• সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৪
ads
পাল্টা জবাবে যুক্তরাষ্ট্রের পণ্যে শুল্ক বাড়াল তুরস্ক

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান

ছবি: সংগৃহীত

অর্থ ও বাণিজ্য

পাল্টা জবাবে যুক্তরাষ্ট্রের পণ্যে শুল্ক বাড়াল তুরস্ক

  • ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত ১৬ আগস্ট ২০১৮

পাল্টা প্রতিক্রিয়ায় যুক্তরাষ্ট্র থেকে পণ্য আমদানিতে শুল্ক দ্বিগুণ করেছে তুরস্ক। গতকাল দেশটির প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান একটি আদেশপত্র সই করেছেন। এতে গাড়ি আমদানিতে শুল্ক বাড়িয়ে ১২০, অ্যালকোহলে ১৪০ ও তামাক পাতায় ৬০ শতাংশ করা হয়েছে। বিবিসি অনলাইনের এক প্রতিবেদন সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের ধর্মযাজককে মুক্তি দিতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে তুরস্ক। এর প্রতিক্রিয়ায় গত সপ্তাহে তুরস্কের পণ্য আমদানিতে শুল্কের হার দ্বিগুণ বাড়ায় বিশ্বের শীর্ষ অর্থনীতি। এতে তুর্কি মুদ্রা লিরার দাম ডলারের বিপরীতে গত শুক্রবার কমে ২০ শতাংশের বেশি। তুরস্কের এ শুল্ক বাড়ানোর পদক্ষেপকে যুক্তরাষ্ট্র প্রশাসনের সচেতন আক্রমণের জবাব বলে জানিয়েছে দেশটির ভাইস প্রেসিডেন্ট ফুয়াত ওকতে। গাড়ি, অ্যালকোহল, তামাক পাতার পাশাপাশি প্রসাধনী সামগ্রী, চাল ও কয়লা আমদানিতেও শুল্ক বাড়ানো হয়েছে।

গত সোমবার রেকর্ড দরপতন হয় লিরার। এতে অনেক ক্ষেত্রেই লোকসান হয়েছে তুরস্কের। জানুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত সময়ে ডলারের বিপরীতে লিরার দর কমেছে ৩৪ শতাংশের বেশি। এতে বেশি দামে নিত্যপণ্য কিনতে হচ্ছে সে দেশের ভোক্তাদের। প্রেসিডেন্ট এরদোগান গত মঙ্গলবার বলেছেন, অর্থনীতি স্থিতিশীল করতে পদক্ষেপ নিচ্ছে তুরস্ক। বৈদেশিক মুদ্রা বিনিয়োগের মাধ্যমে এ প্রক্রিয়া ‘শত্রুর হাতে’ তারা ছেড়ে দিতে চান না।

ধর্মযাজককে হাতিয়ার করে তুরস্ককে হাঁটুর কাছে আনতে চায় যুক্তরাষ্ট্র, অভিযোগ এরদোগানের। যুক্তরাষ্ট্রের ধর্মযাজক অ্যান্ড্রু ব্রুনসন দীর্ঘদিন ধরেই তুরস্কে বসবাস করছেন। সেখানে ইজমির রিসারেকশন চার্চ পরিচালনা করেন তিনি। তুরস্কে নানা জটিলতায় অবৈধভাবে আটক হয়েছেন অ্যান্ড্রু।

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads