• বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১১ আশ্বিন ১৪২৫, ১৫ মহররম ১৪৪০
BK

‘ব্রাজিল ভক্তদের বিশ্বকাপ চাই-ই-চাই’

‘ব্রাজিল ভক্তদের বিশ্বকাপ চাই-ই-চাই’
ইন্টারনেট

২০১৬ সালের জুনে দায়িত্ব নিয়ে ব্রাজিলকে আমূল পাল্টে দিয়েছেন আদেনর লিওনার্দো বাচ্চি ওরফে তিতে। দলের ফুটবলারদের মনে গেঁথে দিয়েছেন অভিন্ন লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য। ফুটবলাররা খাপ খাইয়ে নিতে পারে এমন একটি স্টাইল গড়ার চেষ্টা করে গেছেন। সেটা করেছেন ফুটবলারদের সামর্থ্যের বিষয়টা মাথায় রেখে। যার সুফল পাচ্ছে পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। যেটা ছিল না তার পূর্বসূরি কার্লোস দুঙ্গার সময়ে। তিতের দৃষ্টান্ত স্থাপনকারী কোচিং পারফরম্যান্সে ১৯ ম্যাচে ১৫ জয় ছিনিয়ে নিয়েছে সেলেসাও শিবির। প্রতিপক্ষের জালে ৪২ গোল দিয়ে বিপরীতে হজম করেছে মাত্র ৫টি। এখানেই শেষ নয়, প্রথম দল হিসেবে জায়গা করে নিয়েছে রাশিয়া বিশ্বকাপের মূল পর্বে। ১৯৫৮ সালের সুইডেন বিশ্বকাপের পর ইউরোপের মাটিতে ফের বিশ্বকাপ জয়ের লড়াইয়ে অন্যতম ফেভারিট তারা। তাই টুর্নামেন্টে ভালো পারফরম্যান্সের সঙ্গে বিশ্বকাপ জয়ের চাপ থাকবে ব্রাজিল খেলোয়াড়দের ওপর। চাপ থাকবে কোচের কাঁধেও। কিন্তু এ নিয়ে মোটেই চিন্তিত নন তিতে, ‘সেলেসাওদের কোচিং করালে চাপ তো সামলাতেই হবে। আমরা পাঁচবার বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন। বিশ্বকাপ ছাড়া কখনো অন্য কোনো কিছুতে আমাদের ভক্ত-সমর্থকদের মন ভরবে না। এই বিশ্বাসটা নিয়ে বড় হয়েছি। চাপ তো সব সময় থাকবে। কিন্তু চাপ নিয়ে চিন্তা না করে নিজের সেরাটা উজাড় করে দেওয়া যায় না। বিশ্বকাপে ব্রাজিল দলের সবার কাছে প্রতাশাটা এমনই।’

২০১৪ বিশ্বকাপে জার্মানির কাছে ৭-১ গোলের লজ্জাজনক হার তিতের কাছে দুর্যোগ ছাড়া কিছুই নয়। আর দুর্যোগ প্রতিদিন হয় না। মার্চের প্রীতি ম্যাচে বর্তমান বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন জার্মানিকে ০-১ গোলে হারিয়ে তা প্রমাণ করেছে ব্রাজিল। এখন ভালো খেলে যাচ্ছে দক্ষিণ আমেরিকার এই ফুটবল পরাশক্তি। বিশ্বে ব্রাজিলিয়ান ফুটবলাররা তাদের সামর্থ্যের প্রমাণ দিয়েছে। এ নিয়ে তিতে জানান, ‘ড্রেসিং রুমে এখন চলছে খুশির আবহ। ফুটবলাররা মাঠে ও মাঠের বাইরে স্বাভাবিকভাবে নিজেদের মেলে ধরতে পারছে।’

ম্যাচের ফল নয় তিতে জোর দেন ফুটবলারদের পারফরম্যান্সের ওপর। কারণ ফলটা নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব নয়। নিয়ন্ত্রণ সম্ভব কেবল পারফরম্যান্স। ইনজুরির কারণে দানি আলভেসের বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে যাওয়াটা কোচ তিতের কাছে খেলার অবিচ্ছেদ্য অংশ। এ তারকা ডিফেন্ডারের জায়গায় অন্য কাউকে স্থলাভিষিক্ত করাটা কঠিন হবে— সেটা মেনেও ব্রাজিল কোচ সঠিক ব্যক্তিকে বদলি হিসেবে খুঁজে নেবেন খুব স্বাভাবিকভাবেই।