• শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪, ১১ মহররম ১৪৪০
BK
রুদ্ধশ্বাস ম্যাচ

রক্তচাপ বেড়ে হাসপাতালে ম্যরাডোনা

রক্তচাপ বেড়ে হাসপাতালে ম্যরাডোনা
ছবি : ইন্টারনেট

আবেগের কোনো মাপকাঠি নেই! আর তিনি তো ঈশ্বরপ্রতিম। অন্তত অনুরাগীরা তাই বলে থাকেন। কখনো ছক ভাঙেন, কখনো বা বেহিসাবী জীবনযাপন। প্রতিভার তো আসলে কোনো বিচার হয় না। তাই তিনি জিতে যান প্রতিবার। দিয়েগো ম্যারাডোনা। মাথার উপর ঝুলছে বিশ্বকাপে টিকে থাকার খাঁড়া। ‘ডু অর ডাই’ ম্যাচ। স্বচক্ষে দেখলেন সেন্ট পিটার্সবার্গে নাইজেরিয়াকে ২-১ গোলে হারিয়ে ম্যাচ জিতে বিশ্বকাপের প্রি-কোয়ার্টার ফাইনালে পৌঁছে গিয়েছে তার দল, লিওনেল মেসির দল। আর এই ম্যাচের পর আর্জেন্টিনার ১৯৮৬ সালের বিশ্বকাপজয়ী দলের অধিনায়ক ম্যারাডোনা আচমকাই অসুস্থ হয়ে পড়েন। আর্জেন্টিনার একটি সংবাদ মাধ্যম জানিয়েছে, রক্তচাপ বেড়ে যাওয়াতেই অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন দিয়েগো। পরে ব্যক্তিগত বিমানে তিনি মস্কো উড়ে যান।

বিশ্বকাপে নাইজেরিয়ার বিরুদ্ধে আর্জেন্টিনার ম্যাচ গ্যালারিতে বসে দেখছিলেন দিয়েগো ম্যারাডোনা। আসলে খেলছিলেনও মনে মনে। কখনো পাশে বসে থাকা বন্ধুকে জড়িয়ে ধরছেন। কখনো নিজের মুখ দু’হাতে চেপে ধরছেন। কখনো বা লাফিয়ে উঠছেন। ডানা মেলার মতোই মেলে দিচ্ছেন দু’হাত। মাঠে নেই, কিন্তু মাঠে যেন তিনিই দাপিয়ে বেরাচ্ছেন।

প্রথমে মেসি, তারপর মার্কোস রোহোর গোল। জিতে গিয়েছে তার দল। এরপরই ম্যারাডোনা নাইজেরীয় সমর্থকদের উদ্দেশে অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি করেন। ক্যামেরায় ধরাও পড়ে উত্তেজিত ম্যারাডোনার সেই ছবি। তার জন্য সমালোচনার মুখেও পড়েন। এর সামান্য পরই অসুস্থ হয়ে পড়েন দিয়েগো। দেখা যায়, দু’জন চিকিৎসক দেখছেন তাকে। কিছুক্ষণ পরে অনেক কষ্টে চোখ খুললেন তিনি। সঙ্গে সঙ্গে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় তাকে। চিকিত্সকেরা জানিয়েছেন, ভয়ঙ্কর উত্তেজনাই তার এই হঠাত্ অসুস্থতার কারণ। স্থিতিশীল দিয়েগো পড়ে ব্যক্তিগত বিমানে মস্কো উড়ে যান।

রাশিয়ায় এবারের বিশ্বকাপে তাকে আর্জেন্টিনার প্রতিটি ম্যাচেই গ্যালারিতে থাকতে দেখা গিয়েছে। আইসল্যান্ডের বিরুদ্ধে পেনাল্টি হাতছাড়া করায় যখন মেসির সমালোচনা হচ্ছিল, তখন তার পাশে দাঁড়ান ম্যারাডোনাই।