মৃত্যু হয় বলে উল্লেখ করা হয়।

এ ঘটনায় নিহতের মা সাফিয়া খাতুন ক্ষোভের সঙ্গে জানান, ‘আমাদের অনুমতি ছাড়াই পুলিশ আমার ছেলের পোষ্টমর্টেম করেছে’। ইউস্থি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়্রম্যান নজরুল ইসলাম বলেন, ‘নিহত বদরুল ইসলাম হৃদরোগে মারা যায় । এর আগেও ২বার স্ট্রোক করেছিল। কিন্তু একটি মহল রাজনৈতিক ফয়দা নিতে এটি নিয়ে অপপ্রচার চালায়। নিহতের পরিবার ও এলাকাবাসী লাশের ময়না তদন্ত ছাড়া দাফন করতে চাইলে ও পুলিশের উর্ধধতন কতৃপক্ষ জোর পুর্বক ময়না তদন্ত করে’।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads