• বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১১ আশ্বিন ১৪২৫, ১৫ মহররম ১৪৪০
BK
দ্রুত দল গোছাচ্ছে বিএনপি

ঈদের আগেই সব কমিটি ঘোষণার নির্দেশ

ঈদের আগেই সব কমিটি ঘোষণার নির্দেশ
সংরক্ষিথ ছবি

নিষ্ক্রিয়তা কাটিয়ে দ্রুত দল গোছাচ্ছে বিএনপি। জড়তা কাটিয়ে দলকে ‘সরকার পতন’ আন্দোলন উপযোগী করতে এ উদ্যোগ। গত তিন বছর ধরে যে কাজ শেষ করা যায়নি, তা হচ্ছে মাত্র তিন সপ্তায়।

দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতারা বাংলাদেশের খবরকে বলেছেন, দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান লন্ডন প্রবাসী তারেক রহমান ও নীতিনির্ধারণী ফোরামের তত্ত্বাবধানেই পুনর্গঠন চলছে। এদিকে কমিটি গঠনে অনিয়মের অভিযোগে আন্দোলন করছেন পদবঞ্চিতরা। তাদের দাবি নিষ্পত্তির আশ্বাস দিয়েছেন ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান।

দলের একাধিক নেতা জানিয়েছেন, বিএনপিসহ এর ১১ অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতাদের নির্দিষ্ট সময় বেঁধে দেওয়া হয়েছে। ঈদের আগেই ২/১টি বাদে সব সংগঠনের কমিটি দেওয়ার কথা। ওই সময়ের মধ্যে পুনর্গঠনে ব্যর্থ নেতাদের অপসারণের মতো কঠিন সিদ্ধান্তও নেওয়া আছে হাইকমান্ড থেকে। বিষয়টি বিচেনায় রেখেই ২/১ দিন পর পর নতুন কমিটি ঘোষণা করা হচ্ছে। আন্দোলনের সূতিকাগার ঢাকা মহানগর উত্তরের পূর্ণাঙ্গ কমিটি দেওয়া হয়েছে ক’দিন আগে। গতকাল সোমবার দক্ষিণের ২১ সাংগঠনিক থানার আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। বাকিগুলো সপ্তাহ খানেকের মধ্যে।

২০১৫ সালের জুন মাসে সারা দেশের কমিটি বিলুপ্ত করে বিএনপি। ওই সময় থেকেই পুনর্গঠন প্রক্রিয়ার দায়িত্ব দেওয়া হয় ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাহজাহানকে। সাংগঠনিক ৭৮ জেলার ৫১টিতে কমিটি ঘোষণা হয়েছে। প্রস্তুত আছে ১৫টি। যেকোনো সময় দিতে পারে। বাকিগুলোর কাজ চলছে।

এদিকে ছাত্রদলের সাংগঠনিক ইউনিট ১০৭। এর মধ্যে ৭৪টি ইউনিট কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। যুবদলের ৮৩ সাংগঠনিক জেলার মধ্যে ৫৫টির কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। স্বেচ্ছাসেবক দলের ৭৫ সাংগঠনিক জেলার মধ্যে ২০টি ঘোষণা করা হয়েছে। শ্রমিক দলের কমিটির মেয়াদ শেষ হয়েছে দেড় বছর আগেই। মহিলা দল চলছে ৭ সদস্য দিয়ে। কৃষক দলের কমিটি হয় না ১৮ বছর। সংগঠন চলছে মাত্র তিন সদস্যে। গত ১ জানুয়ারি দুই সদস্যবিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা দলের কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। ২০০৮ সালের ২২ মে তাঁতী দলের কমিটি করা হয়েছে। মৎস্যজীবী দলের কমিটি করা হয়েছে ২০০৯ সালে। তিন সদস্যের কমিটির এক সদস্য পদত্যাগ করেছেন। পরস্পরের মধ্যে দূরত্ব যোজন যোজন। গত দেড় বছর আগে গঠন করা হয়েছিল শ্রমিক দল। জাতীয়তাবাদী সামাজিক সাংস্কৃতিক সংস্থার (জাসাস) কমিটি হয়েছে গত বছর। জাতীয়তাবাদী ওলামা দলের কমিটি এক যুগ আগের।

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব (দফতরের দায়িত্বে) রুহুল কবির রিজভী আহমেদ জানিয়েছেন, পুনর্গঠন একটি চলমান প্রক্রিয়া। বছর জুড়েই হয়ে থাকে। সরকারের নানামুখী বাধার কারণে দীর্ঘ সময় লেগেছে বলে তার দাবি।

যুবদলের সুলতান সালাউদ্দিন টুকু বলেন, পুনর্গঠন একটি স্বাভাবিক প্রক্রিয়া। আমাদের আন্দোলন চলমান, সামনে নির্বাচন, নেত্রীর মুক্তিসহ নিরপেক্ষ সরকারের দাবি আদায়ে চলমান আন্দোলন আরো দুর্বার হবে- এ জন্য আন্দোলনের মূল শক্তি সংগঠন গোছানো হচ্ছে।

স্বেচ্ছাসেবক দলের দফতর সম্পাদক রফিকুল ইসলাম জানান, সাংগঠনিক জেলা ৭৫। ২০ সাংগঠনিক জেলায় কমিটি দেওয়া হয়েছে। বাকি ৫৫টি ঈদের আগেই দেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

ছাত্রদলের দফতর সম্পাদক আবদুস সাত্তার পাটোয়ারি বাংলাদেশের খবরকে বলেন, ছাত্রদলের ইউনিট কমিটিগুলোর বয়স ৮/১০ বছর হয়েছিল। ছাত্রনেতারা রাজপথে আন্দোলন করে কিন্তু তাদের কোনো পরিচয় নেই। সামনে আন্দোলন। এসব বিষয় বিবেচনায় নিয়েই দ্রুত কমিটি পুনর্গঠনের কাজ করা হচ্ছে।

শ্রমিক দলের সভাপতি মোহাম্মদ আনোয়ার হুসাইন জানান, কাউন্সিল করে গত দেড় বছর আগে তাদের কমিটি করা হয়েছিল। হাইকমান্ডকে বিষয়টি জানানো আছে। রাষ্ট্রের দেওয়া রেজিস্ট্রেশনধারী এই অঙ্গ-সংগঠনটির আপাতত পুনর্গঠন হচ্ছে না।

মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহম্মেদ জানান, তাদের ৭৮টি সাংগঠনিক জেলার মধ্যে ৩০টির কমিটি ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। মহানগরীর কমিটিগুলো প্রায় শেষ পর্যায়ে। এখনো কোনো নির্দেশনা আসেনি। তবে খুব শিগগিরই বাকি কমিটিগুলো দেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে।