• শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads
চাঁদা না দেওয়ায় উলঙ্গ করে ভিডিও ধারণ, লজ্জায় যুবকের আত্মহত্যা

প্রতীকী ছবি

অপরাধ

চাঁদা না দেওয়ায় উলঙ্গ করে ভিডিও ধারণ, লজ্জায় যুবকের আত্মহত্যা

  • শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ২১ আগস্ট ২০১৯

বেশ কয়েকদিন ধরেই জামাল উদ্দীনের কাছে টাকা (চাঁদা) দাবি করছিল স্থানীয় বেশ কয়েকজন। তিনি কৌশলে তাদের এড়িয়ে চলতেন। তবে ওদের কবল থেকে শেষ রক্ষা পাননি জামাল উদ্দনি। দাবি করা টাকা (চাঁদা) না পেয়ে জনাকীর্ণ স্থান থেকে জোর করে তুলে নিয়ে জামাল উদ্দীনকে বলাৎকারের চেষ্টা করে চিহিৃত কয়েকজন চাঁদাবাজ। পরে তা ভিডিও ধারন করা হয়। উলঙ্গ করে উল্লাস করে চাঁদাবাজরা। দাবি করা চাঁদা না দিলে ধারণ করা ভিডিও ফেসবুক ছড়িয়ে দেওয়ারও হুমকি দেয় তারা। লজ্জায় কাতরাতে থাকে জামাল উদ্দীন। বাড়ি ফিরে এ ঘটনা পরিবাকেও জানায় সে।

পরদিন লজ্জায়-ঘৃণায় গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে জামাল উদ্দীন। রোমহর্ষক এ ঘটনাটি ঘটে গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার তেলিহাটী ইউনিয়নের টেপিরবাড়ি গ্রামে।

পরে এ ঘটনায় নিহতে ছেলে মামলা দায়ের করেন। পুলিশ একজনকে গ্রেপ্তার করেছে।

খবর পেয়ে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে। নিহত জামাল উদ্দীন (৩৫)। তিনি ওই গ্রামের আহাদ আলীর ছেলে। জামাল উদ্দিন দীর্ঘদিন প্রবাসে ছিলেন।

স্বজনরা জানায়, প্রায় কয়েক মাস ধরে জামাল উদ্দীনের সঙ্গে তার স্ত্রীর সম্পর্ক ভালো যাচ্ছিল না। ফলে তার স্ত্রী একমাত্র ছেলে রাকিব হাসান হৃদয়কে নিয়ে কয়েক মাস ধরেই বাবার বাড়ি বসবাস করছিলেন। এতেও মানসিকভাবে অনেকটা ভেঙে পড়েছিলেন জামাল উদ্দীন।

তবে তার ছেলে রাকিব হাসান হৃদয় জানান, প্রতিবেশী পিন্টু, শাওন, সাদেক, সজল ও রনিসহ আরো কয়েকজন চিহিৃত চাঁদাবাজ তার বাবার কাছে বেশ কয়েকদিন ধরেই মোটা অঙ্কের টাকা (চাঁদা) দাবি করে আসছিল। দাবি করা চাঁদা না দেওয়ায় ওই চাঁদাবাজদল তাদের বাড়ির পাশে সড়ক থেকে গত রোববার তার বাবাকে তুলে নিয়ে যায়। পাশে শালবনের ভেতর নিয়ে সঙ্গে থাকা নগদ টাকা ও মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেয়। পরে তার বাবাকে উলঙ্গ করে উল্লাস করে চাঁদাবাজরা। একপর্যায়ে তারা তার বাবাকে বলাৎকারের চেষ্টা করে। আর ওই দৃশ্য তাঁর বাবারই মোবাইল ফোনে ধারণ করে চাঁদাবাজরা। একপর্যায়ে তারা দুই লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। দাবি করা চাঁদা না দিলে ধারণ করা ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে (ফেসবুক) ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেয়।

স্বজনরা জানান, চাঁদাবাজদের হাত থেকে ছাড়া পেয়ে বাড়ি ফিরে কান্নায় ভেঙে পড়ে জামাল। এরপর জানতে চাইলে স্বজনদের ঘটনাটি জানায় সে। ঘটনার পর থেকে ঘর থেকেই বের হননি। পরদিন গত সোমবার সকালে বসতঘরের বারান্দায় আড়ার সঙ্গে লুঙ্গিতে ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে। এ সময় বাড়ি ফাকা ছিল।

ছেলে রাকিব হাসান হৃদয় দাবি করেন, চাঁদাবাজদের ঘটানো ন্যক্কারজনক ঘটনায় লজ্জায়-ঘৃণায় আত্মহত্যার পথ বেছে নেয় তার অসহায় বাবা।

ওই ঘটনায় গত সোমবার রাতে রাকিব হাসান হৃদয় বাদী হয়ে পাঁচজনকে আসামি করে শ্রীপুর থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

গত সোমবার রাতেই ঘটনায় জড়িত সন্দেহে মনির নামে একজনকে পুলিশ আটক করেছে।

শ্রীপুর থানার এসআই নয়ন ভূঁইয়া জানান, ঘটনার ভিডিও ধারণ করা হয়েছে জামাল উদ্দিনের মোবাইল ফোনেই। ওই মোবাইল ফোনটি আসামিদের হাতে রয়েছে। ফলে পুলিশের একাধিকদল আসামিদের গ্রেপ্তারে অভিযান চালাচ্ছে। আসামিরা গ্রেপ্তার হলে মোবাইলফোনটি উদ্ধার করা সম্ভব হবে। আসামি গ্রেপ্তার ও মোবাইলফোন উদ্ধার করা গেলে প্রকৃত ঘটনা জানা সম্ভব হবে। এ ঘটনায় একজন গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads