• রবিবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৮, ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৪
ads

ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে জিয়াউর রহমানের ৩৭তম শাহাদাৎ বার্ষিকীর আলোচনা সভায় মির্জা ফখরুল ইসলাম আমগীর।

সংগৃহীত ছবি

রাজনীতি

মাদক নিয়ন্ত্রনে ব্যর্থ হয়ে সরকার মানুষ খুন করছে : মির্জা ফখরুল

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ২৯ মে ২০১৮

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, খালেদা জিয়াকে ছাড়া বিএনপি আগামী নির্বাচনে অংশ নেবে না তাই খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য দুর্বার আন্দোলন গড়ে তোলার আহবান জানিয়েছেন তিনি।

মাদকবিরোধী অভিযান সম্পর্কে ফখরুল বলেন, সরকার মাদক নিয়ন্ত্রনে ব্যর্থ হয়ে পাখির মতো মানুষ মারছে। তিনি বলেন আজ দেশের মানুষকে পাখির মতো গুলি করে হত্যা করছে। কারণ তারা মাদকের ভয়াবহতা থেকে সমাজ-দেশকে মুক্ত করতে ব্যর্থ হয়েছে।।

মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর রমনা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে জিয়াউর রহমানের ৩৭তম শাহাদাৎ বার্ষিকীর আলোচনা সভায় মির্জা ফখরুল এসব কথা বলেন।

ফখরুল আরো বলেন, আমাদের দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে এবং খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে। এবং খালেদা জিয়ার নেতৃত্বেই আগামী নির্বাচনে অংশ নেবে বিএনপি। তাকে ছাড়া কোনো নির্বাচন হবে না, হতে দেয়া হবে না।

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে বর্তমান নির্বাচন কমিশন ভেঙে দেওয়ার দাবি জানিয়ে ফখরুল বলেন, আগামী নির্বাচনের আগে এই নির্বাচন কমিশন বাতিল করতে হবে। এই নির্বাচন কমিশন কথায় কথায় সরকারি দলের সুবিধার্থে আইন পরিবর্তন করে। এই নির্বাচন কমিশন বাতিল করে নতুন নিরপেক্ষ কমিশন গঠন করতে হবে। তাদের মাধ্যমে একটি নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন করতে হবে। একইসঙ্গে এই সরকারের পদত্যাগ করতে হবে, পার্লামেন্ট ভেঙে দিতে হবে। নির্বাচনে সেনাবাহিনী মোতায়েন করতে হবে।

জিয়াউর রহমান সম্পর্কে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের ব্যর্থতা থেকেই জিয়াউর রহমানের জন্ম হয়েছে। যখন আওয়ামী লীগ রাষ্ট্র পরিচালনায় ব্যর্থ হয়েছে, তখন জিয়াউর রহমান রাষ্ট্র ক্ষমতায় এসেছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি। তিনি বলেন, জিয়াউর রহমান যদি স্বাধীনতার ঘোষণা না দিতেন তাহলে আজকের এই দেশ তৈরি হতো কি না তা নিয়ে প্রশ্ন থেকে যায়। কারণ যাদের ঘোষণা করার কথা ছিল তারা কেউ আত্মসমর্পণ করেছিল। আর কেউ পালিয়ে গিয়েছিল।

ফখরুল বলেন, আওয়ামী লীগের ব্যর্থতা থেকে জিয়াউর রহমানের জন্ম হয়েছে। যখন আওয়ামী লীগ রাষ্ট্র পরিচালনায় ব্যর্থ হয়েছে, তখন জিয়াউর রহমান রাষ্ট্র ক্ষমতায় এসেছে।

আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, ভাইস চেয়ারম্যান মেজর অব. হাফিজ উদ্দিন, বেগম সেলিমা রহমান প্রমুখ।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads