• বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads

আনন্দ বিনোদন

পুরস্কার কেলেঙ্কারি!

  • বিনোদন প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ১৮ এপ্রিল ২০১৮

‘জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ২০১৬’ নিয়ে ঘটে গেল বড় ধরনের কেলেঙ্কারি। শ্রেষ্ঠ নৃত্য পরিচালকের পুরস্কার নিয়ে সম্প্রতি বিস্ফোরক তথ্য দেন নৃত্য পরিচালক মোহাম্মদ হাবিব। গণমাধ্যমকে তিনি জানান, ‘নিয়তি’ ছবিতে তিনি কাজই করেননি, তারপরও এই ছবির জন্য তিনি জাতীয় পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন। এতে তিনি বিস্মিত। আর কীভাবে তার নাম ছবির সঙ্গে যুক্ত হয়েছে, সেটাও তিনি জানেন না।

বিষয়টি নিয়ে কয়েক দিন ধরেই আলোচনা চলছিল চলচ্চিত্রপাড়ায়। পরে হাবিব নিজেই স্বীকার করেন, তিনি পুরস্কারপ্রাপ্ত ছবিটিতে কাজই করেননি। খবর প্রকাশের পর পরই সংশ্লিষ্ট মহলে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। অনেকেই সত্য স্বীকারের জন্য ধন্যবাদ জানান হাবিবকে। ‘নিয়তি’ ছবির পরিচালক জাকির হোসেন রাজুও তাকে সাধুবাদ জানান।

জাকির হোসেন রাজু বলেন, ‘কোরিওগ্রাফার হাবিব বক্তব্য দিয়েছেন, তিনি এই ছবিতে কাজ করেননি। আমি হাবিবকে সত্য স্বীকার করার জন্য সাধুবাদ জানাই।’

কাজ না করলেও কীভাবে ‘জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ২০১৬’-এর জন্য হাবিবের নাম অন্তর্ভুক্ত হলো, জানতে চাইলে পরিচালক রাজু বলেন, ‘আমি আসলে বলতে পারব না কীভাবে তার নাম জমা দেওয়া হয়েছে। আসলে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের জন্য যখন ছবি নমিনেশন পায়, তখন প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান থেকে নাম জমা দেওয়া হয়। সে ক্ষেত্রে আমার মনে হয়, যিনি নামগুলো লিখে জমা দিয়েছেন, তিনি ভুল করে হাবিবের নাম দিয়ে ফেলেছেন। আসলে নাম জমা দেওয়ার সময় যদি পরিচালকের সঙ্গে কথা বলে নিতেন, তাহলে এই ভুল হতো না।’

রাজু আরো বলেন, ‘ছবির টাইটেলে যদি হাবিবের নাম থাকে তাহলে এই পুরস্কার নেওয়াটা আইনত তার জন্য অবৈধ হবে না। বাকিটা তার ব্যক্তিগত ব্যাপার।’

‘নিয়তি’ ছবির প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান জাজ মাল্টিমিডিয়া। তাদের অফিসিয়াল ইউটিউব চ্যানেলে ‘ঢাকাই শাড়ি’ শিরোনামের একটা গানের কোরিওগ্রাফার হিসেবে হাবিবের নাম রয়েছে। কিন্তু হাবিব বলছেন এ ছবিতে তিনি কোনো কাজই করেননি। এ ব্যাপারে জাজ মাল্টিমিডিয়ার চেয়ারম্যান আবদুল আজিজ বলেন, ‘হাবিব এই ছবিতে কোরিওগ্রাফার হিসেবে কাজ করেছেন। তাই তার নাম জমা দেওয়া হয়েছে। এখন কেন এ কথা বলছেন তিনি, তা জানি না।’

যেভাবেই হোক, ঘাপলাটা জাজ মাল্টিমিডিয়ার মাধ্যমে হয়েছে বলে সবাই নিশ্চিত। অনেকে এই ঘটনার সঙ্গে যৌথ প্রযোজনার ছবি নির্মাণের নীতিহীনতার যোগসূত্র খুঁজছেন। তাদের দাবি, ভারতীয় ছবিকে যৌথ প্রযোজনার নামে হালাল করার উদ্দেশ্যে জাজ মাল্টিমিডিয়া কোরিওগ্রাফার হিসেবে হাবিবের নাম দিয়ে দিয়েছে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads