• শনিবার, ২৩ নভেম্বর ২০১৯, ৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
ads
ইশতেহারে ব্যাংক ভাবনা

ছবি : সংগৃহীত

ফিচার

ইশতেহারে ব্যাংক ভাবনা

  • প্রকাশিত ২৩ ডিসেম্বর ২০১৮

আওয়ামী লীগ

আওয়ামী লীগের ইশতেহারে ব্যাংকিং খাতের জন্য দেউলিয়া আইন বাস্তবায়ন করার কথা উল্লেখ করেছে। দলটি বলছে, ব্যাংকিং ও আর্থিক খাতের উন্নয়নের লক্ষ্যে বাণিজ্যিক ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের ওপর বাংলাদেশ ব্যাংকের চলমান তদারকি জোরালো করা হবে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নিয়ন্ত্রণ অধিকতর কার্যকর ও শক্তিশালী করতে পদক্ষেপ হাতে নেবে তারা। ঋণসহ ব্যাংক জালিয়াতি কঠোর হস্তে দমন এবং সংশ্লিষ্ট ব্যাংক কর্মকর্তা-কর্মচারী, ঋণ গ্রাহক ও দোষীদের আইনের আওতায় এনে শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে। খেলাপি ঋণের পরিমাণ কমিয়ে আনা হবে  দেউলিয়া আইন বাস্তবায়নে টেকসই ও কার্যকর পদ্ধতি নির্ণয় করা হবে।

বাজার-ব্যবস্থাকে ক্ষতিগ্রস্ত না করে কেন্দ্রীয় ব্যাংক বিচক্ষণতার সঙ্গে নির্দিষ্ট পদ্ধতি ব্যবহার করে সুদের হার নিয়ন্ত্রণে রাখবে জানিয়ে দলটি বলছে, ঋণ অনুমোদন ও অর্থ ছাড়ে দক্ষতা এবং গ্রাহকের প্রতি ব্যাংকের দায়বদ্ধতা পরিবীক্ষণের জন্য কেন্দ্রীয় ব্যাংক পদক্ষেপ নেবে।

বিএনপি

দেশের বড় রাজনৈতিক দল বিএনপি ক্ষমতায় এলে আর্থিক খাতে রাজনৈতিক হস্তক্ষেপ করবে না। ব্যাংকিং খাতে যোগ্য ও দক্ষদের নিয়োগ দেওয়া হবে। বিএনপি তার প্রতিশ্রুতিতে জানিয়েছে, ব্যাংকিং খাতে ক্ষমতাসীন দল হস্তক্ষেপ করছে। রাজনৈতিক এমন হস্তক্ষেপে এই খাতে শৃঙ্খলার ঘাটতি তৈরি হয়েছে। তবে বিএনপি এটি করবে না। ব্যাংকসহ আর্থিক খাতে রাজনৈতিক হস্তক্ষেপ বন্ধ করা হবে। অর্থমন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ বিলুপ্ত করে সরকারি-বেসরকারি সব ব্যাংকের তদারকির ভার দেওয়া হবে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের হাতে।

রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোর সুশাসনের দিকে বিএনপির নজর থাকবে ক্ষমতা পেলে। দলটি বলছে, রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোর পরিচালনা পর্ষদে সৎ, দক্ষ ও যোগ্য লোকদের নিয়োগ দেওয়া হবে। দুর্নীতি ও সব ধরনের অনিয়ম ঠেকাতে কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়া হবে। পুঁজিবাজারে উন্নয়নে বাংলাদেশ সিকিউরিটি অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন-বিএসইসিকে সক্রিয় ভূমিকা পালনে উদ্যোগ থাকবে তাদের মেয়াদে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads