• বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮, ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ২৫ সফর ১৪৩৯
BK
জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ-২০১৮

মাছ উৎপাদনে বাংলাদেশ তৃতীয়

মাছ উৎপাদনে বাংলাদেশ তৃতীয়
ছবি: বাংলাদেশের খবর

মাছ উৎপাদনে ক্রমেই সাফল্যের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থার (এফএও) ২০১৮ সালের প্রতিবেদন অনুযায়ী দেশের অভ্যন্তরীণ বদ্ধজলাশয়ে মাছ উৎপাদনে বাংলাদেশ তৃতীয়। বাংলাদেশের আগের দুটি অবস্থানে রয়েছে চীন ও ভারত। দেশে মোট কৃষিজ আয়ের ২৩ দশমিক ৮১ শতাংশ আসে মৎস্য খাত থেকে। জিডিপিতে মৎস্য খাতের অবদান এখন ৩ দশমিক ৫৭ শতাংশ। কৃষিজ জিডিপিতে এই খাতের অবদান ২৫ দশমিক ৩০ শতাংশ। দেশের মোট জনগোষ্ঠীর ১১ শতাংশের বেশি, ১ দশমিক ৮২ কোটি মানুষ মৎস্য আহরণে সম্পৃক্ত। যার মধ্যে প্রায় ১৫ দশমিক ৫ লাখ নারী।

‘স্বয়ংসম্পূর্ণ মাছের দেশ, বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ’ প্রতিপাদ্য ও স্লোগানে সরকারি-বেসরকারিভাবে দেশব্যাপী ২২-২৮ জুলাই ‘জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ-২০১৮’ উদযাপিত হচ্ছে। দেশে প্রাণিজ আমিষের প্রায় ৬০ শতাংশ জোগান দেয় মাছ। সম্প্রতি মৎস্য অধিদফতরের সেমিনার হলে সংবাদ সম্মেলনে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী নায়ারণ চন্দ্র চন্দ এসব তথ্য জানান। তিনি আরো জানান, ২০১৭-১৮ সালে প্রায় ৬৯ হাজার টন মৎস্য ও মৎস্যজাত পণ্য রফতানি করে প্রায় সাড়ে চার হাজার কোটি টাকার বৈদেশিক মুদ্রা অর্জিত হয়েছে। মন্ত্রী জানান, উৎপাদনে স্বয়ংসম্পূর্ণ হওয়ায় দেশের মানুষ গড়ে ৬২ দশমিক ৫৮ গ্রাম মৎস্য গ্রহণ করছে। জাটকা নিধন ঠেকাতে কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়ায় ২০১৭-১৮ সালে প্রায় পাঁচ লাখ টন ইলিশ উৎপাদিত হয়েছে।

বুকুল হাসান খান 

টেকনিক্যাল অফিসার

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর, খামারবাড়ি, ঢাকা