• সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads
ডাকাতের বউ

নুসরাত ইমরোজ তিশা

সংগৃহীত ছবি

আনন্দ বিনোদন

ডাকাতের বউ

  • বিনোদন প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ২৬ আগস্ট ২০১৮

ঈদ উপলক্ষে নির্মিত হয়েছে বিশেষ টেলিফিল্ম ‘ডাকাতের বউ’। মেজবাহ উদ্দীন সুমনের রচনায় টেলিফিল্মটি পরিচালনা করেছেন আবু হায়াত মাহমুদ। টেলিফিল্মটির বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন আফরান নিশো, নুসরাত ইমরোজ তিশা, সবুজ প্রমুখ। আজ রাত ১১টা ৪৫ মিনিটে আরটিভিতে প্রচার হবে টেলিফিল্মটি।

গল্পে দেখা যাবে, মুকুন্দপুরের ডাকসাইটে ডাকাত আজরত ডাকাইত। পুলিশ প্রশাসন থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষ প্রত্যেকের ঘুম হারাম করে দিয়েছে এই আজরত। তাকে ধরতে নানা রকম ফাঁদ পাতে। কিন্তু সেই ফাঁদে সে কখনোই ধরা দেয় না। সিঁথি নামের এতিম মেয়ে গ্রাম সম্পর্কের আক্কু ভাইয়ের হাত ধরে ঢাকায় যাচ্ছিল গার্মেন্টে কাজের আশায়। তাদের সেই বাসে ডাকাত পড়ে। আজরত ডাকাইত। তার সেকেন্ড-ইন কমান্ড কালামের হাতে থাকে বাসের নিয়ন্ত্রণ। আজরতরা নিরাপদে সরে পড়ে কালামকে জানায়। কালামও সরে আসতে থাকে। কিন্তু সেই সময় হঠাৎ করেই তার চোখে পড়ে যায় সিঁথিকে। সিঁথিকে তার ভালো লেগে যায়। কালাম সিঁথিকে অপহরণ করে নিয়ে আসে। কিন্তু আজরতের ভয়ে লুকিয়ে অন্য জায়গায় রেখে দেয়। সিঁথি তাকে ছেড়ে দেওয়ার জন্য অনুনয় বিনয় করে। কিন্তু তাকে ছাড়ে না কালাম। এ দিকে বিষয়টা জানাজানি হয়ে যায়। একটি মেয়েকে তুলে নিয়ে এসেছে কালাম। আজরত রাগে ফেটে পড়ে।

এ দিকে টানা বাস ডাকাতি হওয়ার কারণে প্রশাসন নড়েচড়ে বসেছে। পুলিশি তৎপরতাও প্রচণ্ড। কাজেই কয়েকটা দিন চুপচাপ থাকাই ভালো। ডাকাতের দল শীতনিদ্রা দিতে থাকে। এ দিকে সিঁথি আজরতের কাছে তাকে ছেড়ে দেওয়ার জন্য অনুনয় বিনয় করতে থাকে। তার অনুনয় বিনয়ে আজরতের মন গলে যায়।

কয়েকদিন পরে সে একজন সদস্যকে দিয়ে মেয়েটিকে চোখ বেঁধে সড়কে তুলে দিয়ে আসতে বলে। সিঁথি চলে যায়। কিন্তু না। ঘটে অন্য ঘটনা। ডাকাত বাহিনীর সঙ্গে জড়িয়ে পড়ে সিঁথি।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads