• বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪, ৮ মহররম ১৪৪০
BK

চাল আমদানিতে দেওয়া ছাড় প্রত্যাহার

চাল আমদানিতে দেওয়া ছাড় প্রত্যাহার
সংরক্ষিত ছবি

খাদ্যপণ্য চাল আমদানিতে দেওয়া বিশেষ ছাড় প্রত্যাহার করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। দেশে প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে চালের স্বাভাবিক সরবরাহে বিঘ্ন ঘটায় বাজারে চালের সরবরাহ নিশ্চিত করার লক্ষ্যে চাল আমদানির ক্ষেত্রে ব্যাংকার-গ্রাহক সম্পর্কের ভিত্তিতে শূন্য মার্জিনে ঋণপত্র স্থাপনের যে সুযোগ দিয়েছিল বাংলাদেশ ব্যাংক তা প্রত্যাহার করা হয়েছে। একই সঙ্গে চাল ব্যবসায়ীদের গৃহীত অগ্রিম ও ঋণ সর্বোচ্চ ৪৫ দিনের পরিবর্তে ৩০ দিন অন্তর অন্তর আবশ্যিকভাবে পরিশোধ ও সমন্বয় করার সুযোগও বন্ধ করে আগের সিদ্ধান্ত কার্যকর করা হয়েছে।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, সম্প্রতি দেশের আবহাওয়া ধান চাষের অনুকূলে থাকায় চলতি বছর ধানের উৎপাদন সন্তোষজনক হয়েছে। এ পরিপ্রেক্ষিতে কৃষক ও স্থানীয় চাল উৎপাদকদের ধান/চালের ন্যায্যমূল্য প্রাপ্তি নিশ্চিত করাসহ কৃষকদের ধান চাষে উৎসাহ প্রদানের লক্ষ্যে সরকার বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করছে।

এমন পরিস্থিতিতে চাল আমদানির ক্ষেত্রে ঋণঝুঁকি বিবেচনায় ব্যাংকার-গ্রাহক সম্পর্কের ভিত্তিতে মার্জিনের হার নির্ধারণ করে ঋণপত্র খোলার জন্য পরামর্শ প্রদান করা হলো। তবে কোনো অবস্থায় শূন্য মার্জিনে ঋণপত্র স্থাপন করা যাবে না। এ ছাড়া রিভলভিং সিসি অথবা ওডি ঋণের ক্ষেত্রে স্থানীয় মিলমালিকরাসহ সকল ধান ও চাল ব্যবসায়ীদের গৃহীত অগ্রিম কিংবা ঋণ সর্বোচ্চ ৪৫ দিন অন্তর অন্তর আবশ্যিকভাবে পরিশোধ সমন্বয় করতে হবে মর্মে পুনর্নির্দেশনা প্রদান করা হলো।