• শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads
প্রধানমন্ত্রীর টোকিও সফরে ২.৫ বিলিয়ন ডলারের চুক্তি সই হবে : মোমেন

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন

ফাইল ছবি

সরকার

প্রধানমন্ত্রীর টোকিও সফরে ২.৫ বিলিয়ন ডলারের চুক্তি সই হবে : মোমেন

  • অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশিত ২৬ মে ২০১৯

আগামী ২৮-৩০ মে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জাপান সফরে বাংলাদেশের পাঁচটি প্রকল্প বাস্তবায়নে টোকিওর সঙ্গে ২.৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের অফিসিয়াল ডেভেলপমেন্ট অ্যাসিসটেন্স (ওডিএ) চুক্তি সই করবে ঢাকা।

আজ রোববার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে প্রধানমন্ত্রীর জাপান, সৌদি আরব ও ফিনল্যান্ড সফর নিয়ে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন এ তথ্য জানান।

পাঁচটি প্রকল্পের মধ্যে রয়েছে- মাতারবাড়ী পোর্ট ডেভেলপমেন্ট প্রকল্প (১), ঢাকা ম্যাস র‌্যাপিড ট্রানজিট ডেভেলপমেন্ট প্রকল্প (লাইন-১), ফরেন ডিরেক্ট ইনভেস্টমেন্ট প্রমোশন প্রকল্প (২), এনার্জি ইফিসিয়েন্সি অ্যান্ড কনজারভেশন প্রমোশন ফাইন্যান্সিং প্রকল্প (দ্বিতীয় পর্ব) এবং মাতারবাড়ী আল্ট্রা সুপার ক্রিটিক্যাল কোয়েল-ফায়ার্ড পাওয়ার প্রকল্প (৫)।

সংবাদ সম্মেলনে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশের যোগাযোগ, বিদ্যুৎ ও জ্বলানি এবং শিল্পায়নের খাতে টোকিও’র ক্রমশ অংশীদারিত্ব সহায়তা বৃদ্ধির ফলে বাংলাদেশ ও জাপানের মধ্যে সম্পর্ক ইতিমধ্যেই সুউচ্চ পর্যায়ে উন্নীত হয়েছে।’
আব্দুল মোমেন বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ত্রি-দেশীয় এই সফরে প্রধানত রোহিঙ্গা সংকটের ইস্যুটি ব্যাপকভাবে আলোচিত হবে।

প্রধানমন্ত্রীর জাপান সফর সূচি:   

আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি (মঙ্গলবার) সকাল ৮টা ৪৫ মিনিটে বিমান বাংলাদেশ এয়ালাইন্সের বিশেষ বিমানে ঢাকা ত্যাগ করবেন প্রধানমন্ত্রী।

স্থানীয় সময় সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় হানেদা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণের পর জাপানের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী তোশিকো আবে প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানাবেন। ওই দিনই হোটেল ওকুরায় প্রবাসী বাংলাদেশিদের একটি অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন।

পরের দিন অর্থাৎ ২৯ মে সকালে হোটেল নিউ ওতানিতে জাপানের শীর্ষস্থানীয় ব্যবসায়ী সংগঠনের সাথে গোল টেবিল বৈঠকে বাংলাদেশ ও জাপানের মধ্যকার ব্যবসা বাণিজ্য ও বিনিয়োগের বিষয়ে আলোচনা করবেন। পরবর্তীতে ঢাকার হলি আর্টিজান হামলায় বেঁচে যাওয়া জাপানি নাগরিকদের সাথে সাক্ষাৎ করবেন তিনি।

বিকালে জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবের কার্যালয়ে তার সাথে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে বসবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং তার সম্মানে আয়োজিত রাষ্ট্রীয় নৈশভোজে অংশগ্রহণ করবেন।

এর আগে জাপানের প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পৌঁছালে শেখ হাসিনাকে গার্ড অব অনার প্রদান করা হবে।

জাপান-বাংলাদেশ দ্বি-পাক্ষিক আলোচনার পরে চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠিত হবে এবং যৌথ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।

পরের দিন ৩০ মে ইম্পেরিয়াল হোটেলে প্রধানমন্ত্রী জাপানের মিডিয়া সংগঠন নিক্কি ডট ইঙ্ক আয়োজিত ‘দ্যা ফিউচার অব এশিয়া’ আন্তর্জাতিক সম্মেলনে  অংশ নেবেন। এ সম্মেলনে মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহথির বিন মোহাম্মাদের সাথে তিনিও মূল প্রবন্ধাকার হিসেবে বক্তব্য প্রদান করবেন।

সম্মেলনটির এ বছরের প্রতিপাদ্য হচ্ছে ‘ইন সার্চ অব দ্যা নিউ গ্লোবাল অর্ডার-ওভারকামিং দ্যা ক্যাওয়াস’। বিভিন্ন দেশের সরকার প্রধান, উদ্যোক্তা ও এশিয়ার ব্যবসায়িক নেতৃবৃন্দসহ প্রায় ৫০০ প্রতিনিধি আসন্ন সম্মেলনে অংশগ্রহণ করবেন।

