• শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮, ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ২৬ সফর ১৪৩৯
BK

হাজীগঞ্জে অবৈধ পশুরহাট ভেঙ্গে দিলেন ইউএনও

হাজীগঞ্জে অবৈধ পশুরহাট ভেঙ্গে দিলেন ইউএনও
ছবি: বাংলাদেশের খবর

চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে কলেজ মাঠে অবৈধভাবে বসা পশুরহাট ভেঙ্গে দিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) বৈশাখী বড়ুয়া। উপজেলার হাটিলা পশ্চিম ইউনিয়নের স্থানীয় ধড্ডা মোয়াজ্জেম হোসেন চৌধুরী ডিগ্রি কলেজ মাঠে এ অবৈধ পশুরহাট বসানো হয়।  আজ শনিবার বিকেল ৪টার দিকে অবৈধ এ পশু ভেঙ্গে ফেলেন ইউএনও বৈশাখী বড়ুয়া।

কলেজ কর্তৃপক্ষ ও স্থানীয় প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, কলেজের পার্শ্ববর্তী ধড্ডা হাফেজিয়া মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ স্থানীয় কয়েকজন প্রভাবশালী ব্যক্তির সহযোগিতায় শনিবার দুপুর বারটার দিকে কলেজ মাঠে পশুরহাট বসায়। হাটে প্রায় পাঁচ শতাধিক গরু-ছাগল উঠে। পশু বেচা-কেনার জন্য ক্রেতা-বিক্রেতারা মাঠে উপস্থিত হয়। কলেজের পুরো মাঠ ক্রেতা-বিক্রেতাদের উপস্থিতিতে সরগরম হয়ে উঠে।

কলেজ সুত্রে জানা গেছে, শনিবার সকাল ১০টায় কলেজে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা উপস্থিত হয়। বেলা বারটা পর্যন্ত শ্রেণী কার্যক্রম চলে। মাঠে পশুরহাট বসানো ও ক্রেতা-বিক্রেতাদের হৈ-হল্লোড়ের কারণে বেলা বারটার পর কলেজ ছুটি দেওয়া হয়। কলেজ কর্তৃপক্ষের অনুমতি না নিয়ে হাট বসানোর কারণে তারা বিষয়টি উপজেলা প্রশাসনকে অবহিত করেন। বেলা চারটার দিকে ইউএনও বৈশাখী বড়ুয়া ঘটনাস্থলে পৌঁছে বাজার ভেঙ্গে দেন। তিনি সরাসরি উপস্থিত থেকে বাজার থেকে ক্রেতা-বিক্রেতা ও পশু সরিয়ে দেন।

কলেজের অধ্যক্ষ মো. জামাল উদ্দিন জানান, আমাদের শ্রেণি কার্যক্রম চলাবস্থায় দুপুর বারটার পর কলেজ মাঠে পশুসহ ক্রেতা ও বিক্রেতারা আসতে থাকে। এতে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা বিভ্রান্তির মধ্যে পড়ে যায়। পরে বিষয়টি স্থানীয় প্রশাসনকে জানানো হয়। তবে কে বা কাহারা পশুর হাট বসিয়েছেন, তিনি তাদের নাম বলতে রাজি হননি। কলেজে হাট বসানোর আগে তারা আমার যোগাযোগ করেনি।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) বৈশাখী বড়ুয়া বলেন, হাজীগঞ্জ উপজেলার ২০টি স্থানে কোরবানির পশুরহাট বসানোর অনুমতি দেওয়া হয়েছে। এর বাইরে যেসব স্থানে পশুরহাট বসবে, সেগুলো ভেঙ্গে দেওয়া হবে। অনুমতি না নিয়ে অবৈধ পশুরহাট বসানোর কারণে ধড্ডা মোয়াজ্জেম হোসেন চৌধুরী ডিগ্রি কলেজ মাঠের বাজারটি ভেঙ্গে দেওয়া হয়েছে।