• রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪, ১২ মহররম ১৪৪০
BK

শারজায় পাক-ভারত ম্যাচের নয়া উদ্যোগ

একটা সময় ছিল, যখন সংযুক্ত আরব আমিরাতের শারজায় পাকিস্তান আর ভারতের ক্রিকেট ম্যাচ ক্রিকেটবিশ্ব দারুণভাবে উপভোগ করত। শারজার গ্যালারিতে ভারত-পাকিস্তানের দর্শকরা নানা স্লোগান তুলে, দু’দেশের জাতীয় পতাকা উড়িয়ে, দারুণ দারুণ ব্যানার ঝুলিয়ে ম্যাচকে আরো আকর্ষণীয় করে তুলতেন। গড়াপেটার কারণে, দাউদ ইব্রাহিমের উপস্থিতির কারণে শারজা ক্রিকেট স্টেডিয়াম থেকে আন্তর্জাতিক ম্যাচ বলতে গেলে উঠেই গেল। এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের কর্তারা চাইছেন, যেভাবেই হোক শারজাকে আবার ক্রিকেট মানচিত্রে ফিরিয়ে আনতে।

কিন্তু কীভাবে?‌ এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের কর্তারা ঠিক করেছেন পরবর্তী এশিয়া কাপ সংযুক্ত আরব আমিরাতে হোক। এ ব্যাপারে ভারত, পাকিস্তান, বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা কর্তারা সমর্থনও দিয়েছেন। ভারতীয় বোর্ড আপত্তি করছে না, কারণ এটা দ্বিপক্ষীয় সিরিজ নয়। ভারত বনাম পাকিস্তান সিরিজ হলে কেন্দ্রীয় সরকার আপত্তি তুলতে পারত। এ ব্যাপারে তো মোদি সরকারের পক্ষ থেকেও স্পষ্ট নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের কর্তারা চেষ্টা করছেন, এই এশিয়া কাপে ভারত বনাম পাকিস্তানের ম্যাচটা যেন শারজার মাঠে আয়োজন করা যায়। নিয়ম অনুযায়ী, এই প্রতিযোগিতার জন্য জরুরি দু‌টি মাঠের। শারজা, দুবাই এবং আবুধাবি- এই তিনটি কেন্দ্রের মধ্যে যেকোনো দুটিতে এবার এশিয়া কাপের আসর বসবে সেপ্টেম্বরে, বিরাট কোহলিদের ইংল্যান্ড সিরিজের পর।

শারজা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে খবরটা পৌঁছেছে। ওখানকার কর্তারা মনেপ্রাণে চাইছেন অতীতের কলঙ্ক মুছে যেন নতুন অধ্যায় শুরু করা যায়। জানা গেল, আফগানিস্তানকেও এশিয়া ক্রিকেট কাউন্সিল পূর্ণ মর্যাদা দিতে চলেছে। জুন মাসে বেঙ্গালুরুতে ভারতের বিরুদ্ধে ঐতিহাসিক টেস্টের পর আইসিসিও যেন পূর্ণ মর্যাদার স্বীকৃতি দেয়, সেই উদ্যোগও পর্দার পেছনে নেওয়া শুরু হয়েছে।‌