• শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯, ২ কার্তিক ১৪২৬
ads
পরিবেশ বাঁচাতে লাখো শিশুর আন্দোলন

ছবি : সংগৃহীত

মহানগর

‘ফ্রাইডে ফর ফিউচার’

পরিবেশ বাঁচাতে লাখো শিশুর আন্দোলন

  • ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯

পরিবেশ বাঁচাতে স্কুলপড়ুয়া শুরু করেছে নতুন আন্দোলন ‘ফ্রাইডে ফর ফিউচার’। পরিবেশদূষণের বিরুদ্ধে এই আন্দোলনের ঢেউ ছড়িয়ে পড়েছে সারা বিশ্বে। স্কুল ফেলে গতকাল শুক্রবার বিশ্বজুড়ে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেছে শিক্ষার্থীরা।

‘ফ্রাইডে ফর ফিউচার’ আন্দোলনের উদ্যোক্তারা জানিয়েছেন, বিশ্ব শিশু দিবসকে সামনে রেখে বিশ্বের ১৬০টি দেশের ২ হাজার ৬০০ শহরে গতকাল পরিবেশ বাঁচানোর দাবিতে স্কুল ছেড়ে রাস্তায় নামে শিক্ষার্থীরা। স্কুলের শিক্ষার্থীদের এই পরিবেশ বাঁচানোর আন্দোলনে জার্মানির দুই শতাধিক পরিবেশ, সামাজিক, শ্রমিকসহ নানা সংগঠন একাত্মতা প্রকাশ করে রাজপথে নামে।

পরিবেশ বাঁচানোর এই নতুন আন্দোলনের কারিগর মূলত স্কুল শিক্ষার্থীরা। নতুন আদলে তাদের এই আন্দোলন ক্রমেই বেড়ে চলেছে। আন্দোলনের শুরুটা হয়েছিল সুইডেনে। তারপর তা ইউরোপের নানা দেশের গণ্ডি পেরিয়ে ব্যাপ্তি লাভ করেছে বিশ্বজুড়ে। এর আগে চলতি বছরের ১৫ মার্চ বিশ্বের ১১০টি দেশের ১ হাজার ৭০০ শহরে এই আন্দোলনের স্বপক্ষে স্কুলের শিক্ষার্থীরা রাস্তায় নেমেছিল। সেদিন শুধু জার্মানিতেই এই আন্দোলনকে সমর্থন জানায় ৩ লাখের বেশি মানুষ।

২০১৮ সালের গ্রীষ্মে সুইডেনের গ্রের্টা থুনবের্গ নামের ১৫ বছর বয়সী এক স্কুলছাত্রী এই আন্দোলনের সূত্রপাত করে। আন্দোলনটির মূলনীতি হলো, স্কুলের আগে পরিবেশ। আর সেই নীতিবাক্য মেনে গতকাল শেষের দুটি পিরিয়ড ফেলে রেখে স্কুল ছেড়ে পরিবেশের জন্য বিশ্বব্যাপী লাখো শিক্ষার্থী রাজপথে নেমেছে।

শিক্ষার্থীদের এ কর্মসূচিতে আন্দোলনের ব্যাপকতা আরো বেড়েছে। ওয়েলিংটন, সিডনি, টোকিও, হংকং, বেঙ্গালুরু, কিয়েভ, এথেন্স, মাদ্রিদ, রোম, বার্লিন, প্যারিস, লন্ডন হয়ে আটলান্টিকের অপর পাশে যুক্তরাষ্ট্রের অনেক শহরে তা ছড়িয়ে পড়েছে। আন্দোলনের উদ্যোক্তা গ্রের্টা থুনবের্গ গতকাল ওয়াশিংটনে হোয়াইট হাউজের সামনে উপস্থিত থেকে বিক্ষোভে যোগ দেবেন।

বিভিন্ন শহরের প্রশাসন এদিনের বিক্ষোভকে সামনে রেখে নানা প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে। বিভিন্ন শহরের কেন্দ্রগুলোতে যান চলাচল নিষিদ্ধ করা হয়েছে। জার্মানির রাজধানী বার্লিনে স্থানীয় সময় দুপুর ১২টায় এই বিক্ষোভে হ্যানোভারের আট হাজার শিক্ষার্থী অংশ নেয়।

ইউরোপীয় স্থানীয় সময় দুপুর ১২টায় শুরু হওয়ার কথা থাকলেও ফ্রাঙ্কফুর্টসহ নানা শহরে সকাল ৯টা থেকেই বিক্ষোভকারীদের ঢল নেমেছে। সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, ইতোমধ্যে অস্ট্রেলিয়ার বিভিন্ন শহরে ৩ লাখ শিক্ষার্থী পরিবেশ বাঁচানোর দাবিতে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেছে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads