• বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮, ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৪
ads
মধ্যবর্তিনীতে আঁখি

ধারাবাহিকটির একটি কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছেন শারমিন আঁখি

সংরক্ষিত ছবি

আনন্দ বিনোদন

মধ্যবর্তিনীতে আঁখি

  • বিনোদন প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ১৪ জুলাই ২০১৮

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ধ্রুপদী গল্পে অনুপ্রাণিত হয়ে নির্মিত হয়েছে নতুন ধারাবাহিক ‘মধ্যবর্তিনী’। আহমেদ খান হীরকের সংলাপ ও চিত্রনাট্যে নাটকটি পরিচালনা করেছেন রাজু খান। ধারাবাহিকটির প্রচার শুরু হবে আজ থেকে দীপ্ত টিভিতে। ৭৫ পর্বের এ ধারাবাহিকটি সপ্তাহে প্রতি শনিবার থেকে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টায় প্রচারিত হবে।

ধারাবাহিকটির একটি কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছেন শারমিন আঁখি। তিনি ছাড়াও এতে আরো অভিনয় করেছেন সোহানা সাবা, আনিসুর রহমান মিলন, ডলি জহুর, শতাব্দী ওয়াদুদ, কল্যাণ কোরাইয়া, নাবিলাসহ আরো অনেকে।

আঁখি জানান, গল্পের প্রধান চরিত্র তিনটি। নিবারণ, হরসুন্দরী ও শৈলবালা। তাদের বয়স, জীবন দর্শন, উপলব্ধি প্রকাশের ভিন্নতা পৃথক করেছে প্রত্যেককে। তাই আলাদা দৃষ্টিকোণ থেকে চরিত্রগুলোর যেমন বৈচিত্র্য খুঁজে পাওয়া যায় তেমনি তারা হয়ে ওঠে সমকালীন। ‘মধ্যবর্তিনী’ গল্পের প্রধান তিনটি চরিত্রকে ইমরান, শাম্মী ও মৌ রূপে পর্দায় দেখতে পাবে দর্শক।

গল্পে দেখা যাবে, ইমরান ও শাম্মি সুখী দম্পতি। কিন্তু সন্তান না থাকায় তাদের পরিবারের একটি শূন্যতা দেখা যায়। শাম্মি হঠাৎ অনুভব করে সন্তান ধারণের সামর্থ্য তার নেই। তাই সে ইমরানকে আরেকটি বিয়ে করার প্রস্তাব দেয়। ইমরান এ প্রস্তাবে অপারগতা প্রকাশ করে। কিন্তু পরে শাম্মির তাড়ায় সে কিশোরী মৌকে বিয়ে করে ঘরে তোলে। ঘটনাক্রমে ইমরানকে কেন্দ্র করে মৌ এক প্রতিযোগিতায় নামে শাম্মির বিরুদ্ধে। ধীরে ধীরে ইমরান ও তার বাড়ির ওপর কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠা করে ফেলতে সক্ষম হয় মৌ। এক পর্যায়ে ইমরান আর তার পরিবারের হাল ধরতে এক নতুন লড়াইয়ে নামতে হয় শাম্মিকে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads