• সোমবার, ২৭ মে ২০১৯, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫
ads
জঙ্গিবাদ থেকে দূরে থাকার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

শেখ ফজলুল করিম সেলিমের নাতি জায়ানের মৃত্যুতে শোকসন্তপ্ত পরিবারকে সান্ত্বনা দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

ছবি : পিআইডি

সরকার

জঙ্গিবাদ থেকে দূরে থাকার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

  • ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত ২৫ এপ্রিল ২০১৯

সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ থেকে দূরে থাকতে এবং এ ধরনের জঘন্য ঘটনায় কেউ যেন সম্পৃক্ত না হন, সেদিকে সতর্ক থাকার জন্য দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী এবং সংসদ নেতা শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, ‘দেশবাসীর কাছে আমার এটাই আহ্বান থাকবে, এই ধরনের সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ থেকে যেন সকলেই দূরে থাকে, এ ধরনের ঘৃণ্য কাজের সঙ্গে কেউ যেন জড়িত না হয়। সেটাই আমার কাম্য।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের দেশেও আমরা দেখি বোমা হামলা এবং সন্ত্রাসী হামলা, যা আমরা কঠোর হস্তে দমন করেছি। তিনি বলেন, ‘আমি দেশবাসীকে বলব, দেশবাসীকে সতর্ক থেকে কোথাও যদি এ রকম অস্বাভাবিক কিছু তারা পায়, তাহলে তারা সঙ্গে সঙ্গে আমাদের আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে যেন জানায়।’ বাসস

প্রধানমন্ত্রী গতকাল বুধবার রাতে জাতীয় সংসদে তার জন্য নির্ধারিত প্রশ্নোত্তর পর্বে সরকারদলীয় সংসদ শহীদুজ্জামান সরকারের তারকা চিহ্নিত প্রশ্ন ১-এর উত্তর প্রদানের আগে তার প্রারম্ভিক বক্তব্যে এসব কথা বলেন। ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এ সময় স্পিকারের দায়িত্ব পালন করছিলেন।

এর আগে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শেখ ফজলুল করিম এমপির নাতি জায়ান চৌধুরী কলম্বোতে বোমা হামলায় নিহতের ঘটনা, ফেনীর সোনাগাজীতে মাদরাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফির হত্যাকাণ্ড, বনানী এফআর টাওয়ারে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ফায়ারম্যান সোহেল রানার মৃত্যু এবং নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের দুটি মসজিদে সন্ত্রাসী হামলাসহ কতিপয় ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে জাতীয় সংসদে শোক প্রস্তাব গৃহীত হয়।

প্রধানমন্ত্রী শ্রীলঙ্কায় বোমা হামলায় ছোট্ট শিশু জায়ান চৌধুরী নিহত হওয়ার ঘটনায় গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করে নিহত জায়ানের আহত বাবার দ্রুত আরোগ্য কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানান।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, এই ধরনের সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, বোমা হামলার নিন্দা জানানোর ভাষা আমার নেই। আমি এর তীব্র নিন্দা জানাই। যারা ছোট্ট শিশু নিষ্পাপ তারা কেন এভাবে জীবন দেবে।

তিনি বলেন, ঠিক এর কিছুদিন আগেই নিউজিল্যান্ডের একটি মসজিদে সরাসরি গুলি করে নারী, পুরুষ শিশুসহ অনেকগুলো মানুষকে হত্যা করা হলো। নিউজিল্যান্ড সফররত বাংলাদেশ ক্রিকেট দল সে সময় অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচে যায় বলে উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ কখনো মানুষের কোনো কল্যাণ বয়ে আনতে পারে না।’

তিনি সম্প্রতি সোনাগাজীতে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে হত্যা করা নুসরাত জাহান রাফির প্রসঙ্গ উল্লেখ করেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘নুসরাতের সাথী যারা তার গায়ে কেরোসিন তেল ঢেলে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে মারল, যে একটা অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করেছিল। এই ধরনের ঘটনাগুলো সমগ্র মানবজাতির জন্যই অকল্যাণকর। আমরা চাই না এ ধরনের ঘটনা পৃথিবীর কোথাও আর ঘটুক।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘যারা সন্ত্রাসী এবং জঙ্গিবাদী তাদের কোনো ধর্ম নাই, দেশ কাল পাত্র নাই, জঙ্গি জঙ্গিই সন্ত্রাসী, সন্ত্রাসীই।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ইসলাম শান্তির ধর্ম এবং কখনো জঙ্গিবাদ সমর্থন করে না। তিনি বলেন, ‘এরা আমাদের পবিত্র ধর্মটাকেই সমগ্র মানবজাতির কাছে হেয়প্রতিপন্ন করে দিচ্ছে। তিনি বলেন, কেবল ইসলাম নয়, সব ধর্মেই শান্তির বাণী প্রচার করা হয়েছে। কিছু লোক ধর্মীয় উন্মাদনায় মানুষের প্রতি যে আঘাত আনে, জীবন কেড়ে নেয়, এটা মানবজাতির জন্য অত্যন্ত বেদনাদায়ক এবং কষ্টকর।’

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads