• বৃহস্পতিবার, ২২ নভেম্বর ২০১৮, ৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ১৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪০
BK

দেশের সীমা ছাড়িয়ে এবার নেপালে চালু হচ্ছে পাঠাও

দেশের সীমা ছাড়িয়ে এবার নেপালে চালু হচ্ছে পাঠাও
সংগৃহীত ছবি

বাংলাদেশের পর এবার দক্ষিণ এশিয়ার দেশ নেপালে চালু হচ্ছে রাইড শেয়ারিং ও লজিস্টিকস প্ল্যাটফর্ম পাঠাও। সম্প্রতি প্রতিষ্ঠানটি নিজেদের ফেসবুক পেজে প্রকাশিত একটি ভিডিওতে এ তথ্য প্রকাশ করেছে। এরই মধ্যে দেশটিতে কর্মী নিয়োগ প্রক্রিয়াও সম্পন্ন হয়েছে বলে জানা গেছে।

নেপালে কার্যক্রম চালুর বিষয়ে নিশ্চিত করে পাঠাওর প্রধান নির্বাহী হুসেইন এম ইলিয়াস বাংলাদেশের খবরকে বলেন, ‘পাঠাও বাংলাদেশে কয়েক হাজার মানুষের কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি করেছে এবং প্ল্যাটফর্মটি থেকে সেবা নিচ্ছে আরো কয়েক লাখ মানুষ। এরই ধারাবাহিকতায় আমরা এবার নেপালে কার্যক্রম শুরু করতে যাচ্ছি। ইতোমধ্যেই সেখানে রাইডারদের নিবন্ধন কার্যক্রম শুরু হয়েছে এবং আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যে আনুষ্ঠানিকভাবে দেশটিতে সেবা প্রদান শুরু হবে।’

প্রতিষ্ঠানটির প্রধান বিপণন ব্যবস্থাপক সৈয়দা নাবিলা মাহাবুব জানান, এরই মধ্যে সেখানে যাবতীয় কার্যক্রম সম্পন্ন হয়েছে। প্রাথমিকভাবে দেশটিতে বাইক সেবা দেওয়া হবে। তবে শুরুতেই কেবল কাঠমান্ডু শহরে এ সেবা পাওয়া যাবে।

উল্লেখ্য যে, ২০১৫ সালে কুরিয়ার সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান হিসেবে কার্যক্রম শুরু করে পাঠাও। তবে ২০১৬ সালে বাইক রাইড শেয়ারিং চালু করে প্রতিষ্ঠানটি। অল্প সময়ের মধ্যেই সাধারণ গ্রাহকদের মধ্যে এ সেবাটি ব্যাপক সাড়া ফেলে। এরই ধারাবাহিকতায় ২০১৭ সালে কার রাইড শেয়ারিং চালু করা হয়। বর্তমানে এ সেবাগুলোর পাশাপাশি ফুড ডেলিভারি সেবাও দিচ্ছে পাঠাও। শুরুতে ঢাকায় সেবা দিলেও পরবর্তী সময়ে চট্টগ্রাম এবং সিলেটে কার্যক্রম সম্প্রসারণ করা হয়।

ইন্দোনেশিয়া ভিত্তিক রাইড শেয়ারিং প্ল্যাটফর্ম গো-জেক ২০১৭ সালে প্রতিষ্ঠানটিতে ২০ লাখ ডলার বিনিয়োগ করে। পরবর্তী সময়ে এ বছরের এপ্রিলে দ্বিতীয় রাউন্ডে আরো এক কোটি ডলার বিনিয়োগের ঘোষণা দেয় গো-জেকসহ কয়েকটি বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান। এর মাধ্যমে পাঠাওয়ের বাজারমূল্য ৮০০ কোটি টাকা ছাড়িয়েছে বলেও জানানো হয় বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে।