• বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ১৩ কার্তিক ১৪২৭
সিলেটে গণধর্ষণ: সন্দেহভাজন রাজন ও আইনুল গ্রেপ্তার

সংগৃহীত ছবি

অপরাধ

সিলেটে গণধর্ষণ: সন্দেহভাজন রাজন ও আইনুল গ্রেপ্তার

  • অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশিত ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০

সিলেটের এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে গৃহবধূকে দলবেঁধে ধর্ষণের ঘটনায় সন্দেহভাজন আসামি ছাত্রলীগ কর্মী রাজন ও তার সহযোগী আইনুলকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।  

আজ সোমবার (২৮শে সেপ্টেম্বর) রাত ১টার দিকে সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জের কচুয়া নয়াটিলা এলাকা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করে র‍্যাব-৯ এর একটি দল। এছাড়া আইনুল নামে আরও একজনকে গ্রেপ্তারের কথা জানায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনী। এ নিয়ে ৯ আসামির মধ্যে ছয়জনকে গ্রেপ্তার করা হলো।

র‌্যাব ও ডিবি সূত্রে জানায়, এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে স্বামীকে বেঁধে রেখে স্ত্রীকে গণধর্ষণ মামলার রাজন নামের আরেক আসামি ফেঞ্জুগঞ্জ উপজেলার কচুয়া নয়াটিলা এলাকা তার এক আত্মীয়ের বাড়িতে আত্মগোপনে রয়েছেন, এমন খবরে অভিযান চালানো হয়। পরে রাত ১টার দিকে রাজন ও তার সহযোগী আইনুলকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারের পর তাকে সিলেট নিয়ে আসা হয়েছে।

এর আগে রাত দশটার দিকে হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ থেকে গ্রেপ্তার করা হয় মামলার ৫ নম্বর আসামি রবিউল হাসানকে। এছাড়া রবিবার হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ থেকে আরেক আসামি মাহবুবুর রহমান রনি ও মাধবপুর থেকে চার নম্বর আসামি অর্জুন লস্করকে গ্রেপ্তার করা হয়। রবিবার সুনামগঞ্জের ছাতক থেকে গ্রেপ্তার করা হয় মামলার প্রধান আসামি সাইফুর রহমানকে।

গত শুক্রবার বিকেলে স্বামীর সঙ্গে এমসি কলেজে বেড়াতে গিয়েছিলেন এক গৃহবধূ। সন্ধ্যায় তাদের কলেজ থেকে ছাত্রাবাসে ধরে নিয়ে যায় ছাত্রলীগের ৬-৭ জন নেতাকর্মী। এরপর দুইজনকে মারধর করা হয়। একই সঙ্গে স্বামীকে আটকে রেখে তার সামনে স্ত্রীকে গণধর্ষণ করে তারা।

খবর পেয়ে রাতে ছাত্রাবাস থেকে ওই দম্পতিকে উদ্ধার করে পুলিশ। পরে ধর্ষণের শিকার হওয়া নারীকে ওসমানী হাসপাতালের ওসিসি সেন্টারে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় শনিবার সকালে ধর্ষণের শিকার নারীর স্বামী বাদী হয়ে শাহপরান থানায় মামলা করেন।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads