• বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৯, ২৯ কার্তিক ১৪২৬
ads
কম পেঁয়াজে সুস্বাদু রান্না

সংগৃহীত ছবি

খাদ্য

কম পেঁয়াজে সুস্বাদু রান্না

  • প্রকাশিত ১৩ অক্টোবর ২০১৯

পেঁয়াজ রান্নার অন্যতম উপকরণ। কিন্তু পেঁয়াজের দাম হঠাৎ করেই হয়ে পড়ে আকাশছোঁয়া। এতে করে নিম্নবিত্ত থেকে মধ্যবিত্ত, সবারই পকেটে টান পড়ে। তবু পেঁয়াজ ছাড়া যেন রান্নার কথা ভাবাই যায় না। কিন্তু অনেকেরই জানা নেই যে, দামের আকালে অল্প পেঁয়াজেও রান্না করা যায়। চলুন জেনে নিই কম পেঁয়াজে সুস্বাদু রান্নার কয়েকটি রেসিপি

টমেটো চিকেন

উপকরণ

মুরগির মাংস: এক কেজি, গরম মশলা গুঁড়া: ১ চা চামচ, টমেটো পিউরি: ২ টেবিল চামচ, তেল: ১/৩ কাপ, আদা বাটা: ১ চা চামচ, পেঁয়াজ বাটা: ১ চা চামচ, রসুন বাটা: ১ চা চামচ, হলুদগুঁড়া: আধা চা চামচ, পোস্তদানা বাটা: ১ চা চামচ, কাঁচামরিচ: ৩টি, লবণ: স্বাদমতো ও পানি: এক কাপ।

প্রণালি

মুরগি টুকরো করে কাটুন। মাংসের সঙ্গে সব উপকরণ দিয়ে আধা ঘণ্টা মেরিনেট করে রাখুন। তেল গরম করে মেরিনেট করা মাংস দিয়ে ভালো করে কষিয়ে নিন। এবার পানি দিয়ে ২০ মিনিট রান্না করুন। মাংস রান্না হয়ে গেলে ওপরে ধনেপাতা কুচি দিয়ে সাজিয়ে গরম ভাতের সঙ্গে পরিবেশন করুন।

পটোলের দোলমা

উপকরণ

পটোল: ৫০০ গ্রাম, সরষে বাটা: ৪ চা চামচ, লঙ্কাগুঁড়া: ২ চা চামচ, হলুদগুঁড়া: ২ চা চামচ, তেল: পরিমাণমতো, ঘি: অল্প পরিমাণ, কিশমিশ: ২৫ গ্রাম, তেজপাতা: ৪টি, নারকেল বাটা: ১টি, লবণ ও চিনি: স্বাদমতো, গরম মশলা বাটা: সামান্য ও ময়দা: সামান্য।

প্রণালি

পটোলের খোসা ছাড়িয়ে দুই মুখ কেটে বিচিগুলো বের করে নিন। খেয়াল রাখতে হবে পটল যেন ফেটে না যায়। বিচিগুলো ধুয়ে মিহি করে বেটে নিন। এবার গুঁড়ামরিচ, সরষে বাটা, লবণ, চিনি, অর্ধেক নারকেল বাটা, কিশমিশ বাটা একসঙ্গে মেশান। কড়াইয়ে তেল দিয়ে একটু গরম হলে মিশ্রণটি ঢেলে দিন। শুকনা শুকনা না হওয়া পর্যন্ত নাড়তে থাকুন।

শুকনা হয়ে এলে নামিয়ে পটোলগুলোর ভেতর ভরে দিন। ময়দা একটু পাতলা করে গুলিয়ে পটোলের মুখ আটকে দিন। কড়াইয়ে তেল গরম করে পটোলগুলো ভেজে তুলে নিন। এবার তেলে নারকেল বাটা, মরিচ, হলুদ, লবণ, চিনি, তেজপাতা দিয়ে অল্প পানি দিন। এবার পটোলগুলো কড়াইয়ে দিয়ে সিদ্ধ করুন। সিদ্ধ গেলে নামিয়ে পরিবেশন করুন।

সবজি

উপকরণ

আলু: আধা কেজি, সবজি: ফুলকপি, টমেটো, মিষ্টি আলু, পেঁপে (প্রতিটি এক কাপ করে নিন), তেল: আধা কাপ, আদা বাটা: ১ চা চামচ, পেঁয়াজ বাটা : ১ চা চামচ, রসুন বাটা: ১ চা চামচ, হলুদগুঁড়া: আধা চা চামচ, টকদই: আধা কাপ, চিনি: আধা চা চামচ, টমেটো পিউরি: ২ টেবিল চামচ, মরিচগুঁড়া: আধা চা চামচ, দারুচিনি: ২ টুকরা ও লবণ: স্বাদমতো।

প্রণালি

চুলায় প্রথমে পাত্রে তেল দিয়ে চিনি দিন। চিনি বাদামি রঙের হলে সব মশলা দিয়ে দুই মিনিট ভুনা করুন। এরপর সব কটি সবজি দিয়ে দুই মিনিট নাড়তে থাকুন। এবার টকদই দিয়ে ঢেকে দিন। তেল ওপরে উঠে না আসা পর্যন্ত রান্না করুন। তেল বের হয়ে এলে নামিয়ে ভাত-রুটি-পোলাওয়ের যে কোনোটির সঙ্গে পরিবেশন করুন।

পেঁয়াজ ও রসুন ছাড়া রান্না

দই আলুর দম

উপকরণ

সিদ্ধ আলু ছোট টুকরা: ৫০০ গ্রাম, গোলমরিচ গুঁড়া: ১ চা চামচ, মরিচগুঁড়া: ১ চা চামচ, লবণ: স্বাদমতো, চিনি: দেড় চা চামচ, টকদই: ৪ টেবিল চামচ, আদা বাটা: ২ চা চামচ, হিং: আধা চা চামচ, গুঁড়া জিরা: ১ চা চামচ, তেজপাতা: ২টি, ঘি: ১ টেবিল চামচ, তেল: ৩ টেবিল চামচ, এলাচ: ৪ দানা, লবঙ্গ: ৪ দানা, দারুচিনি: ১ টুকরা, খোয়া ক্ষীর: ১০০ গ্রাম (কুরানো), সাদা তিল বাটা: ১ টেবিল চামচ, কাঁচামরিচ ফালি: ৪-৫টি, কাঁচামরিচ বাটা: ২ চা চামচ ও ধনেপাতা কুচি: ২ চা চামচ।

প্রণালি

কড়াইয়ে তেল ও ঘি গরম করুন। এতে গোটা জিরা, গরম মশলা, মরিচগুঁড়া, তেজপাতা ও হিং ফোড়ন দিন। এরপর সিদ্ধ আলু দিয়ে মাঝারি আঁচে ভাজতে থাকুন। টকদইয়ের সঙ্গে আদা বাটা, লবণ, চিনি, গোলমরিচ গুঁড়া ও কাঁচামরিচ ভালো করে মিশিয়ে নিন। মিশ্রণটি আলুর মধ্যে দিয়ে ভালো করে কষিয়ে নিন। মশলা ভাজা হয়ে এলে এতে আধা কাপ পানি, খোয়া ক্ষীর ও তিল বাটা দিয়ে অল্প আঁচে ৩ থেকে ৪ মিনিট রান্না করুন। মাখা মাখা হয়ে এলে ধনেপাতা কুচি ও কাঁচামরিচ দিয়ে নামিয়ে নিন। গরম গরম লুচির সঙ্গে খেতে খুব ভালো লাগবে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads