• বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮, ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪০
BK

সলো শিল্পী হিসেবেই স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি

ক্লোজআপ ওয়ান তারকা পুতুল। অল্প সময়ের মধ্যেই শ্রোতা মহলে যায়গা করে নিয়েছেন স্বাতন্ত্র্য গায়কীর জন্যে। এ পর্যন্ত তার একক অ্যালবামের সংখ্যা চার। স্টেজ শো, অ্যালবাম, উপস্থাপনা-সর্বত্রই তার সরব উপস্থিতি। সঙ্গীতের নানা বিষয় নিয়ে তার সঙ্গে কথা বলেছেন জিয়াউল জিয়া-

বর্তমান ব্যস্ততা
বর্তমান ব্যস্ততা স্টেজ শো নিয়ে। সামনেই পহেলা বৈশাখ। প্রচুর শো’র অফার আসছে। সেখান থেকে বেছে বেছে কিছু শো হাতে নিয়েছি। এখন একটু রিহার্সেলের কাজ করছি। কিছু গান নতুন আঙ্গিকে করতে চাচ্ছি। পহেলা বৈশাখের পরেই স্টেজ শোর জন্যে দেশের বাইরে যাচ্ছি। সুইজারল্যান্ড এবং বেলজিয়ামে গাইবো আমি। ব্যস্ততাটা মোটামুটি এরকমই।

নতুন অ্যালবাম
পঞ্চম অ্যালবামের কাজ করছি এখন। তবে আগের মতো ১০টি গান নিয়ে এক সঙ্গে নয়। একটি করে গান করছি এবং রিলিজ দিচ্ছি আমার নিজস্ব ইউটিউব চ্যানেলে। রেসপন্স বেশ ভালো পাচ্ছি।

অনলাইনে গান প্রকাশ
খুব ভালো একটা সিস্টেম এটা। এখন আসলে একজন শিল্পী নিজের মতো করে গাইতে পারছে, ভিডিওর ক্ষেত্রে নিজের চাওয়াটাকে বাস্তবে রূপ দিতে পারছে। আর গানের সকল প্রকার স্বত্ত এখন শিল্পীরই থাকছে। কোম্পানীর নানা প্রকার শর্ত-সাপেক্ষে গানের অ্যালবাম প্রকাশ করতে হচ্ছে না।

উপস্থাপনা
এতোদিন দেশ টিভির লাইভ শো ‘কলের গান’-এর উপস্থাপনা করতাম। এক মাস হলো ছেড়ে দিয়েছি। কারণ, শুক্রবারে নানা প্রোগ্রামের চাপ থাকে। এখন একুশে টিভির ‘সেদিন দু’জনে’-এর উপস্থাপনা করছি।

প্লেব্যাকে অনুপস্থিত
প্লেব্যাক আমাকে কখনোই টানতো না। যেখানে শিল্পীর চাইতে অন্য বিষয়ের প্রাধাণ্য থাকে সেখানে আমার কাজ করতে ইচ্ছে করে না। প্লেব্যাক আসলে পর্দার তারকাকেই স্ট্যাবলিস্ট করে। তাছাড়া কাজটা পুরোটাই ফরমায়েসি। এখানে শিল্পীর নিজস্ব চিন্তা-ভাবনা প্রকাশের সুযোগ নেই। তাই প্লেব্যাক করা হয়নি।

রক গান করেছেন। তবে ব্যান্ড কেন নয়?
আমি টিভি লাইভের ক্ষেত্রে একটা নির্দিষ্ট লাইনআপেই গান করি। কিন্তু এটাকে আমি ব্যান্ড বলতে নারাজ। আমি সলো শিল্পী হিসেবেই কাজ করতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি।