• রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪, ১২ মহররম ১৪৪০
BK

‘সূর্য জয়ের অভিযান’ শুরু

ছবি: নাসা

সকল সংশয় কাটিয়ে সূর্যের দিকে ছুটতে শুরু করেছে ‘পার্কার সোলার প্রোব’মহাকাশযান। আজ রোববার যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যের কেপ ক্যানাভেরাল থেকে যাত্রা শুরু করে ‘পার্কার সোলার প্রোব এর বাহন ‘ইউনাইটেড লঞ্চ এলায়েন্স’-এর ‘ডেল্টা-৪ হেভি’ রকেট।

নাসার ওয়েবসাইটে দেওয়া তথ্য মতে, স্থানীয় সময় ভোর রাত তিনটা বেজে ৩১ মিনিটে শুরু হয় ‘পার্কার সোলার প্রোব’এর যাত্রা। যানটির ঘণ্টায় সর্বোচ্চ চার লাখ ৩০ হাজার মাইল বা ছয় লাখ ৯২ হাজার কিলোমিটার বেগে গন্তব্যে যাবে। প্রায় ১.৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার মূল্যের এই মহাকাশযানটি গন্তব্য সূর্যের উজ্জ্বল আভাযুক্ত এলাকা ‘করোনা’।

অভিযান সফল হলে যানটি লক্ষাধিক ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা উপেক্ষা করে সূর্যের করোনা অঞ্চলে ২৪ বার প্রদক্ষিণ করবে। বহির্বলয় ছুঁয়ে উড়তে উড়তে সূর্যের অভ্যন্তরে চলা জটিল প্রক্রিয়া ও বিকিরণ সংক্রান্ত তথ্য সংগ্রহ করবে ‘পার্কার সোলার প্রোব’।  তার আধুনিক কমিউনিকেশন প্যানেল পৃথিবীতে তথ্য পাঠাবে। আর সেই তথ্য বিশ্লেষণ করে অনেক সৌরবায়ুর রহস্য, পৃথিবী প্রাণের উৎপত্তিসহ অনেক জটিল প্রশ্নের উত্তর পাওয়া যাবে বলেই মনে করছেন মহাকাশ বিজ্ঞানীরা।

সূর্য এলাকায় কীভাবে তাপ বিকিরণ ঘটে, তা জানতে সহায়তা করবে এই অভিযান। বলা হয়ে থাকে, সূর্যের পৃষ্ঠভাগের তুলনায় করোনা অঞ্চলের তাপমাত্রা ৩০০ গুণ বেশি। অন্যান্য নক্ষত্র সম্পর্কে গবেষণা করতেও সহায়তা করবে অভিযান থেকে প্রেরিত তথ্য-উপাত্ত।

৯১ বছর বয়স্ক অ্যাস্ট্রোফিজিসিস্ট ইউজিন পার্কারের নামে নামকরণ করা হয়েছে মহাকাশযানটি। সূর্যের পৃষ্ঠ থেকে প্রায় ৬০ লাখ কিলোমিটার ওপর থেকে বিভিন্ন তথ্য সংগ্রহ করবে এবং প্রায় ১৩৭০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা সহ্য করতে পারবে ‘পার্কার সোলার প্রোব’।

পার্কার প্রোবের কাঠামোতে রয়েছে কার্বন যৌগের সাড়ে চার ইঞ্চি পুরু শিল্ড যা সূর্য থেকে পৃথিবীতে আসা রেডিয়েশনের চেয়েও ৫০০ গুণ বেশি রেডিয়েশন প্রতিরোধ করতে পারে। এছাড়া ম্যাগনেটিক ও ইলেক্ট্রিক ফিল্ড, প্লাজমা তরঙ্গ এবং উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন পার্টিকেল পরিমাপের জন্য বিভিন্ন ধরনের যন্ত্রপাতি বসানো হয়েছে এতে।

অভিযানটি শুরু হওয়ার কথা ছিল গত শনিবার। কিন্তু একেবারে শেষ বেলায় এসে অভিযানটি ২৪ ঘণ্টার জন্য স্থগিত করা হয়। সেই বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসার বরাতে বিবিসির খবরে বলা হয়,চূড়ান্ত পর্যবেক্ষণের ঠিক শেষ মিনিটে অভিযানটি স্থগিত করা হয়েছে। ‘ডেল্টা-৪ হেভি’ তার লঞ্চ প্যাডেই ছিল। শেষ মূহূর্তের ক্ষণ গণনাও শুরু হয়। কিন্তু শেষ মিনিটে এসেই সতর্কতা সংকেত বাজতে শুরু করে।  রকেটির উৎক্ষেপন সয়ংক্রিয়ভাবেই বন্ধ হয়ে যায়। 

এদিকে উৎক্ষেপনের অনুকূল আবহাওয়া  না থাকার সংশয়ে অভিযানটি ২৪ ঘণ্টার জন্য স্থগিত করা হয়। তবে  রোববার  ভোররাতে ঠিকই নতুন ইতিহাসের সাক্ষী হয় বিশ্ব। চাঁদের পরে সূর্য জয়ের অভিযানের প্রথম ধাপ ঠিকঠাক মতোই হয়েছে। স্বপ্ন জয়ের পথে যাত্রা শুরু করেছে ‘পার্কার সোলার প্রোব’।