• বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮, ৩০ কার্তিক ১৪২৫, ২৪ সফর ১৪৩৯
BK

আবাহনীর জয়রথ চলছেই

প্রিমিয়ার ডিভিশন হকি লিগে আবাহনীর জয়রথ ছুটছেই। টানা তৃতীয় জয় তুলে নিয়েছে দলটি। গতকাল তারা ১০-০ গোলের বিশাল ব্যবধানে পরাস্ত করেছে বাংলাদেশ এসসিকে। আরশাদ হোসেনের হ্যাটট্রিকের সুবাদে দারুণ এ জয় পায় শিরোপা প্রত্যাশীরা। এ ছাড়া জোড়া গোল এসেছে কৃষ্ণ কুমারের স্টিক থেকে। আর একটি করে গোল করেছেন আশরাফুল ইসলাম, রোমান সরকার, আফসার উদ্দিন, সোহানুর রহমান সবুজ ও শহিদুল্লাহ খোকন। টানা তিন ম্যাচে ২৮ বার প্রতিপক্ষের জালে বল পাঠানো আবাহনী একটি গোলও হজম করেনি।

গতকাল মওলানা ভাসানী হকি স্টেডিয়ামে বেলা ৩টার আগেই উভয় দল ওয়ার্মআপ শুরু করে মাঠে। হঠাৎ করেই শুরু হয় বৈশাখী ঝড়। ম্যাচ কমিশনারের সিদ্ধান্তে খেলা শুরু করেন দুই আম্পায়ার। কিন্তু অনবরত বজ্রপাত আর ঝড়োবৃষ্টির ফলে আট মিনিট পর ম্যাচ কমিশনার ম্যাচ বন্ধ করে দেন। উভয় দলের খেলোয়াড়রা মাঠ ছেড়ে চলে যান ড্রেসিং রুমে। এরপর টানা ৪০ মিনিট ভারী বর্ষণের পর আকাশ কিছুটা পরিষ্কার হলে আবারো শুরু হয় দুই দলের এ দ্বৈরথ।

বৃষ্টিবিঘ্নত এ ম্যাচের ৬ মিনিটেই প্রথম পেনাল্টি কর্নার কাজে লাগাতে ব্যর্থ হয় ক্লাবকাপ জয়ীরা। পরের মিনিটেই ফাঁকা পোস্ট পেলেও কাজে লাগাতে পারেননি আরশাদ হোসেন। ফলে হতাশা নিয়েই বৃষ্টি মাথায় ড্রেসিং রুমে ফিরতে হয় আবাহনীকে। বৃষ্টি শেষে মাঠে ফিরে এসেই যেন আড়মোড়া দিয়ে জেগে উঠে শিরোপা প্রত্যাশীরা। ১৬ মিনিটে প্রথম গোলের দেখা পায় তারা। কাউন্টার অ্যাটাক থেকে সারওয়ার হোসেনের বাড়ানো বল আগুয়ান গোলরক্ষক রাসেল খান বাপ্পিকে ফাঁকি দিয়ে ডানপ্রান্ত দিয়ে আরশাদ হোসেনের মাইনাসে পাওয়া বল কব্জির মোচড়ে নিশানা ভেদ করেন কৃষ্ণ কুমার (১-০)। দুই মিনিটে দ্বিতীয় পেনাল্টি কর্নারও কাজে লাগাতে পারেনি ধানমন্ডির ক্লাব দলটি। তবে ৩০ সেকেন্ড পর পাওয়া পেনাল্টি কর্নার থেকে ব্যবধানটা ঠিকই দ্বিগুণ করেন আশরাফুল ইসলাম (২-০)। ম্যাচের ২৪ মিনিটে ব্যবধানটা ৩-০তে নিয়ে যান আরশাদ হোসেন। দুই মিনিট পরই আবারো গোল পায় আবাহনী। এবার গোলের নায়ক চলতি এ আসরের প্রথম হ্যাটট্রিক করা রোমান সরকার (৪-০)। ৩২ মিনিটে পাওয়া পঞ্চম পেনাল্টি কর্নার পেলেও তা গোলে পরিণত করতে ব্যর্থ হন মুসা মিয়া-রোমান সরকাররা। তবে দুই মিনিট পর ফিল্ড গোল করে ঠিকই আবাহনীকে আরো উপরে নিয়ে যান আফসার উদ্দিন (৫-০)।

দ্বিতীয়ার্ধে মাঠে নামার দ্বিতীয় মিনিটেই আবারো গোল করেন আরশাদ। ফিল্ড থেকে গোল করেন এ স্ট্রাইকার (৬-০)। ৪৫ মিনিটে আবারো পেনাল্টি কর্নার মিস করেন আবাহনীর ফরোয়ার্ডরা। পাঁচ মিনিট পরই সোহানুর রহমান সুজন দলীয় সপ্তম গোলটি আদায় করে নেন। ম্যাচের ৫৩ মিনিটে বাংলাদেশ এসসির জাল কাঁপান কৃষ্ণ কুমার (৮-০)। সাত মিনিট পর নিজের হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেন আরশাদ হোসেন (৯-০)। বাংলাদেশ এসসির কফিনে শেষ পেরেকটি ঠুঁকে দেন শহিদুল্লাহ খোকন (১০-০)।