• সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads
ভোট টানতে ‘উন্নয়ন’ প্রচার!

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন

সংরক্ষিত ছবি

রাজনীতি

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে ‘সরকারের বড় উন্নয়ন’ বাছাইয়ে বৈঠক আজ

ভোট টানতে ‘উন্নয়ন’ প্রচার!

  • সাইদ আরমান
  • প্রকাশিত ০৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮

দেশে এরই মধ্যে তৈরি হয়েছে নির্বাচনী আবহ। নির্বাচন কমিশনও একটি সম্ভাব্য সময় বেঁধে নির্বাচনের প্রস্তুতির কথা জানিয়েছে। সব ঠিক থাকলে আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। আর আসন্ন নির্বাচনে ভোটের রাজনীতিতে এগিয়ে থাকতে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকার তার ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকাণ্ডকে সামনে আনতে চায়।

টানা দুইবার ক্ষমতায় থাকা শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন আওয়ামী লীগ সরকার মনে করছে, উন্নয়নকে সামনে রেখে আবারো তারা ক্ষমতায় আসতে পারবে। সরকারের ধারণা, গত ১০ বছরে দেশে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। এটি দেশের মানুষের কাছে ব্যাপক প্রচার করলে সাধারণ মানুষ আওয়ামী লীগকে তৃতীয়বারের মতো ক্ষমতায় আনতে সমর্থন দেবে।

জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব নজিবুর রহমানের নেতৃত্বে একটি বিশেষ কমিটি কাজ করছে এ ব্যাপারে। এই কমিটি সরকারকে নির্বাচনী বৈতরণী পার করতে জনসমর্থন পাওয়া যাবে এমন উন্নয়ন কর্মকাণ্ড নির্বাচন করতে এরই মধ্যে কাজ শুরু করেছে।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের একটি সূত্র বলছে, সরকারের সব মন্ত্রণালয় ও সংস্থা থেকে তাদের উন্নয়ন কার্যক্রম ও সাফল্যের প্রতিবেদন চাওয়া হয়েছে। গত ২৮ আগস্ট প্রধানমন্ত্রীর অতিরিক্ত প্রেস সচিব মো. নজরুল ইসলাম তথ্য সচিবকে এ সংক্রান্ত একটি চিঠি দেন। সেখানে তিনি এ ব্যাপারে তথ্য সচিবকে পদক্ষেপ নেওয়ার কথা জানান। ওই চিঠির বরাত দিয়ে তথ্য মন্ত্রণালয় থেকে সরকারের সব মন্ত্রণালয় ও বিভাগসমূহে চিঠি দেওয়া হয়েছে। সেখানে মন্ত্রণালয় ও বিভাগসমূহের গত ১০ বছরের উন্নয়ন কার্যক্রমের একটি বিবরণ প্রতিবেদন আকারে প্রস্তুত করতে নির্দেশনা দেওয়া হয়।

জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে গত ৩০ আগস্ট সময় বেঁধে দেওয়া হয়েছিল প্রতিবেদন পাঠাতে। বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, দফতর ও সংস্থা থেকে পাওয়া তালিকা নিয়ে আজ রোববার বিকালে প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব বৈঠক করবেন। সেখানে বিভিন্ন দফতরের প্রতিনিধিদের থাকতে বলা হয়েছে।

বৈঠকে একটি সংক্ষিপ্ত তালিকা করা হবে সরকারের সাফল্য হিসেবে। সেটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে উপস্থাপন করা হবে। প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদিত সেই উন্নয়নচিত্র নিয়ে যত দ্রুত সম্ভব মন্ত্রণালয় ও বিভাগগুলো প্রচার শুরু করবে। জনসাধারণের মধ্যে প্রচারের নিমিত্তে উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের সমন্বয়ে লিফলেট, ব্যানার, পোস্টার, বিলবোর্ড করবে সংস্থাগুলো। কিছু কার্যক্রম কেন্দ্রীয়ভাবে প্রচারের উদ্যোগ নেওয়া হবে। জানা গেছে, এজন্য প্রায় ৬০ কোটি টাকা ব্যয়ে একটি বিশেষ প্রকল্পও রয়েছে সরকারের।

সরকারের এমন উদ্যোগের বিষয়ে জানতে চাইলে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ-টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বাংলাদেশের খবরকে বলেন, এসব কার্যক্রম হাতে নেওয়ার উদ্দেশ্য নির্বাচন। জনগণের টাকায় নির্বাচনী প্রচার অন্যায়। তাছাড়া এতে ক্ষমতার বাইরে থাকা রাজনৈতিক দলগুলো বৈষম্যের শিকার হবে। এটি একধরনের অসমতা তৈরি করবে জাতীয় নির্বাচনে।

প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব টেলিফোনে এ প্রতিবেদককে শনিবার বলেন, দেশ এগিয়ে গেছে অনেক। আমরা যেসব জায়গায় সাফল্য অর্জন করেছি সেগুলো সাধারণ মানুষকে জানানোর জন্য এই কার্যক্রম। এর থেকে বর্তমান সরকার বিশেষ কোনো ফায়দা পাবে বলে আমি মনে করি না।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতায় আসা শেখ হাসিনার সরকারের উন্নয়ন ও অগ্রগতি বেশ নজর কেড়েছে। গত ১০ বছরে সরকার অবকাঠামোগত উন্নয়নসহ শিক্ষা, স্বাস্থ্য, বাণিজ্য, মানব উন্নয়ন, সামাজিক কল্যাণ কর্মসূচিতে দেশ-বিদেশে প্রশংসা ও স্বীকৃতি পেয়েছে। এ সরকারের সময় তথ্যপ্রযুক্তিতে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads