• শনিবার, ১৭ আগস্ট ২০১৯, ২ ভাদ্র ১৪২৫
ads
সাগরপথে মালয়েশিয়া, গ্রেপ্তার ৪৬ বাংলাদেশি

ছবি : সংগৃহীত

অপরাধ

সাগরপথে মালয়েশিয়া, গ্রেপ্তার ৪৬ বাংলাদেশি

  • ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত ০৫ আগস্ট ২০১৯

ফের সক্রিয় হয়ে উঠছে মানব পাচারকারী চক্র। চক্রের প্ররোচনায় পড়ে অবৈধভাবে সাগরপথে মালয়েশিয়া গিয়ে সে দেশের পুলিশের হাতে প্রতিনিয়তই আটক হচ্ছেন বাংলাদেশি শ্রমিকরা। গত এক মাসেই ৪৬ বাংলাদেশিকে আটক করেছে দেশটির পুলিশ। উভয় দেশের কঠোর অবস্থানের পরও সাগরপথে চলছে মানব পাচার।

গত শনিবার (৩ আগস্ট) ব্যাটালিয়ান-৪-এর একটি অভিযানে সেলাংগারের কামপুং তাংজুন সেপাং এলাকা থেকে ১৩ বাংলাদেশিকে আটক করা হয়। ব্যাটালিয়ন-৪-এর কমান্ডার জুলফেন্ডি সাংবাদিকদের জানান, আটক সবাই এ দেশে অবৈধভাবে প্রবেশ করে। এরপর তারা প্রাইভেট কারে করে গন্তব্য স্থানে যাওয়ার সময় সন্দেহ হলে ওই প্রাইভেট কার চেক করে ১৭ জনকে আটক করে পুলিশ। যার মধ্যে ১৩ জন বাংলাদেশি। বাকি ৪ জন স্থানীয়।

জানা গেছে, গত ৬ জুলাই অবৈধভাবে প্রবেশের দায়ে আটক হয় আরো ৩৩ বাংলাদেশি। একটি সূত্রে জানা গেছে, মালয়েশিয়া থেকে সবুজ সংকেতের মাধ্যমে বাংলাদেশ থেকে অবৈধ পথে মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশিদের নিয়ে আসছে মানব পাচারকারী চক্র। যার নেপথ্যে রয়েছে উভয় দেশের রাঘববোয়ালরা। জনপ্রতি তিন থেকে চার লাখ টাকা চুক্তির বিনিময়ে মালয়েশিয়ায় নিয়ে আসছে তাদের।

পৌঁছানোর পর টাকার বিনিময়ে মুক্তি দেওয়া হয় এ পথে আসা বাংলাদেশিদের। এ বিষয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক প্রবাসী ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, যত দিন এ চক্রের মূলোৎপাটন করা না হয়, তত দিন সাগরপথে লোক আসবেই। ঢিলেঢালা অবস্থানে থেকে এ পথ বন্ধ করা যাবে না। ওই প্রবাসী বলেন, আটক হওয়া বাংলাদেশিদের বাড়িতে যোগাযোগ করলেই বেরিয়ে আসবে কারা এই কলকাঠি নাড়ছে এবং কারা এই মানব পাচারের সঙ্গে জড়িত।

এদিকে দেশটিতে থাকা অবৈধ অভিবাসীদের সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা দিয়েছে দেশটির সরকার। ১ আগস্ট থেকে শুরু হয়েছে বিফোরজি নামের এ কর্মসূচি। ইতোমধ্যে বিভিন্ন দেশের অবৈধ অভিবাসীরা নিজ নিজ দেশের উদ্দেশে মালয়েশিয়া ছাড়তে শুরু করেছে। এ কর্মসূচির অধীনে প্রায় চার লাখ অবৈধ অভিবাসী দেশে ফিরে যাবে বলে জানিয়েছে দেশটির ইমিগ্রেশন বিভাগ।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads