• সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪০
BK

দেশে সাক্ষরতার হার ৭২ দশমিক ৯ শতাংশ

দেশে সাক্ষরতার হার ৭২ দশমিক ৯ শতাংশ
পুরোনো ছবি

দেশে সাক্ষরতার হার গত এক বছরে আরো বেড়ে ৭২ দশমিক ৯ শতাংশে উন্নীত হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার। আগামী ৮ সেপ্টেম্বর আন্তর্জাতিক সাক্ষরতা দিবস সামনে রেখে বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এই তথ্য দেন। গণশিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘বর্তমান সরকারের নিরলস চেষ্টায় দেশে সাক্ষরতার হার ৭২ দশমিক ৯ শতাংশে উন্নীত হয়েছে। গতবার এই হার ছিল ৭২ দশমিক ৩ শতাংশ।’

‘সাক্ষরতা অর্জন করি, দক্ষ হয়ে জীবন গড়ি’ স্লোগানে এবার বাংলাদেশে আন্তর্জাতিক সাক্ষরতা দিবস পালন করা হবে।

৮ সেপ্টেম্বর সকালে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার থেকে শিল্পকলা অ্যাকাডেমি পর্যন্ত র‌্যালি এবং এই অ্যাকাডেমিতে আলোচনা সভা হবে। এছাড়া জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে সাক্ষরতা দিবসের বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হবে বলে জানান গণশিক্ষা মন্ত্রী। উপানুষ্ঠানিক শিক্ষার কার্যক্রম এক সময় বন্ধ ছিল জানিয়ে ফিজার বলেন, ‘এই সরকার ২০১৪ সালে নিরক্ষরদের সাক্ষরজ্ঞান করতে উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা অধিদপ্তরকে ৪৫২ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়।
আমাদের লক্ষ্য যতক্ষণ একজন নিরক্ষর মানুষ থাকবে ততক্ষণ পর্যন্ত সরকার এটা চালিয়ে যাবে।’

জাতীয় শিক্ষানীতি অনুযায়ী ২০১৮ সালের মধ্যে প্রাথমিক শিক্ষার স্তর অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত উন্নীত করার কথা। এ বিষয়ে অগ্রগতি কতটা- প্রশ্নে গণশিক্ষা মন্ত্রী বলেন, ‘এটা এখনো বাস্তবায়ন করা যায়নি, প্রসেস চলছে। আমরা পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত চালাচ্ছি। আমাদের ৭০০ স্কুলে ষষ্ঠ, সপ্তম এবং অষ্টম শ্রেণি খুলেছি।’

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের বেতন উন্নীতের বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘এটি বাস্তবায়নের ব্যাপারটাও সরকারের। প্রাথমিক শিক্ষার মন্ত্রী যদি বলে দেয় তাহলে এটা হবে না। সরকার যখন সিদ্ধান্ত নেবে তখন এটা হবে, তবে এটা পরিত্যক্ত হয়নি, তাদের দাবি প্রত্যাখ্যাতও হয়নি। তাদের বিষয়টি যুক্তিযুক্তভাবে আলোচনা করা হচ্ছে।’