• সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ৬ আশ্বিন ১৪২৭
ads

ফিচার

ইথিওপিয়ার ডলোল - যেন এক মৃত্যুপুরী

  • প্রকাশিত ১১ জানুয়ারি ২০২০

সেরাজুম মনিরা

 

বিজ্ঞানীরা গবেষণায় পৃথিবীতে এমন এক জায়গা খুঁজে পেয়েছেন যেখানে কেউ বেঁচে থাকতে পারে না। ইথিওপিয়ার ডলোল নামক এলাকার পানিতে মিশে থাকা প্রচুর পরিমাণের ক্ষার ও উত্তপ্ততার জন্য সেখানে বেঁচে থাকার কোনো সম্ভাবনা প্রায় নেই বললেই চলে।

এই অনুসন্ধানের মূল কারণ হলো, কীসের জন্য পৃথিবীতে প্রাণিজগতের ধ্বংস হতে পারে, সেই সম্ভাবনাগুলোকে খুঁজে বের করে। ‘নেচার ইকোলজি অ্যান্ড ইভ্যালুয়েশন’ নামক পত্রিকায় প্রকাশিত এই গবেষণা থেকে জানা গেছে, ইথিওপিয়ার ডলোল নামক উত্তপ্ত এলাকার ঝিলের পানির মধ্যে মিশে থাকা প্রচুর পরিমাণের ক্ষারের জন্য সেখানে জীবনের কোনো সম্ভাবনা নেই।

এই ঝিলের মধ্যে কোনো মাইক্রো প্রাণের সন্ধান পাওয়া যায়নি। ‘স্প্যানিশ ফাউন্ডেশন ফর সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি’ (এফইসিওয়াইটি)- বৈজ্ঞানিকরা জানিয়েছেন যে, ডেলোল অঞ্চলটি নুনা ভরা আগ্নেয়গিরির মুখ অর্থাৎ ক্রেটরের ওপর অবস্থিত। প্রচণ্ড গরমের জন্য ওই আগ্নেয়গিরির মুখ থেকে ক্রমাগত ফুটন্ত্ত জল ও বিষাক্ত গ্যাস নির্গত হতে থাকে।

বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, শীতকালেও ওই অঞ্চলের তাপমাত্রা ৪৫ ডিগ্র্রি সেলসিয়াসের বেশি থাকে। এটি পৃথিবীতে অবস্থিত সবচেয়ে উষ্ণ এলাকার মধ্যে অন্যতম। তাদের মতে, এখানে প্রচণ্ড ক্ষার ও এসিডযুক্ত পানি পাওয়া যায়। এখানকার পানি এতটাই বিষাক্ত যে, কোনো মাইক্রো প্রাণের সম্ভাবনা পাওয়া যায় না।

বিজ্ঞানীদের মতে, এই এলাকা একেবারেই মঙ্গল গ্রহের মতো। এই এলাকাকে তারা অগ্নিগর্ভ বলেই বিবেচনা করছেন।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads