• মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৮, ২৯ কার্তিক ১৪২৫
ads

বিভিন্ন সেবা সংস্থার প্রধানদের সঙ্গে ‘সমন্বয় সভায়’ সাঈদ খোকন।

ছবি : বাংলাদেশের খবর

রাজনীতি

গণপরিবহনকে এক ছাতার নিচে আনতে চান সাঈদ খোকন

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ১০ এপ্রিল ২০১৮

শৃঙ্খলা ফেরাতে গণপরিবহনগুলোকে একটি কোম্পানিতে বা এক ছাতার নিচে আনতে শিগগিরই ডিএসসিসির পক্ষ থেকে উদ্যোগ নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন মেয়র সাঈদ খোকন।

তিনি বলেন, ‘এটা যদিও সময়সাপেক্ষ, তারপরও আমরা কাজটা শুরু করতে চাই। আসছে পহেলা বৈশাখের পরই এ বিষয়ে একটা যৌক্তিক সিদ্ধান্ত নিতে বৈঠক করা হবে। এ কাজে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) ও অন্যান্য সংস্থার সঙ্গে সমন্বয় করে একটি সমন্বিত উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে।’

ডিএসসিসির ব্যাংক ফ্লোরে সোমবার দুপুরে বিভিন্ন সেবা সংস্থার প্রধানদের সঙ্গে ‘সমন্বয় সভায়’ সভাপতির বক্তব্যে এসব কথা বলেন সাঈদ খোকন।

গণপরিবহনের দৈন্যদশার কথা স্বীকার করে মেয়র বলেন, গণপরিবহনগুলোর চেহারা দেখলেই বোঝা যায় কতটা প্রতিযোগিতায় নেমেছে তারা। গণপরিবহনে একটা শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে হবে।

হকার উচ্ছেদ নিয়ে আবারো ডিএসসিসি মাঠে নামছে জানিয়ে সাঈদ খোকন বলেন, হকার আর এখন শুধু গুলিস্তান বা মতিঝিল নয়; পুরো ঢাকা শহর ছেয়ে গেছে। ঈদের সময় মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকে তাদের বসার সুযোগ দেওয়া হয়েছিল। এরপর তারা যেভাবে আবার বসে পড়েছে তাতে আগের অবস্থায় ফেরত নেওয়া যায়নি। এ মুহূর্তে ডিএসসিসির অনেকগুলো কর্মসূচি রয়েছে, এসব কর্মসূচি শেষ করার পর হকারদের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

তিনি বলেন, ‘আমাদের নাগরিকরা অত্যন্ত দুর্ভোগে রয়েছে। নাগরিকদের দুর্ভোগ লাঘব করা আমাদের দায়িত্ব, সেই সঙ্গে হকারদের জীবন রক্ষা করাও আমাদের কর্তব্য।’

আগামী মে মাস থেকে ঢাকা শহরে গ্যাসের চাপ বাড়বে জানিয়ে তিতাস গ্যাসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী মীর মশিউর রহমান বলেন, ‘আমাদের সঞ্চালন ও বিতরণ লাইনের কাজ ৯০ শতাংশ শেষ হয়েছে। ৩০ এপ্রিল সিএনজি আমাদের গ্রিডে যুক্ত হচ্ছে। ফলে মে মাস থেকে গ্যাসের কোনো সমস্যা থাকবে না। তখন গ্যাসের চাপ বাড়বে।’

বৈঠকে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক) চেয়ারম্যান মো. আবদুর রহমান জানিয়েছেন, ‘ডিসেম্বরের মধ্যে ঢাকা শহরের বাড়িঘরের প্রকৃত অবস্থান জানা যাবে। আমরা একটি সার্ভে করছি, ঢাকা শহরের প্রত্যেক বাড়ির মালিকের বাড়ির অনুমোদন কততলা, তার মধ্যে কততলা করেছেন। সেই বাড়িতে কী ব্যবহার করা হচ্ছে। আগামী এক মাসের মধ্যে এ কাজ শেষ হবে।’

ঢাকা শহরে ওয়াসার কোনো স্যুয়ারেজ লাইন নেই উল্লেখ করে রাজউক চেয়ারম্যান বলেন, ‘আমরা কাজ করতে গিয়ে দেখেছি ওয়াসার কোনো স্যুয়ারেজ লাইন নেই। স্যুয়ারেজ লাইন একবারে জিরো। স্যুয়ারেজ লাইন কোথায় আছে তাও আমরা জানি না।’

আসছে বর্ষায় গতবারের চেয়ে কম জলাবদ্ধতা হবে বলে জানিয়েছেন ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী তাকসিম এ খান। তিনি বলেন, গতবারের চেয়ে এবার কম জলাবদ্ধতা হবে।

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন ডিএসসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা খান মোহাম্মদ বিলাল, ডিপিডিসির ব্যবস্থাপনা পরিচালক বিকাশ দেওয়ান প্রমুখ।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads