• রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪, ১২ মহররম ১৪৪০
BK

সোশাল মিডিয়ায় তারকা হওয়ার মন্ত্র

সোশাল মিডিয়া নিয়ে পাগলামির অনেক উদাহরণ এখন হরহামেশাই দেখা যায়। তবে এখন সবাই অবলীলায় তাদের চিন্তা-ভাবনা, জীবনযাপন, গোপনীয় কোনো বিষয়ে এবং নেট দুনিয়ায় নিজেদের অবস্থান তুলে ধরছেন। এর মাধ্যমে একটা নেশা তাদের মাঝে ভর করছে। তা হলো, সোশাল মিডিয়ায় প্রভাবশালী হয়ে ওঠা।

 

পাবলিক প্লাটফর্মে নিজেদের পরিচিত মুখ ও জনপ্রিয় করে তুলতে কে না চায়। ফেসবুক ছাড়াও তেমনই এক শক্তিশালী মাধ্যমে ইন্সটাগ্রাম। এটা এমন এক ক্ষেত্র যেখানে ছবি, টেক্সট এবং ভিডিও দিয়ে মানুষ রীতিমতো সেলিব্রিটি হয়ে যাচ্ছে। আসলে ফেসবুক কিংবা ইন্সটাগ্রামে সেলিব্রিটিদের সংখ্যা নেহাত কম নয়। রাজনীতি, সিনেমা কিংবা ব্যাবসায়ীরা তো আছেনই, কোনো অচেনা সাধারণ মানুষও সোশাল মিডিয়ার কল্যাণে সংশ্লিষ্ট প্লাটফর্মের সেলিব্রিটি হয়ে ওঠেন। তাই প্রত্যেক ব্যবহারকারীর মনে এই ভার্চুয়াল জগতের সেলিব্রিটি হয়ে ওঠার স্বপ্ন বিরাজ করে। এখানে এই সকল প্রভাবশালী সোশাল মিডিয়া সেলিব্রিটিরা জানিয়েছেন সেই স্বপ্ন পূরণের উপায়ের কথা।

 

ইচ্ছাকে আবেগ-আসক্তিতে পরিণত করুন

আপনার ব্যক্তিত্বের বড় ধরনের প্রভাব রাখে ইচ্ছা-অভিব্যক্তি কিংবা চাওয়া-পাওয়া। এগুলো দেখেই মানুষ আকর্ষিত হবে আপনার প্রতি। কাজেই সোশাল মিডিয়ায় নিজের সম্পর্কে এমন কিছু লিখুন যা আপনার ব্যক্তিত্বকে সংজ্ঞায়িত করবে। এর মাধ্যমেই মূলত ফলোয়ার তৈরি হবে। আর এরাই আপনার সেলিব্রিটি বানাবেন। আসলে মানুষ ভিন্নধর্মী এবং আকর্ষণীয় ব্যক্তিত্ব দেখতে চান। তাদের কাছে তেমনটাই হতে হবে।

 

সঠিক বিষয়বস্তু অনেক কথা বলে

ইন্সটাগ্রাম এমন এক মাধ্যম যে এর ছবি, ভিডিও এবং টেক্সট তাকে নান্দনিক করে তুলেছে। যেকোনো মানুষের প্রোফাইলকে দারুণ আকর্ষণীয় করে তোলার চমৎকার ব্যবস্থা করে দিয়েছে ইন্সটাগ্রাম। এমন কোনো কথা নেই যে আপনার যেকোনো পোস্ট মানুষের মাঝে সাড়া ফেলবে। তবে যা দেন না কেন, তাকে নান্দনিকভাবে উপস্থাপন করতে হবে।

 

অনলাইনের সঙ্গে অফলাইনের মিশেল

অনলাইন বলেই যে কেবল হালকা-পাতলা হাস্যরসপূর্ণ পোস্ট দিতে হবে এমন কোনো কথা নেই। অফলাইনে থেকে যে আইডিয়া আপনি সৃষ্টি করছেন তাও শেয়ার করতে পারেন অনলাইনে। এতে করে একটি বিশেষ শ্রেণি আপনার প্রতি আকৃষ্ট হবে। তাদের কাছে জনপ্রিয় হতে থাকবেন আপনি। অফলাইনে আপনার বিশেষত্ব অনলাইনেও তুলে ধরতে হবে।  

 

গুণগত বৈশিষ্ট্যই মূল চাবিকাঠি

ফেসবুক বা ইন্সটাগ্রাম ব্যবহারকারী হিসেবে নিয়মিতভাবে গুণগত মানসম্পন্ন কিছু তুলে ধরা কঠিন হয়ে পড়ে। কিন্তু তাই বলে দেওয়ার খাতিরে যা ইচ্ছে তাই তুলে ধরলে হবে না। বিরতি নিয়ে পোস্ট করুন। কিন্তু প্রতিটা পোস্ট গুণগত মানে প্রশংসারযোগ্য হতে হবে। তবেই দেখবেন, ধীরে ধীরে মানুষ আপনাকে সামনে এগিয়ে নিচ্ছে। সব ধরনের পাঠক ও দর্শক যেন আগ্রহ খুঁজে পান সে ধরনের পোস্টের মিশেল ঘটাতে হবে। সঠিক হ্যাশট্যাগ, আকর্ষণীয় ক্যাপশন এবং স্বচ্ছ হাস্যরসে অনেককেই ফলোয়ার বানানো সম্ভব।

 

নিজের দর্শক-শ্রোতাদের সঙ্গে থাকুন

দূরের তারকা হলে চলবে না। যারা আপনার পোস্ট নিয়মিত দেখছেন এবং শেয়ার করছেন তাদের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করুন। তাদের জিজ্ঞাসা ও আগ্রহ মেটাতে হবে। তাদের কমেন্টের জবাব দেবেন, হোক তা ফেসবুক কিংবা ইন্সটাগ্রাম।

 

সূত্র : হিন্দুস্তান টাইমস