• রবিবার, ২৫ আগস্ট ২০১৯, ১০ ভাদ্র ১৪২৫
ads

‘শপলিফটার্স’ ছবির পরিচালক হিরোকাজু কোর-ইদার হাতে স্বর্ণপাম তুলে দেন কেট ব্লানচেট

ছবি- ফেস্টিভ্যাল কানস ডটকম

আনন্দ বিনোদন

শেষ হলো কান চলচ্চিত্র উৎসব

স্বর্ণপাম জিতল ‘শপলিফটার্স’

  • সোহেল অটল
  • প্রকাশিত ২১ মে ২০১৮

অবসান হলো দীর্ঘ অপেক্ষার। পর্দা নামল বিশ্ব চলচ্চিত্রের জমকালো ও মর্যাদাপূর্ণ ‘কান চলচ্চিত্র উৎসব’-এর ৭১তম আসরের। এবার স্বর্ণপাম জিতে নিয়েছে ‘শপলিফটার্স’ ছবিটি। এটি পরিচালনা করেছেন জাপানি পরিচালক হিরোকাজু। মূল প্রতিযোগিতা বিভাগে থাকা বাকি ২০টি ছবির সঙ্গে লড়াই করেছে ছবিটি।

মূল প্রতিযোগিতা ফিচার ফিল্মস বিভাগে সেরা পরিচালকের পুরস্কার পান পোল্যান্ডের পাওয়েল পাউলোকস্কি। সেরা অভিনেতার পুরস্কার জিতে নেন ইতালির মার্সেলো ফন্তে। সেরা অভিনেত্রী হিসেবে শেষ হাসি হাসেন সামাল ইয়েসলিমোভা।

শনিবার বাংলাদেশ সময় রাত সোয়া ১১টা থেকে শুরু হয় সমাপনী অনুষ্ঠান। ফ্রান্সের কান শহরের পালে দো ফেস্টিভ্যাল ভবনের গ্র্যান্ড থিয়েটার লুমিয়েরে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেওয়া হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন প্রতিযোগিতা বিভাগের প্রধান জুরি অভিনেত্রী কেট ব্লানচেটসহ ৯ জন বিচারক।

শপলিফটার্স

পারিবারিক গল্পের এ ছবিটির জাপানি পরিচালক হিরোকাজু কোর-ইদা নিজেই চিত্রনাট্য লিখেছেন, সম্পাদনা করেছেন। ছবিতে একটি নিম্ন আয়ের পরিবারের গল্প দেখানো হয়েছে। ওসামু সিবাতা ও তার স্ত্রী নবুও- দুজনই স্বল্প বেতনের চাকরি করেন। অনটনের সঙ্গে তাদের নিত্যদিন যুদ্ধ করতে হয়ে। এরই মধ্যে ওসামু রাস্তায় এক অভিভাবকহীন শিশুকে কুড়িয়ে পায়। তাকে নিয়ে আসেন বাড়িতে। লালন-পালন করতে থাকেন। শিশু উরিকে যখন নিজের সন্তান ভাবতে শুরু করেন তিনি, তখনই টোকিও পুলিশ তার নিখোঁজ বার্তা প্রচার শুরু করে।

ছবিটিতে অভিনয় করেছেন লিলি ফ্রাঙ্কি, সাকুরা আন্দো, মায়ু মাতসুকা প্রমুখ।

পাওয়েল পাউলোকস্কি

কান চলচ্চিত্র উৎসবের ৭১তম আসরে সেরা পরিচালক হয়েছেন পোল্যান্ডের পাওয়েল পাউলোকস্কি। অস্কারজয়ী পোলিশ এ নির্মাতা এবারই প্রথম কানের মূল প্রতিযোগিতায় স্থান পেলেন। তার ‘কোল্ড ওয়ার’-এর গল্প পঞ্চাশের দশকের প্রেক্ষাপটে স্টালিন যুগের পোল্যান্ডে এক জোড়া মানব-মানবীর প্রেমকে ঘিরে।

পাওয়েল এর আগে ‘দ্য সামার অব লাভ’ (২০০৪), ‘দ্য ওম্যান ইন দ্য ফিফথ’ (২০১১), ‘ইডা’ (২০১৩) নির্মাণ করে সমালোচকদের প্রশংসা কুড়ান। এ বছর ‘কোল্ড ওয়ার’ নির্মাণের পর অনেকেই ধারণা করেছিলেন কানে-এও ছবিটি প্রশংসিত হবে। শেষ পর্যন্ত সেরা পরিচালকের পুরস্কারটিই জিতে নেন তিনি।

মার্সেলো ফন্তে

আসরের সেরা অভিনেতার পুরস্কার জেতেন ইতালির মার্সেলো ফন্তে। মাত্তিও গারোন পরিচালিত ‘ডগম্যান’ ছবিতে দুর্দান্ত অভিনয়ের সুবাদে এ স্বীকৃতি দেওয়া হয় তাকে। তার হাতে পুরস্কার তুলে দেন ইতালিয়ান অভিনেতা-নির্মাতা রবার্তো বেনিনি ও বুরুন্ডির গায়িকা খাজা নিন।

আশির দশকে ইতালির রোমের প্রেক্ষাপটে ‘ডগম্যান’ ছবির গল্প কুকুরের গ্রুমার মার্সেলোকে ঘিরে। লোকটা শান্তশিষ্ট ও ভদ্রগোছের। কিন্তু জেল থেকে ছাড়া পাওয়ার পর তার সম্পর্কে প্রতিবেশীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে দেওয়া হয়। সাবেক বক্সার সিমোনসিনোর সঙ্গে বিপজ্জনক সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন তিনি। অপ্রত্যাশিত প্রতিহিংসা তৈরি হয় তার মধ্যে। মার্সেলো চরিত্রেই অভিনয় করেছেন মার্সেলো ফন্তে।

সামাল ইয়েসলিমোভা

কাজাখস্তানের অভিনেত্রী সামাল ইয়েসলিমোভা সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কার জিতে নেন ‘আইকা’ ছবিতে অভিনয়ের সুবাদে। ছবিতে একজন বেকার সিঙ্গেল মাদারের ভূমিকায় অভিনয় করেছেন ৩৩ বছর বয়সের সামাল। মস্কোর প্রেক্ষাপটে নির্মিত ছবিতে তাকে জীবনের জন্য কঠিন সংগ্রাম করতে দেখা যায়।

সামাল ইয়েসলিমোভা এর আগে ২০০৮ সালে মুক্তি পাওয়া ‘তুলপান’ ছবিতে অভিনয় করে আলোচনায় আসেন।

৭১তম আসরে ‘ফিচার ফিল্মস’ বিভাগে সেরা যারা—

গ্রান্ড প্রিক্স : ‘ব্ল্যাকক্ল্যান্সম্যান’ ছবির জন্য পুরস্কার জিতেছেন যুক্তরাষ্ট্রের পরিচালক স্পাইক লি।

সেরা পরিচালক : পোল্যান্ডের ‘পাওয়েল পাউলোকস্কি’। তার পরিচালিত ছবি ‘কোল্ড ওয়ার’।

সেরা অভিনেতা : ‘ডগম্যান’ ছবিতে অভিনয় করে সেরা অভিনেতা নির্বাচিত হয়েছেন ইতালির মার্সেলো ফন্তে। ছবিটি পরিচালনা করেছেন মাত্তিও গারোন।

সেরা অভিনেত্রী : ‘আইকা’ ছবিতে অভিনয় করে সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কার ঘরে নিয়েছেন কাজাখস্তানের সামাল ইয়েসলিমোভা।

সেরা চিত্রনাট্য : পুরস্কার জিতেছেন ইরানের গৃহবন্দি নির্মাতা জাফর পানাহি ‘থ্রি ফেসেস’ ছবির জন্য।

জুরি পুরস্কার : লেবাননের নাদিন লাবাকি পেয়েছেন জুরি পুরস্কার ‘ক্যাপারনৌম’ ছবির জন্য।

স্পেশাল পাম ডি’অর : ফ্রান্সের নিউওয়েভ চলচ্চিত্রের অন্যতম নির্মাতা জ্যাঁ লুক গদার এ বছর স্পেশাল পাম ডি’অর জিতে নিয়েছেন তার পরিচালিত ‘দি ইমেজ বুক’ ছবির জন্য।

তথ্যসূত্র : ফেস্টিভ্যাল কানস ডটকম, উইকিপিডিয়া, আইএমডিবি

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads