• শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads
‘গ্রেনেড হামলায় বিএনপির সংশ্লিষ্টতা সবার জানা’

লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের

সংরক্ষিত ছবি

রাজনীতি

‘গ্রেনেড হামলায় বিএনপির সংশ্লিষ্টতা সবার জানা’

  • চট্টগ্রাম ব্যুরো
  • প্রকাশিত ২৬ আগস্ট ২০১৮

২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলায় বিএনপির সংশ্লিষ্টতা দেশবাসীর জানা বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। চট্টগ্রামে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে গতকাল শনিবার এ কথা বলেন তিনি।

২০০৪ সালে বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার আমলে ঢাকায় আওয়ামী লীগের সমাবেশে গ্রেনেড হামলা হয়েছিল, যাতে ২৪ জন নিহত এবং কয়েকশ’ আহত হন। ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার দায় বিএনপি এড়াতে পারে না। ২১ আগস্ট কিলিংয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা টার্গেট ছিল। এ নৃশংস হত্যাকাণ্ডে আইভি রহমানসহ ২৪ জনের প্রাণের প্রদীপ নিভে গেছে। তখন বিএনপি সরকার ক্ষমতায়। হাওয়া ভবনের পরিকল্পনার কথা সারা দেশ জানে। গোপন কোনো বিষয় নেই।’

শেখ হাসিনাকে হত্যাচেষ্টার এই মামলায় তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার ছেলে বিএনপির জ্যেষ্ঠ ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানও আসামি। এই মামলার বিচার শেষ পর্যায়ে রয়েছে। এই রায়ের পর বিএনপি নতুন করে সঙ্কটে পড়বে বলে কাদের এক দিন আগেই বলেছিলেন, যা রায়কে প্রভাবিত করবে বলে বিএনপি নেতাদের দাবি। কাদের বলেন, ‘কারা জড়িত সেটা বিচারালয় সিদ্ধান্ত নেবে। কোর্ট স্বাধীন। আশা করি বাস্তবতার নিরিখেই রায় হবে, যা ঘটেছে সেই নিরিখেই হবে। এখানে আমাদের কোনো হস্তক্ষেপ নেই।’

রায়ে বিএনপির অনেকেই দোষী সাব্যস্ত হতে পারে মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘তারা যদি কনভিকটেড হয়, তাহলে তো এখানে অবশ্যই বলা যায়, সামনে জাতীয় নির্বাচন। তাদের অস্তিত্ব কিছুটা সঙ্কটের মুখে পড়বে।’ চট্টগ্রামের পতেঙ্গায় নির্মাণাধীন টানেল পরিদর্শন করে তিনি আরো বলেন, ‘বিএনপি একটা বড় দল, তাদের অস্তিত্ব থাকবে। আমি বলছি, রাজনৈতিক অস্তিত্ব কিছুটা সঙ্কটের মুখে পড়বে।’

সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘আমি অন্ধকারে ঢিল ছুড়ি না। কোটা ও নিরাপদ সড়ক আন্দোলনে কেউ ইন্ধন দিয়ে থাকলে সেটা আস্তে আস্তে বের হবে। তবে এসব আন্দোলনে বিএনপিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের ইন্ধন ছিল।’ তিনি বলেন, ‘কোটা আন্দোলনের শুরুটা বাইরের ইন্ধনে হয়েছে, সেটা আমি মনে করি না। তবে পরে বাইরের ইন্ধন এবং উসকানি যুক্ত হয়েছে।’

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads