• বুধবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন ২০১৮

ঈশ্বরদীতে পুলিশ-ডাকাত সংঘর্ষ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপারসহ আহত ৭

সংগৃহীত ছবি

অপরাধ

ঈশ্বরদীতে পুলিশ-ডাকাত সংঘর্ষ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপারসহ আহত ৭

  • ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ১৯ নভেম্বর ২০১৮

ঈশ্বরদীর ভাড়ইমারীতে ডাকাত দলকে গ্রেফতার করতে গিয়ে তাদের ছোড়া ককটেলের আঘাতে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জহুরুল হকসহ পাঁচ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন।

রোববার দিবাগত রাত দেড়টায় ঈশ্বরদীর দাশুড়িয়া ইউনিয়নের ভাড়ইমারী-দাদপুর সড়কের মধ্যবর্তী স্থান চুড়িয়ালা ঘাট সংলগ্ন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ সময় পুলিশ গুলিবিদ্ধ দুই ডাকাতকে গ্রেফতার করেছেন। 

পুলিশ সূত্রে জানা, রোববার রাতে ১০ থেকে ১২ জনের ডাকাত দল ভাড়ইমারী এলাকায় ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে ঈশ্বরদী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জহুরুল হকের নেতৃত্বে পুলিশ অভিযান চালায়।  ঘটনাস্থলে পুলিশ পৌঁছালে ডাকাত দলের সদস্যরা ককটেল নিক্ষেপ করে। এসময় পুলিশ পাল্টা গুলি চালালে ডাকাত সদস্যরা পিছু হটে। পুলিশ ধাওয়া দিয়ে গুলিবিদ্ধ ডাকাত দলের দুই সদস্যকে গ্রেফতার করে।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন ঈশ্বরদীর  আওতাপাড়া গ্রামের মোজ্জামেল হক মল্লিকের ছেলে ফারুক হোসেন (২৩), চুয়াডাঙ্গা জেলার গোগাইল এলাকার ফজলু মন্ডলের ছেলে মফিজুল ইসলাম। আহত ডাকাত সদস্যদের পাবনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।  এসময় ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ ককটেলের খোসা, দেশীয় অস্ত্র চাইনিজ কুড়াল ও শাবল উদ্ধার করে।

এছাড়া ককটেলের আঘাতে আহত হয়েছেন ঈশ্বরদী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জহরুল হক, ঈশ্বরদী থানার এস আই ইব্রাহিম হোসেন, কন্সটেবল গৌতম রায়, মোজাম্মেল হক  ও শামিউল ইসলাম। আহত পুলিশ সদস্যরা ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে ঈশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বাহা উদ্দিন ফারুকী বলেন, গ্রেফতারকৃত ডাকাতরা আন্তঃজেলা ডাকাতদলের সদস্য। ফারুক হোসেন তিনটি মামলার পলাতক আসামী।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads