• রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads
ফাঁকা ঢাকায় নগরবাসীর ঘোরাফেরা

ঈদের পর গতকাল রাজধানীর শিশুপার্কে একটি রাইডে আনন্দে মাতে শিশুরা

ছবি -বাংলাদেশের খবর

মহানগর

ফাঁকা ঢাকায় নগরবাসীর ঘোরাফেরা

বিনোদন কেন্দ্রে উপচেপড়া ভিড়

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ২৫ আগস্ট ২০১৮

ঢাকার চিরচেনা রূপ ফিরতে আরো কয়েক দিন সময় লাগবে। রাজধানী শহরের রাজপথ থেকে পাড়ার অলিগলি-সবখানেই যেন ফাঁকা। সড়কে নেই যানজট। নগরজীবনের ব্যস্ততায় ছুটে চলার সেই দৃশ্যও নেই। ঈদুল আজহার ছুটির সঙ্গে সাপ্তাহিক দুদিনের ছুটি যোগ হাওয়ায় নাড়ির টানে ঢাকা ছেড়ে যাওয়া মানুষ এখনো রাজধানীতে ফেরেনি। কোলাহলের শহর ঢাকা গতকাল শুক্রবারও ছিল নীরব ও আনন্দ-বিনোদনের শহর। ছুটিতেও ঢাকায় থাকা ও নগরীর স্থায়ী বাসিন্দারা গতকাল ঈদের তৃতীয় দিনেও বিনোদন কেন্দ্রগুলোয় ভিড় করেন। শাহবাগ শিশুপার্ক থেকে ঢাকা চিড়িয়াখানা, সিনেমা হল থেকে বিনোদন পার্ক- সবখানে প্রিয়জনের সঙ্গে সময় কাটান নগরবাসী। জাতীয় জাদুঘর ও স্বাধীনতা জাদুঘরও ছিল নানা বয়সের মানুষের উপস্থিতিতে মুখরিত। দনগরের বাসিন্দাদের ঘুরতে যাওয়ার পছন্দের অন্যতম স্থান হাতিরঝিলেও ছিল উপচে পড়া ভিড়। এ ছাড়া বিনোদন পেতে আফতাবনগরের পূর্বাংশের খোলা জায়গায় ও বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার পেছনে তিন শ ফিট সড়কের পাশে অসংখ্য মানুষ ভিড় করেন। শ্যামলীতে অবস্থিত শিশুমেলা, যা এখন ‘ডিএনসিসি ওয়ান্ডারল্যান্ড’ নামে পরিচিতি, সেখানে ঈদের তৃতীয় দিনে পরিবার, আত্মীয়-স্বজনদের সঙ্গে নিয়ে যায় শিশুরা। ঢাকার ও আশপাশের বিনোদনকেন্দ্রগুলোয় ভিড় বাড়ছে। বিনোদনের আশায় সিনেমা হলেও ছুটে যাচ্ছেন সিনেমাপ্রেমীরা।

শাহবাগ শিশুপার্কে গতকাল সকাল থেকেই ভিড় বাড়তে থাকে। শিশুদের সঙ্গে আসেন তাদের অভিভাবকরাও। ‘টয় ট্রেন’, ‘ম্যাজিক নৌকা’, ‘আনন্দ ঘূর্ণি, ‘ঝোলানো চেয়ার, ‘ফুলদানি আমেজ’, ‘উড়ন্ত নভোযান’ ইত্যাদিতে চড়ে উচ্ছ্বাস করে শিশুরা। তাদের আনন্দে অভিভাবকরাও আনন্দিত। বাইরে থেকে ভেতরের ভিড় আন্দাজ করার উপায় নেই। বাইরে শান্ত পরিবেশ থাকলেও শিশুদের আনন্দ, চিৎকার আর খুনসুটিতে পুরোদমে মজে থাকে শিশুপার্ক।

যমুনা ফিউচার পার্কের কার্নিভাল আর ফিউচার ওয়ার্ল্ডে ভিড় লেগে আছে ঈদের দিন থেকেই। কার্নিভালের রাইডগুলোয় ভিড় আরো বেড়েছে জানিয়ে যমুনা ফিউচার পার্কের বিপণন কর্মকর্তা সারোয়ার জাহান বলেন, ‘শিশুদের জন্য ফিউচার ওয়ার্ল্ডে আছে নানা আয়োজন। তাই শিশুদের বেশ ভিড়। ’

শাহবাগ শিশুপার্কের উপসহকারী প্রকৌশলী জাকির হোসেন জানান, ‘এমনিতে প্রতিদিন বেলা ২টা থেকে শিশুপার্ক খোলা হলেও ঈদুল আজহা উপলক্ষে গত বুধবার থেকে আগামী মঙ্গলবার পর্যন্ত সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত খোলা থাকছে শিশুপার্ক।’

ঈদ উপলক্ষে মিরপুর চিড়িয়াখানার গেট দর্শনার্থীদের জন্য খুলছে সকাল ৯টায়। ঈদের দিন ভিড় তুলনামূলকভাবে কম থাকলেও বৃহস্পতি ও শুক্রবার সকাল থেকেই নানা বয়সী মানুষের উপচে পড়া ভিড় দেখা গেছে। কর্তৃপক্ষ জানায়, ঈদের দ্বিতীয় দিনে প্রায় দেড় লাখ দর্শনার্থী চিড়িয়াখানায় আসেন। তৃতীয় দিনও তেমন আশা করছেন তারা। বিপুলসংখ্যক মানুষের ভিড় সামলাতে লোকবল বাড়ানোর পাশাপাশি চিড়িয়াখানাজুড়ে নেওয়া হয়েছে বাড়তি নিরাপত্তা।

অভিভাবকের হাত ধরে শিশুদের কৌতূহলী ছোটাছুটি এক প্রাণি থেকে অন্য প্রাণির খাঁচার দিকে। তবে ছোট-বড় সবার প্রধান আকর্ষণ যেন বাঘ মামাকে দেখা। বিশাল চিড়িয়াখানায় ঘুরে ক্লান্ত অনেক শিশু। নেই অভ্যন্তরীণ পরিবহন ব্যবস্থা ও বিশ্রামের সুবিধা। এত সীমাবদ্ধতার মধ্যেও দর্শনার্থীর কমতি নেই। তারা খুশিও। এমন কথাই জানালেন গতকাল ধানমন্ডি থেকে আসা তিন দর্শনার্থী ইফতি, ইমন ও ইয়ামিন।

চিড়িয়াখানার কিউরেটর এসএম নজরুল ইসলাম বলেন, ‘ঈদ উপলক্ষে গাজীপুরের বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্ক থেকে দুই জোড়া আফ্রিকান সাদা সিংহ, এক জোড়া কালো ভাল্লুক আনা হয়েছে মিরপুর চিড়িয়াখানায়। চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ সম্প্রতি চারটি উট পাখি আর একজোড়া উট কিনেছে। অনুদান হিসেবে পাওয়া গেছে ৪০টি ইমু। আরো এসেছে শতাধিক লাভ বার্ড। নতুন এসব প্রাণির খাঁচার সামনে নানা বয়সী মানুষের ভিড় ছিল সারা দিন।’

ঈদুল আজহা উপলক্ষে জাতীয় জাদুঘর ও স্বাধীনতা জাদুঘরে চলছে বিশেষ চলচ্চিত্র প্রদর্শনী। জাতীয় জাদুঘরে দেখানো হচ্ছে অ্যাকশন-ফ্যান্টাসি ‘মাঙ্কি কিং’ ও ‘মনস্টার হান্ট’। স্বাধীনতা জাদুঘরে প্রদর্শিত হচ্ছে ‘হ্যারি পটার অ্যান্ড দ্য ডেথলি হলোস-পার্ট টু’ ও ‘জঙ্গল বুক’ সিনেমা দুটি।

সিনেমা হলেও বেড়েছে দর্শকের ভিড়। ঈদ উপলক্ষে প্রযোজনা সংস্থাগুলো এবার পাঁচটি সিনেমা মুক্তি দিয়েছে। ঢাকার বিভিন্ন প্রেক্ষাগৃহে চলছে শাকিব খান-বুবলি জুটির ‘ক্যাপ্টেন খান’, সাইমন-মাহিয়া মাহির ‘জান্নাত’, মাহিয়া মাহি-বনির ‘মনে রেখ’, রোশান-ববির ‘বেপরোয়া’ আর সিয়াম-পূজার ‘পোড়ামন-২’। অভিসার সিনেমা হলে প্রদর্শিত ‘ক্যাপ্টেন খান’, মধুমিতায় ‘মনে রেখ’ ও নীলক্ষেতের বলাকায় ‘মনে রেখ’ দেখার জন্য গতকালও ভিড় করেন দর্শকরা।

ঢাকা ও আশপাশের বিনোদনকেন্দ্রগুলোতেও ঈদ উপলক্ষে ভিড় বাড়ছে। অসংখ্য মানুষ ভিড় জমিয়েছেন রাজধানীর নিকটবর্তী গাজীপুরে অবস্থিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কে, আশুলিয়া এলাকার ফ্যান্টাসি কিংডম, নন্দন পার্ক এবং নরসিংদী এলাকায় স্থাপিত ড্রিম হলিডে পার্কে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads