• শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads
অনিয়মের জরিমানা মওকুফেও অনিয়ম

ফিনিক্স ইনস্যুরেন্সের লোগো

ফাইল ছবি

অর্থ ও বাণিজ্য

অনিয়মের জরিমানা মওকুফেও অনিয়ম

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ০৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯

আইন লঙ্ঘন করে বাকিতে পলিসি ইস্যু করে ফিনিক্স ইনস্যুরেন্স। এরকম ১৮টি অপরাধ প্রমাণিত হওয়ায় ফিনিক্স ইনস্যুরেন্সকে ৬৯ লাখ টাকা জরিমানা করে বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ (আইডিআরএ)। ঘটনা ২০১৫ সালের। অনিয়মের জন্য করা আইডিআরএ’র আগের কমিটির ধার্য করা মোট জরিমানার মধ্যে ৪৪ লাখ ৪১ হাজার টাকা মওকুফ করে দিয়েছে সংস্থাটির বর্তমান কমিটি। এ জরিমানা মওকুফের ক্ষেত্রেও করা হয়েছে অনিয়ম।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জনা গেছে, ফিনিক্স ইন্স্যুরেন্সের খুলনা, নিউমার্কেট ও কারওয়ান বাজার শাখা ২০১৫ সালে পরিদর্শন করে আইডিআরএ। পরিদর্শন প্রতিবেদনে ‘বাকি ব্যবসার’ অভিযোগ তোলা হয়। পরে এর ওপর ২০১৫ সালের ১৪ জুন শুনানি করে নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ। শুনানিতে বাকিতে ব্যবসা প্রমাণিত হওয়ায় কোম্পানি, মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ও শাখা ব্যবস্থাপককে মোট ৬৯ লাখ ৪১ হাজার ৫০০ টাকা জরিমানা করা হয়।

এ জরিমানা পরিশোধের নির্দেশ দিয়ে ফিনিক্স ইন্সু্যুরেন্সকে তিন দফায় চিঠি দেয় আইডিআরএ। এর মধ্যে প্রথম চিঠি দেয় ২০১৫ সালের ৩ ডিসেম্বর। এরপর ২০১৬ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি জরিমানা মওকুফের জন্য আইডিআরএ’র কাছে আবেদন করে কোম্পানিটি।

তবে জরিমানা মওকুফ করা সম্ভব না জানিয়ে ওই আবেদন নাকচ করে দেয় নিয়ন্ত্রক সংস্থা। একই সঙ্গে বিধি মোতাবেক ফি দিয়ে জরিমানা মওকুফের জন্য আবেদন করার পরামর্শ দেওয়া হয়। এ সংক্রান্ত চিঠি দেওয়া হয় ২০১৬ সালের ১৩ জুন।

তবে আইডিআরএ’র ওই পরামর্শ ও নির্দেশনার কোনো তোয়াক্কা না করে নিশ্চুপ থাকে ফিনিক্স ইন্স্যুরেন্স। ২০১৮ সালের ২২ জানুয়ারি কোম্পানিটিকে চিঠি দিয়ে আবারো জরিমানা পরিশোধের নির্দেশ দেয় আইডিআরএ।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, ২০১৮ সালের জানুয়ারিতে সর্বশেষ তাগাদাপত্র দেওয়া হলে ওই বছরের ১০ ফেব্রুয়ারি রিভিউয়ের জন্য আবেদন করে ফিনিক্স ইন্সুু্যুরেন্স।

অথচ আইন অনুসারে আইডিআরএ’র আদেশের ৪৫ দিনের মধ্যে রিভিউ করতে হয়। অর্থাৎ ২০১৬ সালের ১৩ জুনের পর ৪৫ দিন পার হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে কোম্পানিটির জরিমানা রিভিউ করার মেয়াদ শেষ হয়ে যায়।

এ বিষয়ে আইডিআরএ সদস্য বোরহান উদ্দীন আহমেদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে ‘ব্যস্ততা দেখিয়ে’ তিনি কোনো কথা বলতে রাজি হননি।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads