• মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৮, ২৯ কার্তিক ১৪২৫, ২৩ সফর ১৪৩৯
BK

নিরাপদ রাখুন আপনার অনলাইন অ্যাকাউন্ট

ছবি: ইন্টারনেট

প্রযুক্তির প্রভাবে বর্তমান সময়ে অনলাইনে যার অ্যাকাউন্ট যত বেশি নিরাপদ সেই সবচেয়ে বেশি সুখী মানুষ। কিন্তু প্রতিনয়তই নিরাপত্তা প্যাঁচ ভেঙে নানা ধরনের অপরাধ সৃষ্টি করছে কিছু অসাধু লোক। আর এর শিকার হচ্ছে সাধারণ মানুষ।

আর তাই অনলাইনে থাকা অ্যাকাউন্টগুলো নিরাপদ রাখতেই আজকের টিপস।

টু ফ্যাক্টর অথেন্টিকেশন

অ্যাকাউন্ট নিরাপদ রাখতে চাইলে টু ফ্যাক্টর অথেন্টিকেশন ব্যবহার করা যেতে পারে। এই ফিচারের আওতায় প্রতিবার লগইনের সময় মোবাইলে কোড নম্বর পাঠানো হয়ে থাকে।

ইউএসবি কী

গুগল, ফেসবুক ও ড্রপবক্সের নিরাপত্তার জন্য ইউএসবি কী ব্যবহার করা যায়। এই ইউএসবি কী ছাড়া কোনো মতেই অ্যাকাউন্টে ঢোকা যাবে না। তাই ব্যবহারকারীকে সর্বদাই ডিভাইসটি বয়ে নিয়ে বেড়াতে হবে।

নিরাপত্তামূলক প্রশ্ন

নিরাপত্তামূলক প্রশ্ন (সিকিউরিটি কোয়েশ্চন) অপশনটি অনলাইনে অ্যাকাউন্টকে নিরাপদ রাখার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সিকিউরিটি কোয়েশ্চন হিসেবে আপনি কোথায় বড় হয়েছেন, জন্ম-তারিখ বা আপনার মায়ের নাম কী- এসব প্রশ্নের উত্তর এড়িয়ে যাওয়াই ভালো। কারণ এই প্রশ্নগুলোর উত্তর আপনার সোস্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্টগুলো থেকেও পাওয়া সম্ভব।

 

পাসওয়ার্ড পরিবর্তন

অন্য কেউ আপনার পাসওয়ার্ড জেনে গেলে দ্রুতই পাসওয়ার্ড বদল করা প্রয়োজন। এতে হ্যাকিংয়ের হাত থেকে রেহাই পাওয়া সম্ভব।

 

রাউটারের পাসওয়ার্ড

অনেক রাউটারেই ডিফল্ট লগইন দেওয়া থাকে। সেখানে লগইন নেম থাকে অ্যাডমিন আর পাসওয়ার্ডের জায়গায় লেখা থাকে পাসওয়ার্ড। তাই রাউটারের পাসওয়ার্ডটিও বদল করা জরুরি।

 

ম্যালওয়্যার

পাসওয়ার্ড যতই শক্তিশালী হোক না কেন তা ম্যালওয়্যার থেকে বাঁচতে পারে না। তাই অ্যান্টি-ম্যালওয়্যার সফটওয়্যার ব্যবহার করাই বুদ্ধিমানের কাজ।

 

পাসওয়ার্ড ম্যানেজার

পাসওয়ার্ড ম্যানেজমেন্ট সফটওয়্যারে একসঙ্গে অনেকগুলো পাসওয়ার্ড জমা করে রাখা যাবে। লাস্টপাস, ড্যাশলেন, রোবোফার্ম, কিপাস পাসওয়ার্ড ও স্টিকি পাসওয়ার্ড সফটওয়্যারগুলো পাসওয়ার্ড ম্যানেজার হিসেবে কাজ করে থাকে।

 

এড়িয়ে চলুন রিমেম্বার মাই পাসওয়ার্ড

নিজের কম্পিউটার বাদে অন্য কোনো কম্পিউটারে ‘রিমেম্বার মাই পাসওয়ার্ড’ ফিচারটিকে সব সময় এড়িয়ে চলা উচিত। যদি মনে রাখতে খুব বেশি কষ্ট হয়, তাহলে কম্পিউটারে কোনো অ্যাকাউন্ট খুললে সেটির পাসওয়ার্ড নোটপ্যাডে লিখে রাখাই ভালো।

 

কমন ওয়ার্ড

প্রচলিত কিছু শব্দ যেমন কোয়ার্টি, নিজের নাম বা প্রিয়জনের নাম পাওয়ার্ড হিসেবে  না দেওয়াই ভালো।

নোটপ্যাড

সরাসরি পাসওয়ার্ড না লিখে ‌এমন কিছু লেখা উচিত যা পাসওয়ার্ডটি মনে রাখতে সহায়তা করবে। এতে নোটপ্যাডটি অন্য কারো কাছে গেলেও পাসওয়ার্ডটি নিরাপদই থাকবে।