• মঙ্গলবার, ২০ নভেম্বর ২০১৮, ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৪
ads

প্রশ্নপত্র

বাগেরহাট সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির ‘বাংলাদেশ ও বিশ্ব পরিচয়’ বিষয়ের প্রশ্নপত্র

অন্যান্য

কোচিং সেন্টারের প্রশ্নপত্রে স্কুলের পরীক্ষা

  • প্রকাশিত ১২ ডিসেম্বর ২০১৭

বাগেরহাটে একটি কোচিং সেন্টারের মডেল টেস্টের প্রশ্নপত্রের সঙ্গে স্থানীয় একটি সরকারি স্কুলের তৃতীয় শ্রেণির বার্ষিক পরীক্ষার প্রশ্ন হুবহু মিলে যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে।  বাগেরহাট সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের ‘বাংলাদেশ ও বিশ্ব পরিচয়’ বিষয়ের এ পরীক্ষা হয় গত শনিবার।

এ ঘটনা তদন্তে মঙ্গলবার স্কুল কর্তৃপক্ষ বিদ্যালয়টির সহকারী প্রধান শিক্ষক শেখ আমজাদ হোসেনকে প্রধান করে পাঁচ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করেছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক শিক্ষার্থী ও অভিভাবক বলেন, বিদ্যালয়ের খণ্ডকালীন শিক্ষক শেখ মো. বেল্লাল হোসেন নিজ বাড়িতে একটি কোচিং সেন্টারে তৃতীয় শ্রেণির বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থীকে পড়ান।

প্রায় ১৫ দিন আগে ওই কোচিং সেন্টারের শিক্ষার্থীদের ‘বাংলাদেশ ও বিশ্ব পরিচয়’বিষয়ে মডেল পরীক্ষা নেন তিনি।  ওই প্রশ্নে সঙ্গে বাগেরহাট সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির ওই বিষয়ের প্রশ্নপত্র হুবহু মিলে গেছে বলে তাদের ভাষ্য।

দুটি প্রশ্নপত্র হুবহু মিলে যাওয়ার কথা স্বীকার করে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আব্দুল মতিন হাওলাদার বলেন, ‘ফাঁস হওয়া প্রশ্নপত্রে বার্ষিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার অভিযোগ অবিভাবকদের কাছ থেকে পেয়েছি।  যার বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে তিনি এই বিদ্যালয়ের আইসিটি বিষয়ের খণ্ডকালীন শিক্ষক।  তিনি স্কুল শেষে আমাদের বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের তার কোচিং সেন্টারে পড়ান।  ঘটনাটি তদন্ত করতে বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক শেখ আমজাদ হোসেনকে প্রধান করে পাঁচ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।’

কমিটিকে আগামী দুই কর্মদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এই ঘটনায় যারা জড়িত থাকবেন তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও তিনি জানান।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে শিক্ষক শেখ মো. বেল্লাল হোসেনের ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করলে তার ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

এ বিষয়ে বিদ্যালয় পরিচালনা পর্যদের সভাপতি বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক তপন কুমার বিশ্বাস বলেন, ‘বিষয়টি আমি শুনেছি।  বর্তমান সরকারের অবস্থান কোচিং সেন্টারের বিরুদ্ধে।  প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনায় বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তদন্ত কমিটি গঠন করেছে।’ তাদের তদন্ত প্রতিবেদন হাতে পেলে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তিনি জানান।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads