• বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪, ৮ মহররম ১৪৪০
BK

১১ আগস্ট শপথ নেওয়ার ঘোষণা ইমরানের

১১ আগস্ট শপথ নেওয়ার ঘোষণা ইমরানের
ছবি : ইন্টারনেট

প্রধানমন্ত্রী হিসেবে আগামী ১১ আগস্ট শপথ নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) পার্টির নেতা ইমরান খান। যদিও এখন পর্যন্ত নির্বাচন কমিশন আনুষ্ঠানিকভাবে প্রধানমন্ত্রীর শপথ নিয়ে কোনো বক্তব্য দেয়নি। খবর টাইমস অব ইন্ডিয়া।

পাকিস্তানের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী কে হবেন তা এখনো পুরোপুরি নিশ্চিত না হলেও সংসদে সংখ্যাগরিষ্ঠ সংখ্যক আসন পাওয়ায় এই দৌড়ে এগিয়ে আছেন ইমরান। দ্বিতীয়সারির দলগুলোর সঙ্গে জোট গঠন করতে পারলে প্রধানমন্ত্রী হতে কোনো বাধা থাকবে না তার। গত রোববার রেডিও পাকিস্তানকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘আগস্টের ১১ তারিখ প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেব। আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে খাইবার পাখতুনখাওয়া প্রদেশের সরকার প্রধানের নাম ঘোষণা করা হবে। জনগণের স্বার্থে উপযুক্ত ব্যক্তিকেই নির্বাচিত করা হবে।

সিন্ধুর দারিদ্র্য নিরসনকে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। এর আগে পিটিআই মুখপাত্র নাইমুল হক গত শনিবার সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন, তাদের দলের নেতা প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ১৪ আগস্ট শপথ নেবেন। স্বাধীনতা দিবসের আগেই প্রেসিডেন্টের উপস্থিতিতে তিনি শপথ গ্রহণ করবেন। পাকিস্তানের নির্বাচন কমিশনের (ইসিপি) সবশেষ বেসরকারিভাবে চূড়ান্ত ফলাফল ঘোষণায় পিটিআই জয়লাভ করলেও এককভাবে সরকার গঠনের যোগ্যতা অর্জন করতে পারেনি।

জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠ ১১৬টি আসন পেলেও সরকার গঠনের জন্য দরকার আরো ২২টি আসন। নির্বাচনে পাকিস্তান মুসলিম লীগ-নওয়াজ (পিএমএল-এন) ৬৪ এবং পাকিস্তান পিপলস পার্টি (পিপিপি) পেয়েছে ৪৩ আসন। জানা যায়, সংসদে শক্তিশালী বিরোধী দল হিসেবে ইমরান খানকে বেকায়দায় ফেলতে জোট গঠনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে পিএমএল-এন ও পিপিপি।

এদিকে সরকার গঠনের জন্য পিটিআই নেতারা ছোট ছোট দলের নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করছেন। মুত্তাহিদা কওমি মুভমেন্ট-পাকিস্তান (এমকিউএম-পি), দ্য গ্রান্ড ডেমোক্র্যাটিক অ্যালায়েন্স (জিডিএ), পাকিস্তান মুসলিম লীগ-কায়েদ (পিএমএল-কিউ) এবং বেলুচিস্তান আওয়ামী পার্টি (বিএপি) ছাড়াও বিজয়ী স্বতন্ত্র প্রার্থীদের জোটভুক্ত করার চেষ্টা চলছে।