এশিয়াকে আরও গতিশীল, টেকসই এবং সমৃদ্ধ অঞ্চল হিসেবে প্রতিষ্ঠার প্রচেষ্টায় নিক্কি ১৯৯৫ সাল  থেকে এ বার্ষিক সম্মেলনের আয়োজন করে আসছে।

এশিয়ার অর্থনীতিসমূহকে একীভূতকরণের প্রত্যয়ে আঞ্চলিক ও বৈশ্বিক প্রবৃদ্ধিকে উন্নীত করতে, বিশ্বায়নে ঐকমত্য স্থাপনে, মুক্ত বাণিজ্য ও বহুপাক্ষিক ব্যবস্থাকে উৎসাহিত করে সুশাসন, উদ্ভাবনী ধারণা ও কাঠামোগত সংস্কারের বাস্তবায়নের উদ্দেশ্যে বিশ্ব নেতৃবৃন্দ ও ব্যবসায়ী গোষ্ঠীর মধ্যে এই সম্মেলনে আলোচনা হবে।

নিক্কি আয়োজিত সম্মেলনের নৈশভোজে যোগ দেয়ার আগে জাপানি সংস্থা জাইকা সভাপতি শিনিচি কিতাওকার সাথে বৈঠক করবেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রীর সৌদি আরব সফর:

জাপান সফর শেষ করে ওআইসির ১৪তম সম্মেলনে অংশ নিতে ৩১ মে স্থানীয় সময় সকাল ৯টা ২৫ মিনিটে হানেদা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে জেদ্দার উদ্দেশে যাত্রা করবেন প্রধানমন্ত্রী।

জাপানের পররাষ্ট্র বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী তশিকো আবে বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রীকে বিদায় জানাবেন।

সৌদি আরবের স্থানীয় সময় ৫টা ২৫ মিনিটে কিং আব্দুল আজিজ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছাবেন প্রধানমন্ত্রী। সেখানে সন্ধ্যায় ওআইসির সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন তিনি।

আগামী ৩১ মে সৌদি আরবের মক্কায় অনুষ্ঠিত ওআইসির এ সম্মেলনের শিরোনাম দেয়া হয়েছে ‘মক্কা সামিট:টুগেদার ফর দ্যা ফিউচার’।

পরের দিন ১ জুন স্থানীয় সময় রাত সাড়ে ১২টায় সম্মেলনের প্রথম সেশনে এবং রাত ১টা ৩০ মিনিটে দ্বিতীয় সেশনে অংশ নেবেন। পরবর্তীতে রাত ২টা ৩০ মিনিটে সমাপনি সেশনে অংশ নেয়ার পর সাফা প্রাসাদে নৈশভোজে অংশ নেবেন শেখ হাসিনা।

সন্ধ্যায় ওমরাহ পালন করবেন প্রধানমন্ত্রী।

পরের দিন ২ জুন বিমানযোগে মদিনার উদ্দেশে জেদ্দা ত্যাগ করবেন প্রধানমন্ত্রী এবং সেখানে হযরত মুহাম্মাদ (স.)  এর রওজা মুবারকে ফাতেহা পাঠ করে আবার জেদ্দায় ফিরে আসবেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রীর ফিনল্যান্ড সফর:

আগামী ৩ জুন হেলসিংকির উদ্দেশে জেদ্দা ত্যাগ করবেন প্রধানমন্ত্রী। জার্মানির ফ্রাঙ্কফুট হয়ে স্থানীয় সময় বেলা ১টায় ফিনল্যান্ডে পৌঁছাবেন তিনি।

পরের দিন ৪ জুন ফিনল্যান্ডের প্রেসিডেন্টের সরকারি বাসভবনে প্রেসিডেন্টের সাথে সাক্ষাৎ করবেন প্রধানমন্ত্রী।

পরবর্তীতে আগামী ৭ জুন স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৬টা ৩৫ মিনিটে ঢাকার উদ্দেশে রাজধানী হেলসিংকি ত্যাগ করবেন প্রধানমন্ত্রী।

ভারতে যাত্রা বিরতি:

ফিরতি পথে ভারতের নয়া দিল্লিতে যাত্রাবিরতি দেবেন শেখ হাসিনা। স্থানীয় সময় সকাল ৬টা ৫ মিনিটে দিল্লির ইন্দিরা গান্ধী বিমানবন্দরে অবতরণের পর ঘণ্টা তিনেক অবস্থান শেষে সকাল ৯টা ২০ মিনিটে ঢাকার উদ্দেশে দিল্লি ছাড়বেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রীর ঈদ বিদেশে:

গত ২৮ মে ঢাকা ত্যাগ করার পরে তিন দেশ সফর শেষে আগামী ৮ জুন দেশে ফেরায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এবারের ঈদ বিদেশেই কাটবে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেন।

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads