• সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪০
BK

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ৩২ কিমি. যানজট

চরম দুর্ভোগে পশু বিক্রেতারা
ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ৩২ কিমি. যানজট
সংগৃহীত ছবি

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মেঘনা-গোমতী সেতুর দুই পাশের ৩২ কিলোমিটার সড়কে দীর্ঘ যানজট সৃষ্টি হয়েছে। যানজটে আটকা পড়ে যাত্রী ও পশু বিক্রেতারা চরম দুর্ভোগ  পোহাচ্ছেন। মঙ্গলবার বিকাল থেকে এই যানজটের সৃষ্টি হয় বলে জানান হাইওয়ে পুলিশের কুমিল্লা রিজিওনের পুলিশ সুপার নজরুল ইসলাম। তিনি জানান, মঙ্গলবার বিকাল থেকে শুরু হওয়া যানজটের কলেবর কম থাকলেও পরবর্তীতে তার আকার দীর্ঘ হতে থাকে। যানজটের পরিমাণ ওঠা-নামার মধ্যেই বৃহস্পতিবার সকালে মেঘনা-গোমতী সেতুর দু’পাশে ৩০-৩২ কিলোমিটার পর্যন্ত অব্যাহত রয়েছে। 

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ৩২ কিলোমিটার দীর্ঘ যানজটের মধ্যে মহাসড়কের কুমিল্লার দাউদকান্দি মেঘনা-গোমতী সেতুর টোলপ্লাজা থেকে চান্দিনার মাধাইয়া পর্যন্ত ২২ কিলোমিটার এবং মুন্সীগঞ্জ জেলার অংশে ১০ কিলোমিটার যানজট লেগে আছে।

সরেজমিন খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, কুমিল্লা অংশে দীর্ঘ যানজটে আটকে আছে শত শত যানবাহন। চরম দুর্ভোগে পড়েছে যাত্রীরা। তবে সবচেয়ে বেশি দুর্ভোগে পড়েছে ঈদের বাজারে আনা-নেওয়া পশুর যানবাহনগুলো। ঘণ্টার পর ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থাকার ফলে পশুর বিভিন্ন শারীরিক সমস্যা দেখা দিচ্ছে।

ঢাকাগামী যাত্রী ব্যবসায়ী জাকির হোসেন স্বজল জানান, কুমিল্লা থেকে ঢাকার উদ্দেশে রওনা দিয়েছি ভোরে। গাড়িতে সাড়ে ৪ ঘণ্টা বসে আছি, এখনো দাউদকান্দি পৌঁছাতে পারেনি।

কুমিল্লা নগরীর কান্দিরপাড় হাজী মান্নান স্টোরের ব্যবসায়ী মো. আবদুল আউয়াল জানান, সারা বছরের তুলনায় ঈদ উৎসব এলে আমাদের বেচাকেনা একটু বাড়ে। কিন্তু ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লার অংশে গত কয়েকদিনের দীর্ঘ যানজটের কারণে ঢাকা যেতে পারছি না। ঈদ উৎসবের জন্য নতুন পোশাক না আনতে পারলে ব্যবসা করব কীভাবে।