• মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪, ১৪ মহররম ১৪৪০
BK
সংবাদ সম্মেলনে প্রিয়াঙ্কা চোপড়া

রোহিঙ্গা শিশুদের দায়িত্ব নিতে হবে পুরো বিশ্বকে

রোহিঙ্গা শিশুদের দায়িত্ব নিতে হবে পুরো বিশ্বকে
ছবি : বাংলাদেশের খবর

রোহিঙ্গা শিশুদের দায়িত্ব পুরো পৃথিবীকে নিতে হবে, কারণ তাদের কেউ নেই। জাতিসংঘের শিশু তহবিলের (ইউনিসেফ) শুভেচ্ছাদূত ও অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা চোপড়া এ আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘হৃদয় খুলে দিন। আপনারা মনে সহমর্মিতা আনুন। নিজেদের সন্তানের মতো এই শিশুদের দেখুন।’

চার দিনের সফর শেষে ঢাকা ছাড়ার আগে গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় এক সংবাদ সম্মেলনে এ আহ্বান জানান প্রিয়াঙ্কা।

রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেওয়ার জন্য মিয়ানমারের প্রতি তিনি আহ্বান জানাবেন কি না- সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে প্রিয়াঙ্কা চোপড়া বলেন, আমি রাজনীতিবিদ নই। ইউনিসেফের শুভেচ্ছাদূত। শিশুদের নিয়ে কাজ করি। তবে বিশ্ববাসীর প্রতি আমার আহ্বান থাকবে।

সংবাদ সম্মেলনে বিশ্ববাসীর উদ্দেশে তিনি বলেন, বাস্তুচ্যুত শিশুদের দায়িত্ব পুরো পৃথিবীকে নিতে হবে। কারণ তাদের যাওয়ার কোনো জায়গা নেই। হূদয় খুলে দিন। আপনারা মনে সহমর্মিতা আনুন। নিজেদের শিশুদের মতো এদের দেখুন। অন্তত একজন করে শিশুর দায়িত্ব নিন। সবার প্রতি আবেদন রেখে প্রিয়াঙ্কা বলেন, বিশ্বের কোনো শিশুরই যেন রোহিঙ্গা শিশুদের মতো অবস্থা না হয়। ৫-৬ বছরের শিশুদের চিত্রকর্ম দেখার কথা জানিয়ে প্রিয়াঙ্কা বলেন, তারা দেখেছে মাথার উপরে রকেট লঞ্চার, পায়ের তলায় মাইন। তারা সেটা মনে রেখেছে এবং তার ছবি এঁকেছে।

গত সোমবার বাংলাদেশে আসেন প্রিয়াঙ্কা, বলিউড ছাপিয়ে যার পদচারণা এখন হলিউডেও। গত চার দিনে তিনি উখিয়া ও টেকনাফের ১০টি শরণার্থী শিবির এবং সীমান্তের কাছের রোহিঙ্গা আগমনের ট্রানজিট পয়েন্ট ঘুরে দেখেন। রোহিঙ্গা শিশুদের সঙ্গে সময় কাটিয়ে বোঝার চেষ্টা করেন তাদের সঙ্কট।

গতকাল সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, আগামী বিশ্বের ভবিষ্যৎরা খুব বাজে অবস্থায় আছে। যারা আগামীতে বিশ্বকে নেতৃত্ব দেবে তারা আজ পরিবারের সঙ্গে ঘুমোতে পারছে না। তাদের সামনে এমন নৃশংস কর্মকা্ল ঘটেছে, যেগুলো তারা মুছে ফেলতে পারছে না। ঘুমের মধ্যেও তারা ভয় পাচ্ছে, এমন পরিস্থিতি কী ভাবা যায়। আমাদের এ বিষয়ে এখনই সোচ্চার হতে হবে।

সংবাদ সম্মেলনের আগে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গেও দেখা করেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। এ সময় মিয়ানমার থেকে বিতাড়িত রোহিঙ্গা শিশুদের আশ্রয় ও শিক্ষার সুযোগ দেওয়ায় ইউনিসেফের হয়ে প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান জাতিসংঘের এ শুভেচ্ছা দূত।

সংবাদ সম্মেলনে ইউনিসেফের বাংলাদেশ প্রতিনিধি সীমা সেন গুপ্ত, ইউনিসেফ বাংলাদেশের কমিউনিকেশনস চিফ জ্যঁ জ্যাক সিমনও বক্তব্য রাখেন।